advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

সুয়ারেজের প্রশংসায় চিয়েলিনি

ক্রীড়া ডেস্ক
২৩ মে ২০২০ ০০:০০ | আপডেট: ২২ মে ২০২০ ২৩:৪০
advertisement

২০১৪ বিশ্বকাপের কথা উঠলে সুয়ারেজের কামড় আলোচনায় আসবেই। ৬ বছর পেরিয়ে গেছে সে ঘটনার তবুও এখনো সবার মনেই সেই স্মৃতি তরতাজা। ফুটবল মাঠে এমন কামড়কা- ঘটিয়েছেন অনেকেই। তবে বিশ^কাপের মঞ্চে এমন ঘটনা সুয়ারেজই ঘটিয়েছেন। ইতালির ডিফেন্ডার জর্জিও চিয়েলিনিকে সুযোগ পেয়ে কামড়ে দিয়েছিলেন তিনি। রেফারির চোখ এড়িয়ে যাওয়ায় ম্যাচে ঠিকই দলকে জয় এনে দিয়ে মাঠ ছেড়েছিলেন। কিন্তু এ ঘটনায় নিন্দার ঝড় ওঠে দুনিয়াজুড়ে। চার মাসের জন্য নিষিদ্ধ হন উরুগুয়ের স্ট্রাইকার। দর্শকদের মনে এ ঘটনা দাগ কাটলেও যার সঙ্গে এ ঘটনা ঘটেছে সেই চিয়েলিনির কাছেই বাড়তি কোনো গুরুত্ব নেই। চিয়েলিনির কাছে মনে হয়েছে, ওই কামড় খেলারই অংশ। আত্মজীবনী ‘ইন জর্জিও’তে লিখেছেন, ‘সত্যি কথা হলো, আমি ওর এসব কা- শ্রদ্ধা করি। কারণ ও যদি এসব না করে তা হলে সাধারণ খেলোয়াড় হয়ে যাবে। ২০১৪ বিশ্বকাপে বিস্ময়কর কিছুই হয়নি। আমি অধিকাংশ সময় এডিনসন কাভানিকে পাহারা দিয়েছি, আরেকজন কঠিন লোক। এবং সবাই নিজের সর্বোচ্চ দিয়েছি। হঠাৎ খেয়াল হলো আমার কাঁধে কেউ কামড় দিয়েছে। এটি হয়েছে, এটুকুই। শারীরিক দ্বন্দ্বে নামার সময় এটিই ওর রণকৌশলের অংশ, আমিও এমনটাই মনে করি।’ লড়াকু মনোভাব আর প্রতিপক্ষকে একবিন্দু ছাড় দিতে না চাওয়ার জন্য নোংরা লড়াইয়ে নামতে দ্বিধা করেন না সুয়ারেজ। এ কারণেই বার্সেলোনা ফরোয়ার্ডকে সম্মান করেন কিয়েলিনি, ‘সুয়ারেজ আর আমি একই ধরনের। আমি এমন স্ট্রাইকারের মুখোমুখি হতে পছন্দ করি। ওই ম্যাচের কদিন পর আমি ওকে ফোন করেছিলাম। আমার কাছে ক্ষমা চাওয়ার কোনো দরকার ছিল না ওর। মাঠে আমিও ওর মতোই শয়তান এবং এ নিয়ে গর্ব করি। এমন দুষ্টুমি আর বদমায়েশি খেলারই অংশ, আমি একে প্রতারণা বলব না। প্রতিপক্ষকে ঘায়েল করতে হলে বুদ্ধিমান হতেই হবে আপনাকে।’

advertisement