advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

রোনালদোর কোয়ারেন্টিন-যাপন

ক্রীড়া ডেস্ক
১ এপ্রিল ২০২০ ০০:০০ | আপডেট: ১ এপ্রিল ২০২০ ০০:৪২
advertisement

ইতালির হাজার হাজার প্রাণ কেড়ে নিচ্ছে করোনা ভাইরাস। লাশের মিছিলের সঙ্গে বহুগুণ বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যাও। এ ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার প্রাথমিক পর্যায়ে ইতালির ক্লাব জুভেন্টাসের হয়ে খেলেছেন ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো। তার সতীর্থ ড্যানিয়েল রুগানি এই প্রাণঘাতী ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। রুগানির সঙ্গে একই ড্রেসিংরুম ব্যবহার করেছেন রোনালদোও। তাই করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কায় নিজ থেকেই হোম কোয়ারেন্টিনে আছেন পুর্তগিজ তারকা। পর্তুগালের দ্বীপ শহর মাদেইরায় নিজের বাড়িতে গত ১২ মার্চ থেকেই কোয়ারেন্টিনে আছেন তিনি।

এরই মধ্যে ১৪ দিনের কোয়ারেন্টিন পর্ব শেষ হয়েছে। কোয়ারেন্টিন শেষে ইতালির তিনটি হাসপাতালকে ৩৫ শয্যার আইসিইউ এবং ভেন্টিলেশন সুবিধাসহ করোনা চিকিৎসার অত্যাধুনিক উপাদান দেওয়ার ঘোষণা দেন রোনালদো এবং তার বন্ধু ও এজেন্ট হোর্হে মেন্ডেজ। ইউরোপজুুড়ে করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়েছে ভয়ঙ্করভাবে। তাই সেলফ আইসোলেশন কিংবা হোম কোয়ারেন্টিনে থাকা ছাড়া উপায় নেই কারও। রোনালদোও কোয়ারেন্টিনে আছেন। মাঠে খেলা নেই, ক্লাবের অনুশীলন ক্যাম্প নেই। কীভাবে লম্বা সময়টা কোয়ারেন্টিনে কাটাচ্ছেন এই ফুটবল তারকা? নিজের অফিসিয়াল টুইটার হ্যান্ডলে রোনালদো হোম কোয়ারেন্টিনে সন্তানদের সঙ্গে কোয়ালিটি সময় কাটানোর একটি ছবি পোস্ট করেছেন। জানিয়ে দিলেন, তার সময়টা খারাপ কাটছে না। গৃহবন্দি অবস্থায় তিন সন্তানের সঙ্গে খোশমেজাজে একটি ছবি পোস্ট করেন জুভেন্তাসের এই তারকা ফুটবলার। সেখানে দেখা যায় একটি সাদা সোফার ওপর বসে আছেন ৩৫ বছর বয়সী রোনালদো। সঙ্গে রয়েছে তার যমজ দুই কন্যা মাতেও এবং ইভা। এ ছাড়া ছোট সন্তান আলানাও রয়েছে সেখানে। হোম কোয়ারেন্টিনে রোনালদোর সঙ্গী হিসেবে রয়েছেন তার মা ডলরেস, বান্ধবী জর্জিনা রদ্রিগুয়েজ এবং বড় সন্তান রোনালদো জুনিয়র। টুইটার বার্তায় সিআরসেভেন লেখেনÑ ‘কঠিন সময়ের মধ্য দিয়ে চলেছে গোটা বিশ্ব; কিন্তু আমাদের পরিবার, স্বাস্থ্য, প্রিয়জনের প্রতি আমাদের আরও বেশি দায়িত্বশীল থাকতে হবে। তাই বাড়িতে থাকুন এবং পৃথিবীজুড়ে যেসব চিকিৎসক, স্বাস্থ্যকর্মী মানুষের সেবায় নিয়োজিত তাদের সহযোগিতা করুন।’

advertisement
Evaly
advertisement