advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

বিকল্প যানে বাড়ি যাচ্ছে মানুষ

মোহাম্মদ আলী শাহীন দাউদকান্দি
২৩ মে ২০২০ ০০:০০ | আপডেট: ২২ মে ২০২০ ২৩:৪০
advertisement

করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ রোধে বেশ কিছু দিন আগেই দেশব্যাপী গণপরিবহণ চলাচল বন্ধ ঘোষণা করেছে সরকার। তবে প্রতিবারের মতো ঢল না নামলেও ঈদের ছুটিতে মানুষের বাড়ি ফেরা বন্ধ নেই। বাস বন্ধ থাকলেও বিকল্প যানবাহনে গ্রামে ছুটছে মানুষ। প্রাইভেটকার, রেন্ট-এ কার, মাইক্রোবাস, এমনকি পণ্যবাহী ট্রাক ও অ্যাম্বুলেন্সসহ জরুরি পরিবহনেও যানবাহনে চেপে বাড়ি যাচ্ছেন তারা। তবে মাত্রাতিরিক্ত পরিবহন ও যাত্রী ঠেকাতে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের দাউদকান্দি অংশে কঠোর অবস্থানে রয়েছে পুলিশ। বসানো হয়েছে চেক পোস্ট।

মহাসড়কে রাজধানী ঢাকা থেকে পূর্বাঞ্চলমুখী যাত্রী পরিবহন গাড়িগুলোকে দাউদকান্দি-মেঘনা-গোমতী সেতুর পশ্চিম প্রান্ত, মুন্সীগঞ্জের গজারিয়া থেকে ও চট্টগ্রাম বিভাগীয় অঞ্চলের বিভিন্ন জেলার ঢাকামুখী যাত্রী পরিবহনের গাড়িগুলোকে দাউদকান্দি টোল প্লাজা থেকে উল্টো দিকে ঘুরিয়ে দিচ্ছে পুলিশ। সাধারণ জনগণকে ঢাকায় প্রবেশ ও ঢাকা ত্যাগের নিষেধাজ্ঞা পালনে দাউদকান্দি হাইওয়ে থানার পুলিশ সদস্যরাও জীবনের ঝুঁকি নিয়ে কাজ করে যাচ্ছেন।

সরেজমিন ঘুরে দেখা যায়, যাত্রীবাহী যানচলাচল বন্ধ হলেও মানুষ নির্দিষ্ট গন্তব্যে পৌঁছাতে পণ্যবাহী গাড়িতে যাতায়াত শুরু করে। তাই সরকারি দায়িত্ব পালনে গত মঙ্গলবার গভীর রাত থেকে দাউদকান্দি টোলপ্লাজায় ও বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থানে হাইওয়ে পুলিশ ও দাউদকান্দি মডেল থানা পুলিশ কঠোর অবস্থানে রয়েছে। এ সময় হাইওয়ে পুলিশ সদস্যরা যাত্রী পরিবহন বন্ধসহ পণ্যবাহী যান চলাচল স্বাভাবিক রাখতে এবং পণ্যবাহী যানবাহনে যাত্রী পরিবহনে কঠোর অবস্থান গ্রহণ করেছে।

মহাসড়কে দায়িত্ব পালনরত দাউদকান্দি হাইওয়ে পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সরকার আব্দুল্লাহ আল মামুন জানান, করোনার সংক্রমণ প্রতিরোধে মহাসড়কে যাত্রী পরিবহন ঠেকাতে বিভিন্ন পয়েন্টে কঠোর অবস্থানে পুলিশ সদস্যরা দায়িত্ব পালন করছে। দেশের যে কোনো দুর্যোগ মোকাবিলায় অন্যান্য সংস্থার মতো পুলিশ সদস্যরাও নিয়োজিত থাকবে।

advertisement