advertisement
advertisement

গণপরিবহন বন্ধ থাকায় দূর-দূরান্ত থেকে আসতে পারছেন না ডায়রিয়ায় আক্রান্তরা
মতলব আইসিডিডিআরবি হাসপাতাল রোগীশূন্য!

মাহফুজ মল্লিক মতলব দক্ষিণ (চাঁদপুর)
১ এপ্রিল ২০২০ ০০:০০ | আপডেট: ১ এপ্রিল ২০২০ ০০:৪৫
advertisement

চাঁদপুরের মতলব আইসিডিডিআরবি হাসপাতালে (আন্তর্জাতিক উদরাময় গবেষণাকেন্দ্র) ডায়রিয়া রোগীশূন্য হয়ে পড়েছে। গণপরিবহন বন্ধ থাকায় পার্শ্ববর্তী জেলা, উপজেলা ও দূর-দূরান্ত থেকে ডায়রিয়ায় আক্রান্ত রোগী এ হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে আসতে পারছেন না। চাঁদপুর জেলা শহরের আশপাশের কিছু রোগী এলেও প্রাথমিক চিকিৎসাসেবা দিয়ে তাদের ছেড়ে দেওয়া হচ্ছে।

হাসপাতাল কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, গত বছর এ সময়ে গড়ে প্রতিদিন শতাধিক ডায়রিয়া আক্রান্ত রোগী ভর্তি হয়েছিল। এ বছরের মার্চ মাসের শেষের ৯ দিনে (২২-৩০ মার্চ পর্যন্ত) হাসপাতালে রোগী ভর্তি হয় অন্য সময়ের চেয়ে অর্ধেকেরও কম। করোনা ভাইরাস সংক্রমণের কারণে এবং গণপরিবহন বন্ধ থাকায় রোগীরা হাসপাতালে আসতে পারছেন না। গড়ে প্রতিদিন ৪৫ থেকে ৫০ জন ডায়রিয়া রোগী হাসপাতালে এসে চিকিৎসাসেবা নিয়ে বাড়ি ফিরে যাচ্ছেন। করোনা ভাইরাস সংক্রমণের ভয়ে আগত রোগী হাসপাতালে ভর্তি হতে আগ্রহী হচ্ছেন না।

হাসপাতাল কার্যালয় সূত্রে আরও জানা যায়, গতকাল ৩১ মার্চ বেলা ২টা পর্যন্ত হাসপাতাল ঘুরে দেখা যায়, ২৮ জন ডায়রিয়া আক্রান্ত রোগী চিকিৎসাসেবা নিয়েছে। এ ছাড়া হাসপাতালের দেওয়া তথ্যমতে, মার্চ মাসের ২২ তারিখে ৯৩ জন, ২৩ তারিখে ৭৫ জন, ২৪ তারিখে ৭৬ জন, ২৫ তারিখে ৭১ জন, ২৬ তারিখে ৪৭ জন, ২৭ তারিখে ৪৯ জন, ২৮ তারিখে ৫৭ জন, ২৯ তারিখে ৭৬ জন, ৩০ তারিখে ৫৪ রোগী চিকিৎসাসেবা নিয়েছে। তবে আক্রান্ত রোগীদের মধ্যে শিশুর সংখ্যা ছিল খুবই কম।

চিকিৎসাসেবা নিতে আসা চাঁদপুর সদরের হাইমচর উপজেলার মাকসুদা আক্তার বলেন, গণপরিবহন বন্ধ থাকায় হাসপাতালে আসতে অনেক কষ্ট পেতে হয়েছে। তবে হাসপাতালের চিকিৎসকরা ভালো সেবা ও পরামর্শ দেওয়ায় বাড়ি ফিরে যাচ্ছি।

হাসপাতালের জ্যেষ্ঠ চিকিৎসা কর্মকর্তা ডা. চন্দ্র শেখর দাস বলেন, এ সময়ে ডায়রিয়া রোগীর প্রকোপ থাকলেও করোনা পরিস্থিতির কারণে দূর-দূরান্ত থেকে রোগীরা হাসপাতালে আসতে পারছেন না। প্রতিদিন যেসব রোগী আসছেন, তাদের বাড়ি চাঁদপুর সদর, মতলব উত্তর ও দক্ষিণ এলাকার। আগত রোগীদের প্রাথমিক চিকিৎসাসেবা ও পরবর্তী করণীয় বিষয়ে নির্দেশনা দিয়ে ছেড়ে দিচ্ছি।

advertisement