advertisement
advertisement

গুজব প্রতিরোধে সাইবার প্যাট্রলিং

হাবিব রহমান
৩১ মার্চ ২০২০ ০০:০০ | আপডেট: ৩১ মার্চ ২০২০ ০৭:৫৬
advertisement

করোনা ভাইরাস সংক্রমণ নিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ‘অসত্য তথ্য বা গুজব’ ছড়ানোর বিরুদ্ধে সাইবার প্যাট্রলিং করছে পুলিশ-র‌্যাব। গুজব ছড়ানোর অভিযোগে ইতোমধ্যে সারাদেশে ১৫ ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। যারা তুলনামূলক কম অপরাধ করেছেন এমন অন্তত ৬ জনকে অফিসে ডেকে বুঝিয়ে ছেড়ে দেওয়া হয়। এ ছাড়া করোনা ভাইরাসের গুজব ছড়িয়ে অস্থিতিশীল পরিবেশ সৃষ্টি করতে পারে এমন তিন শতাধিক ফেসবুক আইডি নজরদারিতে রেখেছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, করোনা নিয়ে এমনিতেই মানুষের মধ্যে এক ধরনের আতঙ্ক বিরাজ করছে। এর মধ্যে গুজব ছড়িয়ে অস্থিতিশীল পরিবেশ সৃষ্টির অপচেষ্টা করছে একটি চক্র। এরই অংশ হিসেবে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের বিভিন্ন প্ল্যাটফরম ব্যবহার করে একটি পক্ষ করোনা ভাইরাস নিয়ে অসত্য তথ্য দিয়ে মানুষকে বিভ্রান্ত করারও অপচেষ্টা চালাচ্ছে। করোনায় আক্রান্ত রোগীর নিজস্ব পরিসংখ্যান দেওয়াসহ নানাভাবে গুজব সৃষ্টি করা হচ্ছে।

ঢাকা মহানগর পুলিশের কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিটের সাইবার সিকিউরিটি অ্যান্ড ক্রাইম বিভাগ সূত্র জানায়, মূলত দুভাবে করোনা নিয়ে গুজব সৃষ্টিকারীদের বিরুদ্ধে কাজ করা হচ্ছে। একটি হচ্ছে সফট পুশ, যেখানে মানুষকে বলে বুঝিয়ে কনটেন্ট মুছে ফেলা হচ্ছে। সচেতনতামূলক কার্যক্রম প্রচার করা হচ্ছে। ডিএমপি এবং পুলিশ সদর দপ্তরের পেজ থেকে নিয়মিত প্রচার চালানো হচ্ছে। দ্বিতীয়টি হচ্ছে হার্ড পুশ, যেখানে গুজব ছড়িয়ে দেশে অস্থিরতা তৈরি করতে চায় তাদের আইনের আওতায় নিয়ে আসা হচ্ছে। ইতোমধ্যে গুজব ছড়ানো অন্তত ১৫টি কনটেন্ট ইন্টারনেট থেকে অপসারণ করা হয়েছে।

সিটিটিসির সাইবার সিকিউরিটি অ্যান্ড ক্রাইম বিভাগের সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম মনিটরিং সেলের অতিরিক্ত উপকমিশনার (এডিসি) মো. নাজমুল ইসলাম আমাদের সময়কে বলেন, প্রথমে যখন চীনে করোনার প্রাদুর্ভাব দেখা যায় তখন থেকেই আমরা বাংলাদেশে ইন্টারনেট মনিটরিং করছি। যারা অসত্য তথ্য বা গুজব প্রচার করছেন তাদের নিয়ে কাজ করছি। আমরা ইতোমধ্যে দেড়শ থেকে দুইশ আইডি মনিটরিংয়ে রেখেছি। এসব আইডি থেকে নিয়মিত গুজব ছড়ানো হচ্ছে। এ ছাড়া ৬ জনকে আমাদের অফিসে ডেকে এনে কাউন্সেলিং করে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। সারাদেশের পুলিশ আমাদের সহায়তায় ৬ জনকে গ্রেপ্তার করেছে।

র‌্যাব সূত্র জানায়, এক মাস ধরে করোনা ভাইরাস নিয়ে গুজব সৃষ্টির বিরুদ্ধে সাইবার মাধ্যম মনিটরিং করছে র‌্যাবের সাইবার প্যাট্রলিং ইউনিট। এ ছাড়া গুজব সৃষ্টিকারীদের বিরুদ্ধে নিয়মিত অভিযানও পরিচালনা করছে। এরই অংশ হিসেবে সারাদেশে এখন পর্যন্ত অন্তত ৯ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এ ছাড়া গুজব ছড়ানোর অভিযোগে দেড় শতাধিক আইডি নজরদারিতে রাখা হয়েছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে র‌্যাবের গোয়েন্দা শাখার প্রধান লে. কর্নেল সারোয়ার বিন কাশেম আমাদের সময়কে বলেন, করোনা ভাইরাস নিয়ে যেন কেউ গুজব সৃষ্টি করে ফায়দা হাসিল করতে না পারে সে ব্যাপারে সতর্ক রয়েছে র‌্যাব। ইন্টারনেটে গুজব রোধে আমাদের মনিটরিং অব্যাহত থাকবে।

ডিএমপির সাইবার সিকিউরিটি অ্যান্ড ক্রাইম বিভাগ ও র‌্যাব ছাড়াও পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগসহ (সিআইডি) বিভিন্ন ইউনিট ইন্টারনেটে করোনা ভাইরাস নিয়ে গুজব ছাড়ানোর বিরুদ্ধে কাজ করছে।

advertisement