advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

হলিউডের আলোচিত প্রেমের গান

করোনা রোধে ঘরে থাকা উচিত

জাহিদ ভূঁইয়া
৯ এপ্রিল ২০২০ ০০:০০ | আপডেট: ৮ এপ্রিল ২০২০ ২০:২৪
advertisement

করোনায় স্থবির গোটা বিশ্ব। বাংলাদেশেও এর প্রভাব পড়েছে ব্যাপক। প্রতিদিনই খবর আসছে আপনার আশপাশে কেউ সংক্রমিত হচ্ছেন, কেউ বা প্রাণ হারাচ্ছেন। এসব খবরে আপনার মন এমনিতেই খারাপ হয়ে যাচ্ছে। এই সময়ে মনকে প্রফুল্ল রাখা খুবই প্রয়োজন। তাই আসুন, ঘরে সময় কাটাই। আর শুনে নিই হলিউডের আলোচিত কয়েকটি প্রেমের গান। লিখেছেনÑ

জাহিদ ভূঁইয়া

ক্রেজি ফর ইউ

‘ভিসন কুইস্ত’ চলচ্চিত্রের জন্য ১৯৮৫ সালে ম্যাডোনা এ গানটিতে কণ্ঠ দেন। পরে এটি বিভিন্ন অ্যালবামেও জায়গা করে নেয়। গানটি বিলবোর্ডে শীর্ষস্থান দখল করে এবং এটির জন্যই ম্যাডোনা সর্বপ্রথম গ্র্যামি অ্যাওয়ার্ডসে মনোনয়ন পান।

মাই হার্ট উইল গো অন

কানাডিয়ান গায়িকা সেলিন ডিওনের ‘লেটস টক অ্যাবাউট লাভ’ অ্যালবামের গান এটি। ১৯৯৭ সালে জার্মানি আর অস্ট্রেলিয়ায় এবং ১৯৯৮ সালে বিশ্বব্যাপী প্রকাশ হয় গানটি। এটি লিখেছেন উইল জেনিংস, সুর করেছেন জেমস হর্নার। হলিউডের আলোচিত ছবি ‘টাইটানিক’-এর মূল গান হিসেবে এটি ব্যবহৃত হয়।

আই উইল অলওয়েজ

লাভ ইউ

সর্বকালের সেরা ১০ প্রেমের গানের তালিকায় শীর্ষে আছে হুউটনি হিউস্টনের এ গানটি। ১৯৯২ সালে ‘দ্য বডিগার্ড’ ছবির জন্য গানটিতে কণ্ঠ দেন তিনি। যদিও ১৯৭৩ সালে গানটি লিখেছিলেন ডলি পার্টন এবং তিনিই ১৯৭৪ সালে এটি প্রথম গেয়েছিলেন। তবে হুউটনির গায়কীতেই গানটি বিশ্বব্যাপী জনপ্রিয়তা পায়।

ওয়ান্ডারফুল টুনাইট

বিশ্বখ্যাত শিল্পী এরিক ক্ল্যাপটনের এ গানটি প্রকাশ হয় ১৯৭৭ সালে। এটি ‘সেøাহ্যান্ড’ অ্যালবামের গান। প্যাটি বয়েডকে নিয়ে গানটি লেখেন ক্ল্যাপটন। ২০০৭ সালে প্রকাশিত ‘ওয়ান্ডারফুল টুনাইট : জর্জ হ্যারিসন, এরিক ক্ল্যাপটন অ্যান্ড মি’ নামের আত্মজীবনীমূলক গ্রন্থে প্যাটি এ তথ্য জানান।

লাভ মি টেন্ডার

১৯৫৬ সালের ৯ সেপ্টেম্বর ‘দ্য এড সুলিভ্যান শো’তে প্রথমবার এ গানটি পরিবেশন করেন রক এন রোলের রাজা এলভিস প্রিসলি। আর তাতেই আরসিএ রেকর্ডস ১০ লাখ কপি অগ্রিম সরবরাহের অনুরোধ পান। বিপুল এই জনপ্রিয়তা দেখে টোয়েন্টিথ সেঞ্চুরি ফক্স তাদের ‘দ্য রেনো ব্রাদার্স’ ছবির নাম পাল্টে রাখে ‘লাভ মি টেন্ডার’। ভেরা ম্যাটসনকে নিয়ে এটি লিখেছিলেন প্রিসলি। তবে গানের কথা মূল ভাবনা ভেরার স্বামী কেন ডার্বির।

হেভেন

ব্রায়ান অ্যাডামসের গাওয়া এ গানটি প্রথম প্রকাশ হয় ‘এ নাইট ইন হেভেন’ অ্যালবামে এবং পরে ‘রেকলেস’ অ্যালবামে সংকলিত হয়। এটি ১৯৮৫ সালের জুনে ‘বিলবোর্ড হট হান্ড্রেড’-এ শীর্ষস্থান দখল করে। গানের মিউজিক ভিডিওটি সেরা চিত্রনাট্যের জন্যও বেশ কিছু পুরস্কার পায়।

অলওয়েজ

১৯৯৪ সালে বন জভির ‘ক্রস রোড’ অ্যালবামে গানটি মুক্তি পায়। যুক্তরাষ্ট্রে এক মিলিয়নসহ সারাবিশ্বে মোট চার মিলিয়ন কপি বিক্রি হয় এটি। মূলত ১৯৯৩ সালে ‘রোমিও ইজ ব্লিডিং’ চলচ্চিত্রের জন্য গানটি লেখা হয়েছিল।

advertisement