advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

ভালুকায় শ্রমিক-পুলিশ সংঘর্ষ ট্রাকচাপায় দুই শ্রমিকের মৃত্যু

জাহিদুল ইসলাম খান, ভালুকা প্রতিনিধি
৭ এপ্রিল ২০২০ ০০:০০ | আপডেট: ৭ এপ্রিল ২০২০ ০০:৩১
advertisement

ক্রাউন ওয়্যার লিমিটেড বেতন না দিয়ে ছুটির নোটিশ টাঙিয়ে দেয়। কারখানা মেইন গেট বন্ধ করে দেয়। প্রতিবাদে শ্রমিকরা সড়ক অবরোধ করলে পুলিশ তাদের সরিয়ে দিতে রবার বুলেট ও কাঁদানে গ্যাস নিক্ষেপ করে। এত দিগি¦দিক ছোটার সময় গাড়িচাপায় দুই শ্রমিক মারা যান। এ ঘটনা ঘটে গতকাল সোমবার ময়মনসিংহের ভালুকা উপজেলার মাস্টারবাড়িতে।

শ্রমিক ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, সকালে উপজেলার শিল্পাঞ্চল মাস্টারবাড়ি এলাকার ক্রাউন ওয়্যার অ্যাপারেল লিমিটেডের শ্রমিকরা কাজে যোগ দিতে যান। এ সময় শ্রমিকরা দেখতে পান তাদের বেতন না দিয়েই ছুটির নোটিশ টাঙিয়ে ফ্যাক্টরির মেইন গেট বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। প্রতিবাদে ফ্যাক্টরির শত শত শ্রমিক ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে নেমে আসেন এবং বিক্ষোভ প্রদর্শন করেন। এ সময় সড়ক অবরুদ্ধ হয়ে পড়ে। খবর পেয়ে ভালুকা মডেল থানাপুলিশ ও শিল্পপুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করে। কিন্তু শ্রমিকরা প্রতিবাদ অব্যাহত রাখলে পুলিশ শ্রমিকদের লক্ষ্য করে রবার বুলেট ও কাঁদানে গ্যাস নিক্ষেপ করে। আত্মরক্ষায় দৌড়ে পালানোর সময় ট্রাকচাপায় দুই শ্রমিক

নিহত হন। নিহতরা হলেনÑ ক্রাউন ওয়্যার অ্যাপারেল লিমিটেডের এমজিটি সেকশনের সহকারী প্রডাকশন ম্যানেজার (এপিএম) হারুন অর রশিদ (কার্ড নম্বর-০০৪১৭১) এবং অপরজনের পরিচয় পাওয়া যায়নি। এ সময় রবার বুলেটের আঘাতে জানালা ভেঙে স্থানীয় আবদুর রহিমের বাসার তিনতলার ভাড়াটিয়া আল আরাফাহ ইসলামী ব্যাংকের মাস্টারবাড়ি ব্র্যাঞ্চের ম্যানেজার মিজানুর রহমানসহ অন্তত ২০-২৫ জন আহত হয়েছেন।

ক্রাউন ওয়্যার অ্যাপারেল লিমিটেডের অ্যাডমিন ম্যানেজার সোহেল জানান, ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে ৮ এপ্রিল বেতন দেওয়ার নোটিশ টাঙিয়ে ফ্যাক্টরি বন্ধের ঘোষণা দেওয়া হয়। কিন্তু কিছু শ্রমিক মহাসড়কে গিয়ে জটলা শুরু করে। পরে পুলিশ তাদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়। তা ছাড়া ট্রাকচাপায় নিহত ব্যক্তি তাদের ফ্যাক্টরির শ্রমিক নয় বলে জানান।

ভালুকার ভরাডোবা হাইওয়ে পুলিশের ইনচার্জ উযায়ের আহমেদ আদনান জানান, ট্রাকচাপায় মারা যাওয়া দুজনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। তার মাঝে হারুন অর রশিদ নামে একজনের পরিচয় পাওয়া গেছে। তিনি মাস্টারবাড়ি এলাকার ক্রাউন ওয়্যার অ্যাপারেল লিমিটেডে একটি সেকশনের এপিএম পদে কর্মরত ছিলেন। অপরজন গাজীপুরের শালনা অবস্থিত এক ফ্যাক্টরির শ্রমিক বলে জানতে পেরেছি। এ ব্যাপারে খোঁজখবর নেওয়া হচ্ছে।

শিল্পপুলিশ ময়মনসিংহ অঞ্চল ৫-এর সহকারী পুলিশ সুপার (এসপি) নুরুন্নবী জানান, শ্রমিকদের ছত্রভঙ্গ করতে ৩৫ রাউন্ড রবার বুলেট ও ৩০ রাউন্ড কাঁদানে গ্যাস নিক্ষেপ করা হয়েছে।

শিল্পপুলিশ ময়মনসিংহ অঞ্চল ৫-এর পুলিশ সুপার (এসপি) সাহেব আলী পাঠান জানান, রবার বুলেট নিক্ষেপের কিছুক্ষণ পর ও আধাকিলোমিটার দূরে ট্রাকচাপায় দুজন নিহত হয়েছেন। নিহতদের মধ্যে একজন গাজীপুরের শালনায় অবস্থিত ফ্রেন্ড নিটিং লিমিটেডের প্রডাকশন সেকশনের লাইন ইনচার্জ মো. হারুন (কার্ড নম্বর-১০০১৪৬৬)। তা ছাড়া ঘটনাস্থলে পুলিশ মোতায়েন রয়েছে এবং বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত আছে।

এ ব্যাপারে টিএম টেক্সটাইলের জিএম মো. দুর্জয় জানান, আজকে শ্রমিকদের বেতন দিতে ফ্যাক্টরি খুলছি। কাল থেকে ১৪ তারিখ পর্যন্ত ফ্যাক্টরি বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

advertisement