advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

আমার মাথা কেটে নিন : মমতা

অনলাইন ডেস্ক
২৪ মে ২০২০ ১৫:৫৬ | আপডেট: ২৪ মে ২০২০ ১৯:২৩
মমতা বন্দোপাধ্যায়। পুরোনো ছবি
advertisement

ঘূর্ণিঝড় আম্পানের পর বিদ্যুৎ সংযোগ ও অন্যান্য আবশ্যকীয় পরিষেবা নিয়ে চলমান অসন্তোষে বেশ চটেছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়।

গতকাল শনিবার কলকাতা ও বিভিন্ন রাস্তায় বিক্ষোভ দেখিয়েছেন বহু মানুষ। তাদের অভিযোগ, বিদ্যুৎ সংযোগ ফেরাতে ও পরিস্থিতি স্বাভাবিক করার ক্ষেত্রের সরকার খুব ধীরে এগোচ্ছে।

বিরোধীদের একটি অংশ সাধারণ মানুষদের উসকানি দেওয়ায় তারা বিক্ষোভ করছেন বলে অভিযোগ করেছেন মমতা। এই উসকানি বন্ধ করতে বিরোধীদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।

গতকাল রাজ্য সচিবালয় নবান্নে মমতা বলেন, ‘আমি এটুকুই বলতে পারি, আমার মাথাটা কেটে নিন।’

সংবাদ সম্মেলনে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ‘ওই বিপর্যয়ের পরে দুই দিন কেটেছে। আমরা দিন-রাত কাজ করে চলেছি। দয়া করে ধৈর্য ধরুন। আমরা চেষ্টা করছি যত দ্রুত সম্ভব সব কিছু আবার স্বাভাবিক করতে।’

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভির প্রতিবেদনে বলা হয়, ঘূর্ণিঝড়ে বিধ্বস্ত পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন জেলায় বিদ্যুৎ সংযোগ ও অন্যান্য আবশ্যকীয় পরিষেবা শুরু হতে আরও সময় লাগবে। তবে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করতে সেনাবাহিনীর সাহায্য নেওয়া হচ্ছে বলে রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে। 

কলকাতার মেয়র ফিরহাদ হাকিম বলেন, ‘রাস্তার জমা জল পাম্পের সাহায্যে বের করতে, পড়ে থাকা গাছ সরাতে এবং জল সরবরাহ স্বাভাবিক করতে পাঁচ-ছয় দিন সময় লেগে যাবে।’

আগামীকাল সোমবার থেকে আন্তঃরাজ্য বিমান পরিষেবা শুরু হওয়ার কথা থাকলেও কলকাতার দমদম বিমানবন্দর জলে ভাসছে। কর্তৃপক্ষ চেষ্টা করছেন যত দ্রুত সম্ভব পরিস্থিতি স্বাভাবিক করতে, যাতে পরিষেবা শুরু করা যায়।

প্রসঙ্গত, গত বুধবার ঘূর্ণিঝড় আম্পানের তাণ্ডবে রাজ্যে পরিকাঠামো ও শস্যের মোট ক্ষতি হয়েছে ১ লাখ কোটি টাকা।

advertisement