advertisement
advertisement

রাঙ্গাবালীতে ঢাকা ফেরত অসুস্থ নারীর রাত কাটল সড়কে

রাঙ্গাবালী (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি
৩১ মার্চ ২০২০ ০০:০০ | আপডেট: ৩১ মার্চ ২০২০ ০০:৩৮
advertisement

অসুস্থ থাকার কারণে ঢাকা ফেরত পটুয়াখালীর রাঙ্গাবালী উপজেলায় রেনিস বেগম মালা (৪২) নামের এক নারীকে আশ্রয় দেননি স্বজনরা। অসহায় ওই নারীর সারারাত কেটেছে সড়কেই। সেখানেই তিনি খোলা আকাশের নিচে কাতরাচ্ছিলেন। গত রবিবার রাতে উপজেলার সদর ইউনিয়নে এ ঘটনাটি ঘটে। রেনিস উপজেলার সদর ইউনিয়নের উনিশ নম্বর গ্রামের মৃত নূর হোসেন হাওলাদারের মেয়ে। ঢাকার মুগদা থানার উত্তর মুগদাপাড়ায় থাকতেন তিনি। তবে গতকাল সোমবার দুপুরে প্রশাসনের হস্তক্ষেপে রেনিসকে আশ্রয় দিতে বাধ্য হয়েছেন ভাই।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, এক সপ্তাহ আগে রেনিস ঢাকা থেকে রাঙ্গাবালী আসেন। কয়েক দিন উনিশ নম্বর গ্রামে বসবাসরত বোনজামাই শাবু হোসেনের বাড়িতে ছিলেন। পরে অসুস্থতার কারণে সেখান থেকে তাকে বের করে দেওয়া হয়। উপায় না পেয়ে খালগোড়া বাজারে বসবাসরত সৎভাই জসিম হাওলাদারের কাছে আশ্রয় চান। সেখানেও তার ঠাঁই হয়নি। ঘর থেকে বের করে দেওয়া হয় তাকে। অসুস্থতার কারণে রেনিসের কোনো আত্মীয়ই তার পাশে দাঁড়াননি। পরে নিরুপায় হয়ে রবিবার রাত থেকে খালগোড়া বাজারের চৌরাস্তার সড়কে অবস্থান নেন।

খালগোড়া বাজারের কয়েকজন বাসিন্দা জানান, রাত ৮টার দিকে চৌরাস্তার সড়কের পাশের একটি দোকানের সামনে রেনিস এসে আশ্রয় নেন। সেখানে তিনি কাতরাচ্ছিলেন।

জানতে চাইলে রেনিসের ভাই জসিম হাওলাদারের স্ত্রী রিনা বেগম বলেন, করোনা ভাইরাস সংক্রমণের ভয়ে কেউ রেনিসকে ঘরে ওঠাতে চায় না। আমি ভাড়া বাসায় থাকি। আমার বাড়িওয়ালায় কি তারে উঠাইতে দিবে? সে এতদিন বোনজামাইয়ের বাড়িতে ছিল। আমার স্বামীর বাসায় উঠানোর মিথ্যা কথা বলে রেনিসের বোনের ছেলে রবিন তাকে ফেলে যায়।

রাঙ্গাবালী থানার ওসি আলী আহম্মেদ বলেন, ওই নারীকে তার ভাইয়ের তত্ত্বাবধানে রাখা হয়েছে।

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মাশফাকুর রহমান বলেন, ঘটনা শুনেই তাৎক্ষণিক প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। রেনিসকে ডাক্তার দেখানো হয়েছে। তার মধ্যে করোনার কোনো লক্ষ্মণ নেই। তার স্বাভাবিক শারীরিক অসুস্থতার চিকিৎসা দেওয়া হবে।

advertisement