advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

নতুন করে আরেক নারী শনাক্ত

নিজস্ব প্রতিবেদক
৩১ মার্চ ২০২০ ০০:০০ | আপডেট: ৩১ মার্চ ২০২০ ০০:১৬
advertisement

দিন দুয়েক পর নতুন করে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত এক নারীকে শনাক্ত করা হয়েছে। আর ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন চারজন। গতকাল সোমবার দুপুরে আইইডিসিআর পরিচালক অধ্যাপক ডা. মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা অনলাইন প্রেস ব্রিফিংয়ে এ তথ্য জানান। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পরিচালক (এমআইএস) ডা. হাবিবুর রহমানও এ সময় উপস্থিতি ছিলেন।

ডা. মীরজাদী ফ্লোরা বলেন, ‘নতুন করে আক্রান্ত নারীর বয়স ২০-এর কোটায়। এ পর্যন্ত দেশে ৪৯ করোনা ভাইরাসের রোগী শনাক্ত হয়েছে। এর মধ্যে আরও চারজনের শরীরে সংক্রমণ আর নেই। তাদের মধ্যে

একজনের বয়স ৮০ বছর। আরও দুজনের বয়স ৬০-এর বেশি। তার মানে বয়োজ্যেষ্ঠ হলেই ঝুঁকিপূর্ণ এমন নয়। চারজনের মধ্যে দুজন বাড়িতে বসে চিকিৎসা নিয়েছেন। তিনজনের বিভিন্ন উচ্চ রক্তচাপ ও ডায়াবেটিস ছিল। এ চারজনের মধ্যে একজন চিকিৎসাকর্মী ও একজন নার্স ছিলেন। সব মিলিয়ে ১৯ জন সুস্থ হয়েছেন।’ তিনি বলেন, ‘গত ২৪ ঘণ্টায় আমাদের হটলাইনে ফোন এসেছে ৪ হাজার ৭২৫টি। এর মধ্যে করোনা সংক্রান্ত কল এসেছে ৩ হাজার ৯৯৭টি। একই সময়ে ১৫৩টি নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষা করা হয়েছে। এ পর্যন্ত ১ হাজার ৩৩৮টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে।’

ডা. মীরজাদী বলেন, ‘আমাদের একটি কেন্দ্রে ৩৬ জন প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনে ছিলেন। পরীক্ষা-নিরীক্ষায় তাদের কারও শরীরে করোনা ভাইরাস না পাওয়ায় তাদের ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। এ ছাড়া সারাদেশে এখনো প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনে ৩২ জন আছেন। আর আইসোলেশনে আছেন ৬২ জন। সব মিলিয়ে আইসোলেশনে ছিলেন ২৮৪ জন।’

দেশবাসীর উদ্দেশে এ চিকিৎসক বলেন, ‘একদিন কোনো কেস ডিটেক্টেড না হলে ধরে নেওয়া যাবে না, আমরা ঝুঁকিমুক্ত হয়ে গেছি। আপনারা ঘরে থাকবেন। এ সময় আপনাদের ঘরে থাকা অত্যন্ত জরুরি। আমরা গণমাধ্যমে খবর দেখেছি, আপনারা ঘর থেকে বের হচ্ছেন। দয়া করে কেউ বের হবেন না। একান্ত প্রয়োজনে যদি কেউ বের হন, তা হলে অবশ্যই মাস্ক ব্যবহার করবেন। এ ছাড়া করোনা প্রতিরোধে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় যেসব নিয়ম পালন করতে বলেছে, তা করুন।’

এদিকে সারাদেশ থেকে আমাদের নিজস্ব প্রতিবেদক ও প্রতিনিধিদের পাঠানো খবরে জানা যায়Ñ

খুলনা : জেলা ও মহানগরীতে বিদেশ ফেরত এবং তাদের সংস্পর্শে আসা ১ হাজার ৭৯৬ জনকে হোম কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছে। তাদের মধ্যে নগরীতে ৮৮৮ ও জেলায় ৯০৮ জন রয়েছেন। এ ছাড়া শরীরে করোনার উপসর্গ থাকায় একজনকে আইসোলেশনে রাখা হয়েছে। আর কোয়ারেন্টিনের মেয়াদ শেষ হওয়ায় ছাড়পত্র দেওয়া হয়েছে ৩২৯ জনকে। জেলা সিভিল সার্জন ডা. সুজাত আহমেদ এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

