advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

গাজীপুরে স্বামী-স্ত্রী ও মেয়ের লাশ এক ঘরে

গাজীপুর ও সদর প্রতিনিধি
১ এপ্রিল ২০২০ ০০:০০ | আপডেট: ১ এপ্রিল ২০২০ ০০:৪৫
advertisement

গাজীপুরে স্বামী-স্ত্রী ও তাদের মেয়ের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। মহানগরের পানিশাইলের সোনালী পল্লী এলাকার একটি ঘর থেকে মঙ্গলবার সকালে লাশ তিনটি উদ্ধার করা হয়। পুলিশের ধারণা, স্ত্রী ও শিশুকন্যাকে বিষ পান করিয়ে হত্যার পর নিজেও আত্মহত্যা করেছেন স্বামী।

নিহতরা হলেনÑ মোশারফ হোসেন (২৮), তার স্ত্রী হোসনে আরা (২২) ও মেয়ে মোহিনী (২ মাস)। তাদের বাড়ি রংপুরের পীরগঞ্জ থানার ফকির টরি এলাকায়।

বাড়ির কেয়ারটেকার মো. কবির হোসেন ও তার স্ত্রী রেশমা জানান, দক্ষিণ পানিশাইল এলাকায় সোনালী পল্লীতে সাদেক আলীর বাড়ির একটি ঘরে পরিবার নিয়ে ভাড়া থাকতেন মোশারফ। সোমবার রাতে ঘরের ভেতরে মোশারফ গাঁজা সেবন করছিলেন। স্ত্রী হোসনে আরা তাকে ঘরের ভেতরে গাঁজা সেবন করতে বারণ করেন। এ নিয়ে রাতে তাদের মধ্যে কলহ হয়। একপর্যায়ে রাতের খাবার খেয়ে ঘুমিয়ে পড়েন তারা। গতকাল সকাল সাড়ে আটটার দিকেও ঘরের দরজা না খোলায় প্রতিবেশীরা তাদের ডাকাডাকি শুরু করেন। দীর্ঘক্ষণ ডাকাডাকির পরও কোনো সাড়াশব্দ না পেয়ে ঘরের জানালা দিয়ে দেখেন মোশারফ ঝুলে আছেন এবং মা-মেয়ে মেঝেতে পড়ে আছে। সঙ্গে সঙ্গে কাশিমপুর থানায় খবর দেন

প্রতিবেশীরা। খবর পেয়ে পুলিশ ঘরের দরজা ভেঙে ভেতরে ঢুকে আড়ার সঙ্গে গলায় কাপড় পেঁচানো মোশারফের ঝুলন্ত লাশ এবং বিছানায় তার স্ত্রী ও মেয়ের লাশ পড়ে থাকতে দেখে।

নিহত হোসনে আরার ভাই মো. হাসান জানান, মোশারফ হোসেন রাজমিস্ত্রির জোগালি (সহকারীর) কাজ করতেন। তিনি নেশা করতেন। হাতে টাকা না থাকলে ঘরের বিভিন্ন জিনিসপত্র বিক্রি করে গাঁজা-ইয়াবা কিনে সেবন করতেন। এ নিয়ে তার বোন-দুলাভাইয়ের মধ্যে প্রায়ই ঝগড়া লাগত।

কাশিমপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আকবর আলী খান জানান, নিহতদের ঘরের ভেতরে বিষের আলামত পাওয়া গেছে। ঘরের ভেতরে বিষের দুর্গন্ধ, বমি ও বাচ্চার দুধের ফিডার-বোতল পাওয়া গেছে। মরদেহগুলো উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

কোনাবাড়ী জোনের সহকারী কমিশনার আহসানুল হক বলেন, ঘটনাস্থল থেকে বিষের বোতল উদ্ধার করা হয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে, কোনো কারণে মোশারফ হোসেন তার স্ত্রী ও শিশুকন্যাকে বিষ পান করিয়ে হত্যার পর নিজেও আত্মহত্যা করেছেন। বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।

advertisement