advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

‘ট্রাম্পকে বিশ্বাস করেছিলাম, কিন্তু তা ভুল ছিল’

অনলাইন ডেস্ক
২৬ মে ২০২০ ১৫:৪২ | আপডেট: ২৬ মে ২০২০ ১৮:৪৫
মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। পুরোনো ছবি
advertisement

মহামারি করোনাভাইরাস থেকে বাঁচতে নিয়মিত হাইড্রোক্লোরোক্সিকুইন খাচ্ছেন বলে জানিয়েছিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। আর তার এই কথায় বিশ্বাসও করেছিলেন উইসকনসিন অঙ্গরাজ্যের এক নারী। অসুস্থতার জন্য প্রায় ১৯ বছর ধরে হাইড্রোক্লোরোক্সিকুইন খাচ্ছিলেন তিনি। কিন্তু তারপরও তিনি করোনায় আক্রান্ত হন।

এ কারণেই প্রেসিডেন্টের ওপর ক্ষেপে যান কিম নামের ওই নারী। তিনি বলেন, ‘ট্রাম্পকে বিশ্বাস করেছিলাম, কিন্তু তা ভুল ছিল।’

এবিসি নিউজের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, কিম তার লিউপাস রোগের চিকিৎসার জন্য প্রায় ১৯ বছর ধরে হাইড্রোক্লোরোক্সিকুইন খাচ্ছেন। তারপরও তিনি করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। ওষুধটি লিউপাস, রিউম্যাটয়েড আর্থ্রাইটিস ও ম্যালেরিয়ার চিকিৎসার জন্য অনুমোদিত হলেও কোভিড-১৯-এর চিকিৎসা বা প্রতিরোধ করার জন্য অনুমোদিত হয়নি।

কিম জানান, তিনি যখন কোভিড-১৯ হওয়ার পজিটিভ রিপোর্ট পান, তখন খুব হতাশ হয়ে পড়েন। তিনি বুঝতে পারছিলেন না হাইড্রোক্লোরোক্সিকুইন খাওয়ার পরও কীভাবে সংক্রমিত হলেন। অথচ কয়েক দিন আগেই প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প বলেছিলেন, তিনি করোনা থেকে বাঁচতে ওষুধটি নিয়মিত খাচ্ছেন।

করোনা পরীক্ষকেরা বিষয়টি জেনে কিমকে বলেছেন, হাইড্রোক্লোরোক্সিকুইন কোভিড-১৯ থেকে নিরাময় বা এটি কাউকে সুরক্ষিত রাখবে, এমন নজির নেই। এটা খেলেও যে কেউ কোভিড-১৯-এ সংক্রমিত হতে পারে। এ কথা শুনেই ট্রাম্পের ওপর চরম বিরক্ত হন কিম।

উইসকনসিন অঙ্গরাজ্যের এই নারী বলেন, তিনি বিশ্বাস করেছিলেন যে করোনাভাইরাসে তিনি সংক্রমিত হবেন না। কারণ, প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প ওষুধটি কোভিড-১৯-এর কার্যকর প্রতিষেধক হিসেবে উল্লেখ করেছিলেন।

শুধু বাজারের জন্য গ্রোসারি দোকানে যেতেন জানিয়ে কিম আরও বলেন, এপ্রিলের মাঝামাঝি কাশি, জ্বর ও শ্বাসকষ্টের লক্ষণ টের পান তিনি। পরে চিকিৎসকের পরামর্শে বাড়িতে থেকে কোনো উন্নতি না হওয়ায় তিনি জরুরি কেয়ারে যান। সেখানে দেখা গেছে, তার অক্সিজেন স্যাচুরেশনের স্তরটি বিপজ্জনকভাবে কমে গেছে। এরপর হাসপাতালে ভর্তি হন তিনি।

এক সপ্তাহ পর অবস্থার উন্নতি হওয়ায় তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়। তবে এখনো বাড়িতে অক্সিজেনের প্রয়োজন হয় বলেও জানান এই নারী।

ভয়ংকর এই অভিজ্ঞতা থেকে কিম ভাইরাস প্রতিরোধের উপায় হিসেবে হাইড্রোক্লোরোক্সিকুইনকে সারা বিশ্বে প্রচার করার জন্য প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের প্রতি ক্ষুব্ধ হয়ে পড়েছেন বলে প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

এদিকে, কোভিড-১৯ প্রতিরোধের জন্য হাইড্রোক্লোরোক্সিকুইন নিরাপদ বা কার্যকর কি না, তা এখনো প্রমাণিত হয়নি। ওষুধটি কোভিড-১৯ রোগীদের মৃত্যুর হার আরও বাড়িয়ে তুলতে পারে বলে জানিয়েছেন চিকিৎসা বিশেষজ্ঞরা।

advertisement