advertisement
advertisement

একজনের নমুনা পজিটিভ ফের অবরুদ্ধ শিবচর

মাদারীপুর প্রতিনিধি
৭ এপ্রিল ২০২০ ০০:০০ | আপডেট: ৭ এপ্রিল ২০২০ ০০:৩৮
advertisement

মাদারীপুর থেকে প্রেরিত ২৩ জনরে নমুনার রিপোর্ট পেয়েছে জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ। এর মধ্যে ২২ জনের শরীরে করোনা ভাইরাসের উপস্থিতি পাওয়া যায়নি। আর একজনের করোনা পজিটিভ হয়েছে, যার তথ্য গতকাল আইইডিসিআরের প্রেসব্রিফিংয়ে জানানো হয়। এ ছাড়া শিবচর উপজেলার সঙ্গে জেলার যাতায়াতের সব পথ আজ থেকে বন্ধ করে দিয়েছে প্রশাসন।

মাদারীপুর সিভিল সার্জন কার্যালয়ের পরিসংখ্যানবিদ মীর রিয়াজ আহমেদ জানান, মাদারীপুর জেলা থেকে গত কয়েক দিনে যাদের করোনা পরীক্ষার জন্য নমুনা প্রেরণ করা হয়েছিল তাদের মধ্যে ২৩ ব্যক্তির রিপোর্ট পাওয়া গেছে। এর মধ্যে ২২ জনের শরীরের করোনা ভাইরাসের উপস্থিতি পাওয়া যায়নি। বাকি একজনের করোনা ভাইরাস পজিটিভ হয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন কোনো ব্যক্তিকে হোম কোয়ারেন্টিনে পাঠানো হয়নি। বর্তমানে মাদারীপুরে হোম কোয়ারেন্টিনে আছেন ১৮৪ জন। আইসোলেশনে আছে ৪ জন। এ ছাড়া ৫৭ জনের হোম কোয়ারেন্টিন শেষ হয়েছে।

এদিকে আজ থেকে শিবচর উপজেলার সঙ্গে জেলার যাতায়াতের সমস্ত পথ বন্ধ করে দিয়েছেন প্রশাসন। এর ফলে পুরো শিবচর উপজেলাটিকে অঘোষিতভাবে লকডাউন করা হলো। এ ছাড়া আইইডিসিআর যেসব জেলা ঝুঁকিপূর্ণ বা ক্লাস্টার ঘোষণা করেছে তার মধ্যে রয়েছে মাদারীপুর জেলা। পাশাপাশি গতকাল রবিবার থেকে কাঁঠালবাড়ী-শিমুলিয়া নৌরুটে সব ধরনের নৌযান চলাচল বন্ধ ঘোষণা করেছে ঘাট কর্তৃপক্ষ।

এদিকে গতকাল থেকে খোলাবাজারে ১০ টাকা দরে চাল বিক্রির ফলে ওএমএসের দোকানগুলোয় ছিল প্রচুর মানুষ। হোটেলের পরিত্যক্ত ফুড অফিস ভবন, কুলপদ্বি ও খাগদী এলাকার ওএমএস দোকানগুলোয় সাধারণ মানুষ চাল ও আটা কেনার জন্য ভিড় করেন। কিন্তু কেউ করোনার কোনো নির্দেশনা না মেনেই ঝুঁকিপূর্ণভাবে চাল ও আটা সংগ্রহ করছেন।

জেলা প্রশাসন ছাড়াও বিভিন্ন সংগঠন, রাজনৈতিক দল ও ব্যক্তিপর্যায়ে ত্রাণ বিতরণ করা হচ্ছে।

এসব ত্রাণ বিতরণেও অনেক ক্ষেত্রে মানা হচ্ছে না করোনার নির্দেশনা।

advertisement