advertisement
advertisement

পবিত্র ঈদুল ফিতর
সব ছাপিয়ে আনন্দটাই থাকুক

২৩ মে ২০২০ ০০:০০
আপডেট: ২২ মে ২০২০ ২৩:৪২
advertisement

দীর্ঘ এক মাসের সংযম সাধনা শেষে পবিত্র ঈদুল ফিতর সমাগত। মুসলমানদের জীবনে পবিত্র রমজান মাস আসে আত্মিক পরিশুদ্ধির সুযোগ নিয়ে। দীর্ঘ এক মাস ধরে সারাদিন পানাহার থেকে বিরত থেকে যে সংযমের অনুশীলন চলে, তা শুধু ইন্দ্রিয়ের কৃচ্ছ্রসাধনার মধ্যেই সীমাবদ্ধ নয়। মানসিক ও আত্মিক সংযমও এর সঙ্গে জড়িত।

মূলত নৈতিক, আত্মিক ও সামাজিক পরিশুদ্ধির সীমানা পেরিয়ে সামষ্টিক কল্যাণ নিয়ে ঈদ আসে। যা কিছু মন্দ ও অশুভ, তা বর্জন করা এবং যা কিছু শুভ ও কল্যাণকর, তা অর্জন করাই রমজানের সিয়াম সাধনার লক্ষ্য। এর মাধ্যমেই মহান আল্লাহতায়ালার সন্তুষ্টি ও অনুগ্রহ লাভ করা যায়; এভাবেই অন্যায়, অবিচার, প্রতারণা, হিংসা, ঘৃণা, বিদ্বেষ দূর করে শান্তিময় জীবন ও সমাজ গড়ার প্রয়াস নেওয়া যায়। রমজান মাস শেষ হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে সংযম সাধনা ও পরিশুদ্ধির প্রয়োজনীয়তা শেষ হয়ে যায় না। এই এক মাসের অনুশীলন বছরের অবশিষ্ট সময়ও আমাদের পরিশুদ্ধির প্রয়াসে সহায়ক হতে পারে, যদি আমরা সিয়ামের মর্মবাণীর কথা ভুলে না যাই।

এবারের ঈদ এসেছে ভিন্ন প্রেক্ষাপটে। এমনিতেই করোনা ভাইরাসজনিত প্রাণঘাতী মহামারীর দাপটে বিপর্যস্ত মানুষ। এরই মধ্যে নতুন বিপদ ঘূর্ণিঝড় আম্পান! ঝড়ের আঘাতে শতাধিক গ্রাম তলিয়ে হাজার হাজার পরিবার পানিবন্দি। অঞ্চলজুড়ে বিদ্যুৎ, টেলিফোন ও ইন্টারনেট সেবা বিচ্ছিন্ন। এবারের ঈদ বাংলাদেশের মানুষের জন্য নতুন অভিজ্ঞতা। এমন পরিবেশে আমরা সবাইকে আহ্বান জানাই স্বাস্থ্যবিধি মেনে ঈদের উৎসব পালন করতে। আমাদের মনে রাখতে হবেÑ ঈদের শিক্ষা হলো সাম্য, ভ্রাতৃত্ব ও একাত্মবোধের মাধ্যমে আনন্দ উপভোগ এবং পারস্পরিক সাহায্য-সহযোগিতার সম্প্রসারণ। আমরা আশা করব, দেশের এমন দুর্যোগে সমাজের বিত্তবানরা এগিয়ে আসবেন। ঈদ আমাদের সামষ্টিক জীবনে যে মিলন ও শুভবোধের চর্চার দৃষ্টান্ত স্থাপন করে, তা সঞ্চারিত হোক সবার প্রতিদিনের জীবনযাপনে। এ সংকট কেটে যাক। সব ছাপিয়ে আনন্দটাই থাকুক। মঙ্গলময় হোক ভবিষ্যৎ। ঈদ মোবারক। আমাদের প্রিয় পাঠক, লেখক, বিজ্ঞাপনদাতা, এজেন্ট ও শুভানুধ্যায়ীদের জানাই ঈদের শুভেচ্ছা।

advertisement