advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

একবার ভালোবাসার হাতটি বাড়িয়ে দেখুন

শিমুল আহমেদ
১৬ মে ২০২০ ১৮:১৪ | আপডেট: ১৬ মে ২০২০ ২০:২৯
চিত্রনায়িকা পপি। পুরোনো ছবি
advertisement

করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে কাজ বন্ধ থাকায় প্রায় ২৫ বছর পর পুরো রমজান মাস খুলনায় নিজ পরিবারের সঙ্গে কাটাচ্ছেন জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত চিত্রনায়িকা পপি। তা ছাড়াও এবারই দীর্ঘ সময় খুলনায় অবস্থান করছেন এই শিল্পী।  

দৈনিক আমাদের সময় অনলাইনকে পপি বলেন, ‘করোনার কারণে প্রায় দুই মাসের মতো হয়েছে আমি খুলনা শহরে এসেছি। অভিনয়ের ভূবনে পা রাখার পর, এত লম্বা সময় নিয়ে কখনো আসা হয়নি। প্রায় ২৫ বছর পর পরিবারের সবার সঙ্গে পুরো রমজান মাস কাটাচ্ছি।’

তিনি আরও বলেন, ‘সবাই জানেন, আমাদের যৌথ পরিবার। খুলনা শহরে ১১ বিঘা জায়গার ওপর আমাদের পুরোনো জমিদার বাড়ি। এমন কোনো গাছগাছালি নাই, যা এই বাড়িতে নেই। আমার দাদির হাতে সব গাছ লাগানো। বাড়ির মধ্যেই তিনটা পুকুর। এমন একটি জমিদার বাড়িতে আমরা সবাই বসবাস করি। লকডাউনের এই দিনগুলো সবাই মিলে দারুণভাবে কাটাচ্ছি।’

করোনার এই সময়ে চিত্রনায়িকা পপি দাঁড়িয়েছেন তার এলাকার দুস্থ ও অসহায় মানুষের পাশে। দেশে করোনা হানা দেওয়ার পর থেকেই এই চিত্রনায়িকাকে দেখা গেছে নিম্ন আয়ের মানুষদেরকে নিত্যপ্রয়োজনীয় খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করতে।

এ বিষয়ে পপি বলেন, ‘অসহায় ও দুস্থ মানুষজনের পাশে দাঁড়িয়েছি তা বলব না। যাদের ভালোবাসায় আজ আমি এই অবস্থানে পৌঁছেছি, এই দুঃসময়ে তাদের পাশে দাঁড়ানোর সুযোগ পেয়েছি। ভালোবাসার প্রতিদান দিচ্ছি তা বলব না। ভালোবেসে তাদের পাশে দাঁড়িয়েছি। আমার ও আমার পরিবারের লোকজন মিলে যতটুকু পেরেছি, তা নিয়েই ওদের পাশে দাঁড়িয়েছি।’

তিনি আরও বলেন, ‘মানুষের পাশে দাঁড়ানোর এখনই বড় একটা সুযোগ। করোনার কারণে অনেকে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। নিম্ন আয়ের মানুষজন কিংবা দিন আনে দিন খায় তারা এখন মানবেতর জীবন-যাপন করছে। যাদের সামর্থ্য আছে তাদের অনুরোধ করব, দয়া করে ওদের পাশে এসে দাঁড়ান। অঢেল অর্থ-সম্পদের পাহাড় গড়ে লাভ কি, যদি নাই বাঁচেন! মানুষের পাশে দাঁড়ানোর আনন্দ বলে বোঝানো যাবে না। একবার ভালোবাসার হাতটি বাড়িয়ে দেখুন।’

advertisement
Evall
advertisement