advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

করোনাভাইরাস
এবার বার্সেলোনায় বাংলাদেশির মৃত্যু

লোকমান হোসেন,স্পেন
৭ এপ্রিল ২০২০ ১১:৫২ | আপডেট: ৭ এপ্রিল ২০২০ ১২:২৭
বার্সেলোনার প্রবাসী আব্দুস শহীদ
advertisement

চীনের উহান থেকে বিশ্বজুড়ে ছড়িয়ে পড়া মহামারি করোনাভাইরাসের প্রভাব পড়েছে স্পেন শাষিত রাজ্য কাতালোনিয়ার রাজধানী বার্সেলোনায়। রাজ্যটিতে করোনায় আব্দুস শহীদ (৫৭) নামে এক প্রবাসী বাংলাদেশির মৃত্যু হয়েছে। গতকাল সোমবার দুপুর ১২টায় তার মৃত্যু হয়। তিনি বসবাস করতেন বার্সেলোনার সান্তাকলমায়। 

সোমবার পর্যন্ত কাতালোনিয়ায় ২৮ হাজার ৩২৩ জন কারোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। মারা গেছেন ২ হাজার ৯০৮ জন। সুস্থ হয়েছেন ১ হাজার ৭৮৬ জন।

শহীদের পরিবারের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, তিনি হৃদরোগসহ ডায়াবেটিসে ভুগছিলেন। কাতালোনিয়ায় করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের শুরুর দিকে তার শরীরে প্রাথমিক লক্ষণ দেখা দেয়। পরে হাসপাতালে নিয়ে গেলে তাকে পর্যবেক্ষণের জন্য ভর্তি করা হয়। রক্ত পরীক্ষার পর তার দেহে কোভিড-১৯ রোগটি ধরা পড়ে।

গত ১৬ দিন যাবৎ হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন তিনি। মাতারো হাসপাতাল থেকে গতকাল ফোন করে শহীদের মৃত্যুর খবর জানানো হয় বলেও জানায় পরিবার।

শহীদের পরিবারের সদস্যরা জানান, তিনি মারা গেলেও তাদের হাসপাতালে যেতে মানা করে কর্তৃপক্ষ। যে কারণে শেষবারের জন্য তার মরদেহ পরিবার দেখতে পাচ্ছেন না তারা।

বার্সেলোনার মাতারো হাসপাতাল থেকে জানানো হয়েছে, শহীদের মরদেহ তাদের মর্গে সংরক্ষিত আছে। সরকারি নির্দেশনা মোতাবেক মরদেহের সৎকার (মুসলিম প্রথায়) করা হবে।

আব্দুস শহীদের বাড়ি সিলেটের সুনামগঞ্জের চাতকে। বার্সেলোনায় তিনি স্ত্রী, তিন মেয়ে ও দুই ছেলেকে নিয়ে বসবাস করতেন।

বার্সেলোনার একজনসহ স্পেনে এখন পর্যন্ত তিনজনের মৃত্যু হলো করোনায়। এর আগে গত রোববার জাকির হক ওরফে আনোয়ার হোসেন (৬৭) নামে আরেক বাংলাদেশির মৃত্যু হয়। স্থানীয় সময় বিকেল ৪টায় মাদ্রিদে একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

এর আগে গত ৬ মার্চ মাদ্রিদ শহরেই করোনায় প্রাণ হারান আরেক বাংলাদেশি। বাংলাদেশ দূতাবাসও তাদের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেছে।

স্পেনের বার্সেলোনা, মালাগা, ভায়াদোলিদ, আলিকান্তে, টেনারিফ, লাঞ্জারোতে, মুরসিয়া, মাদ্রিদসহ বিভিন্ন শহরে প্রায় ৩০ হাজারের অধিক বাংলাদেশি বসবাস করে।

গতকাল সোমবার স্পেনে ৬৩৭ জনের মৃত্যু হয়, যা ২৪ মার্চ থেকে প্রায় দুসপ্তাহে সবচেয়ে কম। স্পেনের জনগণ তিন সপ্তাহের বেশি সময় ধরে কঠোর বিধিনিষেধের মধ্যে রয়েছে। দেশটিতে লকডাউনের সময় বাড়ানো হয়েছে এপ্রিলের শেষ পর্যন্ত। মোট মৃতের সংখ্যা ১৩ হাজার ৩৪১, আক্রান্ত ১ লাখ ৩৬ হাজার ৬৭৫ জন। সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছে ৪০ হাজার ৪৩৭ জন।

advertisement
Evall
advertisement