গাজীপুর : মহানগরের পূবাইলের মেঘডুবি ২০ শয্যাবিশিষ্ট মা ও শিশুকল্যাণ কেন্দ্রে কোয়ারেন্টিনে থাকা ৩৬ ইতালি প্রবাসীকে গতকাল ছাড়পত্র দেওয়া হয়েছে। ১৬ দিন পর কোয়ারেন্টিন থেকে তাদের নিজ নিজ গন্তব্যে পাঠানো হয় বলে জানিয়েছেন জেলা প্রশাসক এসএম তরিকুল ইসলাম।

জামালপুর : জেলার ইসলামপুরে করোনা সন্দেহে এক নারীর নমুনা সংগ্রহ করে আইইডিসিআরে পাঠিয়েছে স্বাস্থ্য বিভাগ। পাশাপাশি নিজ বাড়িতেই তাকে কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছে। এ ঘটনায় স্থানীয় উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে আশপাশের ১০টি বাড়িও লকডাউন ঘোষণা করা হয় বলে জানিয়েছেন উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. আবু তাহের।

মানিকগঞ্জ : মানিকগঞ্জের বিভিন্ন এলাকায় ৩০৪ প্রবাসীকে হোম কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছে। এর মধ্যে গতকাল নতুন করে রাখা হয়েছে সাতজনকে। আর ৬৭ জনকে ফিরিয়ে দেওয়া হয়েছে স্বাভাবিক জীবনে।

গাইবান্ধা : করোনা ভাইরাস সংক্রমণের কোনো প্রমাণ না পাওয়ায় কোয়ারেন্টিনে থাকা গাইবান্ধার ২২ জনকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। নতুন করে দুজনকে হোম কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছে।

কুড়িগ্রাম : নতুন করে ছয়জনসহ বর্তমানে ৬৯ জন কুড়িগ্রামে হোম কোয়ারেন্টিনে রয়েছে। এখন পর্যন্ত ছাড়পত্র দেওয়া হয়েছে ২৫৭ জনকে। এ ছাড়া স্বাস্থ্যকর্মী ও চিকিৎসকদের জন্য দেওয়া হয়েছে ১ হাজার ৬৫০টি পিপিই।

সিরাজগঞ্জ : গত ২৪ ঘণ্টায় সিরাজগঞ্জ জেলার ১০ জনকে হোম কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছে। এ ছাড়া করোনার লক্ষণ না পাওয়ায় ১৩৭ জনকে ছাড়পত্র দেওয়া হয়েছে। তবে শাহজাদপুরের কৌজুরি ইউনিয়নের ভাটাপাড়া গ্রামে করোনা সন্দেহে দুজনকে বাধ্যতামূলক হোম কোয়ারেন্টিনে রেখে তাদের বাড়ি দুটি লকডাউন করে দিয়েছে উপজেলা প্রশাসন। এদিকে শ্বাসকষ্ট, পাতলা পায়খানা হওয়ায় গতকাল ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব জেনারেল হাসপাতালের আইসোলেশন সেন্টারে এক তরুণী রোগী ভর্তি হয়েছে।

আগৈলঝাড়া (বরিশাল) : সরকারি তথ্যানুযায়ী চলতি মার্চে বিদেশ থেকে আসা ৫৩০ জনের মধ্যে হোম কোয়ারেন্টিনে রয়েছেন মাত্র ৪০ জন। বাকিদের হদিস নেই বলে জানিয়েছে প্রশাসন।

প্রতিবেদনটি তৈরিতে সহায়তা করেছেন নিজস্ব প্রতিবেদক, খুলনা ও কুড়িগ্রাম এবং গাজীপুর সদর, জামালপুর, মানিকগঞ্জ, গাইবান্ধা, সিরাজগঞ্জ, আগৈলঝাড়া (বরিশাল) প্রতিনিধি।

advertisement
Evaly
advertisement