advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

ম্যারাডোনার উদারতা

ক্রীড়া প্রতিবেদক
৭ এপ্রিল ২০২০ ০০:০০ | আপডেট: ৭ এপ্রিল ২০২০ ০০:৩৬
advertisement

করোনা ভাইরাসের কারণে খেলাধুলা বন্ধ। পরিস্থিতি কখন স্বাভাবিক হবে তা আগাম কেউ-ই বলতে পারবেন না। এরই মধ্যে ফুটবল ক্লাব, ফেডারেশন, বোর্ডগুলো আর্থিক ক্ষতির সম্মুখীন। আর্থিক এ ক্ষতি পুষিয়ে নিতে খেলোয়াড় ও কোচিং স্টাফদের বেতন কেটে নেওয়ার আলোচনা হচ্ছে, যা নিয়ে রীতিমতো তোলপাড় ইংল্যান্ডের ফুটবলে। অনেকের মতো বেতন কম নেবেন না। যে বেতন কেটে নেওয়ার কথা হচ্ছে, সেটি তারা সরাসরি দান করবেন করোনা মোকাবিলায় গঠিত তহবিলে। তবু বেতন কম নিয়ে ধনী মালিকদের সাহায্য করতে চান না তারা।

তবে এ ক্ষেত্রে সম্পূর্ণ ব্যতিক্রম দিয়াগো ম্যারাডোনা। এই ফুটবল কিংবদন্তি নিজ থেকেই বেতন কেটে রাখার প্রস্তাব দিয়েছেন। আর্জেন্টিনার ক্লাব জিমনেশিয়া লা প্লাটার কোচের দায়িত্ব পালন করছেন ম্যারাডোনা। করোনার কারণে উদ্ভূত সংকটময় পরিস্থিতি উত্তরণে তিনি নিজেই এ প্রস্তাব দেন।

এ খবর জানিয়েছেন ক্লাবটির প্রেসিডেন্ট গ্যাব্রিয়েল প্যালেগ্রিনো। করোনা ভাইরাসের কারণে অন্য দেশের মতো আর্জেন্টিনারও শীর্ষ লিগ স্থগিত করে দেওয়া হয়েছে, যা বড় ধরনের আর্থিক ক্ষতির মুখে ঠেলে দিয়েছে ক্লাবগুলোকে। আর এ কারণেই ক্লাবগুলোর অবস্থার সম্পর্কে আঁচ করতে পেরে বেতন কম নিতে রাজি হয়েছেন ম্যারাডোনা।

তার এজেন্টের মাধ্যমে ক্লাবকে জানিয়েছেন এ প্রস্তাব। ক্লাবের প্রেসিডেন্ট জানান, ‘তার (ম্যারাডোনা) সহকারীর কাছ থেকে আমরা কল পেয়েছিলাম। সে বলল যে, যদি বেতন কাটা বা কম দেওয়ার পরিস্থিতি আসে, তা হলে এতে রাজি আছেন তিনি (ম্যারাডোনা)। এতেই বোঝা যায় টাকার কথা না ভেবে ক্লাবকে সাহায্য করতে চাইছেন ম্যারাডোনা।’

জিমনেশিয়ার প্রধান কোচের পদে চুক্তির আর চার মাস বাকি আছে ম্যারাডোনার।

করোনা পরিস্থিতির কারণে এখন চুক্তি নবায়নেরও কোনো সুযোগ নেই। সামনের মৌসুমে ম্যারাডোনাকে ক্লাবটির ডাগআউটে দেখা যেতে পারে।

advertisement