advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

যে মহড়ায় সাফল্য দক্ষিণ কোরিয়ার

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
১ এপ্রিল ২০২০ ০০:০০ | আপডেট: ১ এপ্রিল ২০২০ ০০:৪২
advertisement

কল্পিত রহস্যময় একটি প্রাদুর্ভাব মোকাবিলায় জরুরি ভিত্তিতে মহড়ার পরীক্ষা চালিয়েছিল দক্ষিণ কোরিয়া। এক মাসেরও কম সময়ের পর এসে ছড়িয়ে পড়া নতুন করোনা ভাইরাস ঠেকানোর হাতিয়ার তৈরিতে দেশটিকে সাহায্য করেছে সেই মহড়াই। সংশ্লিষ্ট এক বিশেষজ্ঞ ও সরকারি এক গোপন নথির ভিত্তিতে রয়টার্স এ খবর দিয়েছে। ওই নথিতে দেখা যায়, ১৭ ডিসেম্বর দক্ষিণ কোরিয়ার সংক্রামক ব্যাধি বিষয়ে দুই ডজন শীর্ষ বিশেষজ্ঞ একটি উদ্বেগজনক পরিস্থিতি সামাল দেন। চীন ভ্রমণ করে আসা এক দক্ষিণ কোরীয় পরিবারের মধ্যে নিউমোনিয়ার দেখা পান তাংরা। ততদিনে চীনে ছড়িয়ে পড়েছে অজ্ঞাত এক রোগ। নতুন ধরনের করোনা ভাইরাস হিসেবে কল্পনা করে নেওয়া রোগটি দ্রুতই পরিবারের সদস্য ও তাদের সংস্পর্শে আসা স্বাস্থ্যকর্মীদের মধ্যে ছড়িয়ে পড়ে। পরিস্থিতি মোকাবিলায় দক্ষিণ কোরিয়ার রোগ নিয়ন্ত্রণ ও প্রতিরোধকেন্দ্র রোগটির জীবনীশক্তি ও উৎপত্তি খুঁজতে অ্যালগরিদমের পাশাপাশি দ্রুত পরীক্ষার কৌশলও তৈরি করে ফেলে। গোপন ওই নথি অনুসারে, ২০ জানুয়ারি দক্ষিণ কোরিয়ায় প্রথম নোভেল করোনা ভাইরাসের সন্দেহভাজন রোগী দেখা দিলে তখনকার মহড়া থেকে পাওয়া ওই ব্যবস্থা প্রয়োগ করা হয়। মহড়া পরিচালনাকারী অন্যতম বিশেষজ্ঞ লি স্যাং অন বলেন, ‘মহড়া কাজে লাগার বিষয়টি ছিল একটা অন্ধ ভাগ্য। ওই পরিস্থিতিটি বাস্তবে রূপ নিতে দেখে আমরা হতবাক হয়ে পড়েছি। কিন্তু মহড়া থেকে পরীক্ষা পদ্ধতি ও রোগ শনাক্তের পদ্ধতিতে আমাদের অনেক সময় বাঁচিয়ে দিয়েছে।’

advertisement