advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

ফরিদপুরে ফের আ.লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে আহত ২৫

ফরিদপুর প্রতিনিধি
৯ এপ্রিল ২০২০ ০০:০০ | আপডেট: ৮ এপ্রিল ২০২০ ২১:৪০
advertisement

বিশ্বব্যাপী করোনা আতঙ্কের মধ্যেও ফরিদপুরের সালথায় আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষ অব্যাহত রয়েছে। গত রবিবার রাতে ও সোমবার সকালে দফায় দফায় সংঘর্ষ হয়। এর পর আবার মঙ্গলবার রাতেও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। ওই রাতের সংঘর্ষে উভয় পক্ষের কমপক্ষে ২৫ জন আহত হয়েছেন। এ সময় ১২/১৫টি বাড়ি ভাঙচুর ও লুটপাটের পর কয়েকটি ঘরে আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয়।

গত তিন দিন ধরে পাল্টাপাল্টি এসব হামলা ও সংঘর্ষের ঘটনায় গ্রামজুড়ে উত্তেজনাকর পরিস্থিতি বিরাজ করছে। সেখানে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রেখেও পরিস্থিতি সামাল দেওয়া যাচ্ছে না।

সালথা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ আলী জিন্নাহ জানান, দফায় দফায় পাল্টাপাল্টি হামলার কারণে এলাকায় উত্তেজনাকর পরিস্থিতি বিরাজ করছে। তাই সেখানে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রাখা হয়েছে।

জানা গেছে, গ্রাম্য আধিপত্য বিস্তার নিয়ে উপজেলার মাঝারদিয়া ইউপি চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান হামিদ মোল্লা ও সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান সাহিদুজ্জামানের সমর্থকরা পাল্টাপাল্টি হামলায় জড়িয়ে পড়েন। তারা দুজনই আওয়ামী লীগের স্থানীয় নেতা। মঙ্গলবার রাতে বিগত দুই দিনের ঘটনার জের ধরে কাগদি ও বাতা গ্রামে ফের হামলা পাল্টাহামলা চলে একে অপরের সমর্থকদের বাড়িঘরে। এ সময় ১২ থেকে ১৫টি বাড়ি ভাঙচুর করা হয়। লুটপাট করা হয় বাড়ির মালামাল। কয়েকটি বাড়িতে হামলার পর গোয়ালঘর ও খড়ের পালায় আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয়। সংঘর্ষ চলাকালে আহত হয় কমপক্ষে ২৫ জন। তাদের বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

গত কয়েক মাস ধরে মাঝারদিয়া ইউনিয়নের কাগদি ও বাতাগ্রামে গ্রাম্য আধিপত্য বিস্তার নিয়ে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আফসার মাতুব্বরের সঙ্গে উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক গিয়াস মাতুব্বরের সমর্থকদের মধ্যে দফায় দফায় সংঘর্ষ ও পাল্টাপাল্টি হামলার ঘটনা ঘটছে। পাল্টাপাল্টি এসব হামলায় কাগদি বাজারের অর্ধশতাধিক দোকান ও কাগদি ও বাতাগ্রামের শতাধিক বাড়ি ভাঙচুর ও লুটপাট হয়েছে। পাল্টাপাল্টি হামলায় ৬০ জনের মতো আহত হয়েছে। এসব ঘটনায় বর্তমান চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান হামিদ ও সাবেক চেয়ারম্যান সাহিদুজ্জামানের সমর্থকরা আফসার মাতুব্বর ও গিয়াস মাতুব্বরের পক্ষ নিয়ে কাজ করছেন বলে জানা গেছে।

advertisement