advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

মাঠে অনুপস্থিত দিনাজপুর আ.লীগের অনেক নেতা

রতন সিং দিনাজপুর
২৩ মে ২০২০ ০০:০০ | আপডেট: ২২ মে ২০২০ ২৩:৪৩
advertisement

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশ দেওয়ার পরও করোনা ভাইরাসকালে অসহায় ও দুস্থ মানুষের পাশে নেই দিনাজপুর জেলা আওয়ামী লীগের হেভিওয়েট নেতারা। দলটির অনেক নেতা মাঠে থাকলেও এ মহাদুর্যোগের সময় প্রভাবশালীদের মাঠে না পাওয়ায় বিব্রতকর অবস্থায় আছেন জেলা আওয়ামী লীগের নেতারা। তৃণমূল নেতাদের অভিযোগ, প্রভাবশালী নেতাদের শুধু সরকারি অনুষ্ঠানেই দেখা যায়, কিন্তু বিপদে মানুষের পাশে নেই তারা।

জেলা আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ ও ছাত্রলীগের একাধিক নেতা এবং ১৪ দলের সদস্য সচিব ও জেলা জাসদের সাধারণ সম্পাদক সহিদুল ইসলামের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, করোনা ভাইরাস পরিস্থিতিতে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক, স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন এবং ব্যক্তিগত উদ্যোগে অনেকেই জেলায় অসহায় কর্মহীন মানুষের মাঝে ত্রাণ বিতরণ অব্যাহত রেখেছেন। জেলা আওয়ামী লীগও ত্রাণ পরিচালনা কমিটি গঠন করেছে। এই কমিটির সঙ্গে সম্পৃক্ত জেলা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক কমিটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আলতাফুজ্জামান মিতা, সদস্য সচিব ফারুকুজ্জামান মাইকেল, সদস্য বজলুল হক, সাংগাঠনিক রফিকুল ইসলাম শাহ, শিক্ষাবিষয়ক সম্পাদক কামরুল হুদা হেলাল, স্বাস্থ্যবিষয়ক সম্পাদক ডা. আবদুল করিম, রনজিৎ কুমার শাহা এবং তৈয়ব উদ্দিন চৌধুরী প্রমুখ। তারা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে গরিব-দুঃখীদের পাশে দাঁড়িয়েছেন। কিন্তু জেলা আওয়ামী লীগের অনেক প্রভাশালী নেতাকে মাঠে পাওয়া যাচ্ছে না। তাদের মধ্যে রয়েছে জেলা জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি ফরিদুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক আজিজুল ইমাম চৌধুরী, সাংগাঠনিক সম্পাদক হাসান ইমাম নয়ন প্রমুখকে।

এদিকে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে দেড় মাস ধরে মাঠে অবস্থান করছেন দিনাজপুর-১ আসনের এমপি মনোরঞ্জনশীল গোপাল ও দিনাজপুর-৬ আসনের এমপি শিবলী সাদিক। তারা নির্বাচনী এলাকার বাড়ি বাড়ি গিয়ে ত্রাণ পৌঁছে দিচ্ছেন। দিনাজপুর-২ আসনের সংসদ সদস্য নৌপরিবহনমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী এবং দিনাজপুর সদর আসনের সংসদ সদস্য হুইপ ইকবালুর রহিম সরকারি দায়িত্ব পালনের পাশাপাশি এলাকার মানুষের মাঝে ত্রাণ বিতরণ অব্যাহত রেখেছেন।

দিনাজপুর-৪ আসনের সংসদ সদস্য সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী এএইচএম মাহমুদ আলীকেও তার নির্বাচনী এলাকায় এখন পর্যন্ত দেখা যায়নি। তবে দিনাজপুর-৫ আসনের এমপি সাবেক মন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমান ফিজার এলাকায় থেকে তার লোকদের দিয়ে বিভিন্ন স্থানে ত্রাণ বিতরণ অব্যাহত রেখেছেন।

এ ব্যাপারে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আজিজুল ইমাম চৌধুরী বলেন, আমি জেলা ত্রাণ কমিটি করে দিয়েছি। তাদের মাধ্যমে ত্রাণ বিতরণ অব্যাহত রয়েছে। আমার উপস্থিতির প্রয়োজন নেই।

সহসভাপতি ফরিদুল ইসলাম জানান, আমি ব্যক্তগতভাবে ত্রাণ দিচ্ছি। এ কারণে সময় দিতে পারছি না। সাংগাঠনিক সম্পাদক হাসান ইমাম নয়ন জানান, জেলা ত্রাণ কমিটিতে যারা আছেন, তারাই বলতে পারবেন আমি কেন উপস্থিত থাকছি না। আতাউর রহমান বাবলুর পারিপারিক সূত্রে জানা গেছে তিনি অসুস্থ।

সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী এএইচএম মাহমুদ আলীর সঙ্গে ফোনে যোগাযোগ করতে গেলে তার ব্যক্তিগত সহকারী সালাউদ্দিন আহমেদ জানান, তিনি হোম কোয়ারেন্টিনে আছেন। এ মুহূর্তে কথা বলবেন না।

advertisement