advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

বগুড়ায় শিশুকে ধর্ষণের পর গলা টিপে হত্যা মাদ্রাসাছাত্র গ্রেপ্তার

নিজস্ব প্রতিবেদক বগুড়া
৬ এপ্রিল ২০২০ ০০:০০ | আপডেট: ৬ এপ্রিল ২০২০ ০০:৫১
advertisement

বগুড়ায় প্রথম শ্রেণিতে পড়–য়া শিশুকে ধর্ষণের পর গলাটিপে হত্যা করেছে এক মাদ্রাসাছাত্র। শনিবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে ওই শিশুর লাশ উদ্ধারের পর অভিযান চালিয়ে ধর্ষককে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। গ্রেপ্তার আব্দুল মোমিন মালগ্রাম মিফতাউল উলুম কওমি মাদ্রাসার হেফজ বিভাগের ছাত্র।

থানা পুলিশ জানায়, বগুড়া শহরের খান্দার এলাকায় কসাইপাড়ার বাসিন্দা ফজলুর রহমানের শিশুকন্যা লুনা খাতুন (৭) ঠনঠনিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রথম শ্রেণিতে পড়ত। শনিবার বিকালে সে খান্দার বাজারে তার দাদার খাবারের দোকানে যায়। এরপর থেকে তার কোনো সন্ধান মিলছিল না। স্বজনরা বিভিন্ন স্থানে খোঁজ করেও তার সন্ধান না পেয়ে আশপাশের এলাকায় মাইকিং করে। রাত সাড়ে ৯টার দিকে খান্দার চারতলা মোড় এলাকার একটি গলির ভেতর ওই শিশুর লাশ পড়ে থাকতে দেখেন স্থানীয় বাসিন্দারা। পরে পুলিশ গিয়ে লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিক্যাল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতাল মর্গে পাঠায়।

এই ঘটনায় নিহত শিশুর বাবা ফজলুর রহমান বাদী হয়ে সদর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন। গ্রেপ্তার মোমিন একই এলাকার তপন আলীর ছেলে।

বগুড়া সদর থানার পুলিশ পরিদর্শক রেজাউল করিম জানান, মরদেহের গলায় ও কপালে আঘাতের চিহ্ন দেখে সন্দেহ হয়। এ কারণে লাশ উদ্ধারের পরপরই পুলিশ কারণ অনুসন্ধানে নামে এবং সন্দেহভাজন হিসেবে আব্দুল মোমিন নামের ওই মাদ্রাসাছাত্রকে আটক করা হয়। জিজ্ঞাসাবাদে সে ওই শিশুকে ধর্ষণের পর গলাটিপে হত্যার কথা স্বীকার করে।

advertisement