advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

পীরগঞ্জে ঝড়ে উপড়ে পড়েছে শত শত শাল গাছ, কেটে নিয়ে যাচ্ছে এলাকাবাসী!

পীরগঞ্জ প্রতিনিধি
২৬ মে ২০২০ ২৩:১৭ | আপডেট: ২৬ মে ২০২০ ২৩:১৭
ঝড়ে উপড়ে পড়া শাল গাছ। ছবি : আমাদের সময়
advertisement

কালবৈশাখীর ঝড়ো বাতাসে লণ্ডভণ্ড হয়ে গেছে ঠাকুরগাঁওয়ের পীরগঞ্জ উপজেলার ৫০০ একর আয়তনের থুমনিয়া শালবন। প্রবল বাতাসে উপড়ে ও ভেঙে পড়েছে শত শত শাল গাছ।

প্রয়োজনীয় লোকবল না থাকায় পড়ে যাওয়া গাছ, ডাল-পালা কেটে নিয়ে যাচ্ছে এলাকার লোকজন। তবে বন বিভাগ বলছেন, ঝড়ে পড়ে যাওয়া শালগাছ গণনা করাসহ সেগুলো রক্ষায় সাধ্যমতো চেষ্টা করা হচ্ছে।

এদিকে আজ মঙ্গলবার দুপুরে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ক্ষতিগ্রস্ত শালবন পরিদর্শন করে এ বিষয়ে প্রয়োজনী ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য নির্দেশনা দিয়েছেন।

থুমনিয়া বনবিট কর্মকর্তা আশেক আলী দৈনিক আমাদের সময়কে জানান, গত রোববার দিবাগত রাতে ঝড় এবং বাতাসে লণ্ডভণ্ড হয়ে যায় বিশাল প্রাকৃতিক এই শালবনটি। বাতাস এত প্রবল ছিল যে, কয়েক মিনিটেই বানের শত শত গাছ ভেঙে যায় এবং উপড়ে পড়ে। এর মধ্যে একটি বিশাল শালগাছ তাদের প্রহরীর ঘরের উপর পড়ে। এতে দুমড়ে মুচরে যায় আধাপাকা ঘড়টি।

আশেক আলী আরও জানান, গতকাল সোমবার ঈদের দিন সকালে যেতে হয় বাগানে। সেখানে গিয়ে দেখা যায়, বড় বড় গাছগুলির উপড়ে পড়ে আছে। ভেঙেও গেছে অসংখ্য গাছ। বিষয়টি ঊর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে।

শালবনের পাশের বাসিন্দা কাচেনন্দ্র নাথ ঋষি জানান, শালবনটি দেখে মনে হয় যেন বিরান ভূমি। শালবনে এরকম গাছ উপড়ে ও ভেঙে পড়ার ঘটনা আগে কখনো ঘটেনি। এতে বাগানটির সৌন্দর্যই নষ্ট হয়ে গেছে।

সরেজমিনে দেখা যায়, দেখভাল করার মতো তেমন লোক না থাকায় ঝড়ে পড়ে যাওয়া গাছসহ এর ডাল-পালা কেটে নিয়ে যাচ্ছে এলাকার লোকজন।

এ বিষয়ে বনবিট কর্মকর্তা আশেক আলী জানান, এত বড় শালবনে তারা মাত্র তিনজন আছেন। স্থানীয় চৌকিদারের সহায়তা নিয়ে তারা গাছ ও ডালপালা চুরি ঠেকাতে সাধ্যমতো চেষ্টা করে যাচ্ছেন। পড়ে যাওয়া গাছের সংখ্যা গণনার কাজ চলছে। দুই-এক দিনের মধ্যে এর সঠিক সংখ্যা জানা যাবে।

ইউএনও রেজাউল করিম জানান, ক্ষতিগ্রস্ত শালবন পরিদর্শন করে ক্ষয়ক্ষতি নিরুপণ করাসহ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

advertisement