advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

ডব্লিউএইচওর সতর্কতা
সংক্রমণের দ্বিতীয় ঝড় আসছে

আমাদের সময় ডেস্ক
২৯ মে ২০২০ ০০:০০ | আপডেট: ২৯ মে ২০২০ ১৪:৪৩
ছবি : সংগৃহীত
advertisement

অর্থনীতি ও মানুষের জীবিকার কথা চিন্তা করে দেশে দেশে যখন লকডাউন উঠে যাচ্ছে বা শিথিল হচ্ছে, তখন করোনা সংক্রমণের দ্বিতীয় ঝড় আসছে বলে বিশ্ববাসীকে সতর্ক করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)।

গত মঙ্গলবার জেনেভা থেকে এক ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে ডব্লিউএইচওর এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর মাইক রায়ান বলেন, ‘আমরা এখন সবে সংক্রমণের প্রথম ধাপের মাঝামাঝি পর্যায়ে আছি। দ্বিতীয় ঝড় অচিরেই আসছে। এখন প্রথম ঝড়ের দাপট সামলানোটাই চ্যালেঞ্জের।’ রায়ান এমন এক সময় এই হুশিয়ারি দিলেন যখন বিভিন্ন দেশে লকডাউন শিথিলের পর আক্রান্তের সংখ্যা ফের হু হু করে বাড়ছে বলে জানাচ্ছে পরিসংখ্যান।

ডা. রায়ান বলেন, মহামারী প্রায় ক্ষেত্রেই দফায় দফায় আসে। এখন আমরা দ্বিতীয় দফা সংক্রমণের যে কথা বলছি, এর মানে হলো আগে এক দফা আক্রান্ত হয়েছে এমন কোনো দেশে আবারও রোগের প্রাদুর্ভাব ঘটবে। যে কোনো সময় এই রোগ বৃদ্ধি পেতে পারে বলে আমাদের সতর্ক থাকা উচিত। এ ছাড়া করোনার প্রথম ধাক্কা রোধে যেসব পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে তা খুব শিগগিরই তুলে নিলে বাড়তে পারে আক্রান্তের সংখ্যা।

এদিকে করোনা আক্রান্তদের চিকিৎসায় মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের আখ্যায়িত ‘গেমচেঞ্জার’ ওষুধ হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইনের ব্যবহার নিষিদ্ধ করেছে ডব্লিউএইচও ও ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন (ইইউ)। গত সোমবার এক বিবৃতিতে ডব্লিউএইচও জানায়, করোনা রোগীদের ওপর ম্যালেরিয়ার ওই প্রতিষেধক পরীক্ষার বিষয়টি স্থগিত করা হচ্ছে। কারণ দেখা গেছে, যেসব রোগীর ওপর হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইন ব্যবহার করা হয়েছে তাদের মৃত্যুর হার বেশি। ডব্লিউএইচওর প্রধান ডা. টেড্রোস অ্যাডহানম গ্যাব্রিয়েসুস জানান, যারা হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইন খাচ্ছেন তাদের জীবনের ঝুঁকি বেশি এবং হৃদযন্ত্রে সমস্যা তৈরি হওয়ার শঙ্কাও রয়েছে। এ নিয়ে চিকিৎসা বিজ্ঞান সংক্রান্ত পত্রিকা ‘ল্যানসেট’ ম্যাগাজিনে একটি গবেষণাপত্রও প্রকাশিত হয়েছে। তবে করোনা রোগীদের ওপর আরেক সম্ভাবনাময় ওষুধ ‘রেমডেসিভিরের’ পরীক্ষা চলবে বলে জানান তিনি।

ডব্লিউএইচওর এই ঘোষণার পর হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইনের ব্যবহার নিষিদ্ধ করেছে ইইউ। গত বুধবার ফ্রান্স, ইতালি ও বেলজিয়াম করোনা ভাইরাস চিকিৎসায় ওষুধটির ব্যবহার নিষিদ্ধ করে। একই দিন ওষুধটির আলাদা একটি পরীক্ষা বাতিল করে যুক্তরাজ্যও। সাম্প্রতিক কিছু গবেষণায়ও ওষুধটি করোনা রোগীদের হৃদযন্ত্রের গুরুতর সমস্যাসহ নানা পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া তৈরি করতে পারে বলে প্রমাণ হয়।

স্বাস্থ্যসেবার উন্নয়নে ডব্লিউএইচওর নতুন ফাউন্ডেশন গঠন

বিশ্বে উন্নত স্বাস্থ্যসেবায় অর্থায়নের লক্ষ্যে বেসরকারি অনুদাননির্ভর একটি নতুন ফাউন্ডেশন প্রতিষ্ঠা করেছে ডব্লিউএইচও। কোভিড-১৯ মহামারী মোকাবিলায় যথাযথ ভূমিকা পালন না করার অভিযোগে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের এই বিশ্ব সংস্থাটির লাগাম টেনে ধরার হুশিয়ারির প্রেক্ষাপটে এ উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

advertisement