advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

ব্যবসায়ীকে হত্যার জেরে ২০টি ঘরে আগুন

মাদারীপুর প্রতিনিধি
২৯ মে ২০২০ ১৮:৫০ | আপডেট: ২৯ মে ২০২০ ২০:১১
ব্যবসায়ী হত্যার ঘটনায় প্রতিপক্ষের বাড়িতে আগুন দেওয়া হয়
advertisement

মাদারীপুর সদর উপজেলার ঝাউদি ইউনিয়নের হাজির হাওলা গ্রামে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে ব্যবসায়ী নুর আলম হাওলাদারকে (৩২) কুপিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। পরে গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে নুর আলমের গ্রামের লোকজন ২০টি ঘর আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দিয়েছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ফাঁকা গুলি চালিয়েছে পুলিশ।

জানা গেছে, গতকাল রাত দেড়টার দিকে ব্যবসায়ী নুর আলম হাওলাদার ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মারা যান। তিনি হাওলাদার মটরস নামের একটি প্রতিষ্ঠানের স্বত্ত্বাধিকারী ছিলেন। তার বাবার নাম আলাউদ্দিন হাওলাদার। আগুনে পুড়ে যাওয়ায় ওই ঘরগুলোর মালিক হাওলা গ্রামের আকতার বেপারী নামের এক ব্যক্তির পক্ষের লোকজনের। ঘটনার পর থেকে হাওলা গ্রামে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

পুলিশ, পারিবারিক ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, দীর্ঘদিন ধরে হাজির হাওলা গ্রামে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে আকতার বেপারী, কালাম দারোগা গ্রুপের সঙ্গে মাদারীপুর জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সাধারণ সম্পাদক মো. ইলিয়াস আহম্মেদ হাওলাদার ও জাকির হাওলাদার গ্রুপের মধ্যে বিরোধ চলে আসছিল। এ বিরোধের জের ধরে বুধবার দুই গ্রুপের লোকজনের মধ্যে তর্কবিতর্ক হয়। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ওই ঘটনা নিয়ে সালিস হওয়ার কথা ছিল। সালিসের আগেই আকতার বেপারী ও কালাম দারোগার লোকজন বেলা ৩টার দিকে ইলিয়াস গ্রুপের সমর্থক ব্যবসায়ী নুর আলম হাওলাদারকে শহরের পাবলিক লাইব্রেরির সামনে তার দোকানে গিয়ে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে মারাত্মক জখম করে।

পরে দোকানের আশপাশের লোকজন তাকে উদ্ধার করে মাদারীপুর সদর হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে নুর আলমকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে রাত দেড়টার দিকে তিনি মারা যান। এ খবর এলাকায় পৌঁছালে নুর আলমের লোকজন রাতেই আকতার বেপারীর লোকজনের প্রায় ২০টি ঘর আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দেয়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ আনতে পুলিশ বেশ কিছু ফাঁকা গুলি করে। গ্রামে উত্তেজনা থাকায় রাত থেকে এখন পর্যন্ত এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন আছে। হত্যাকাণ্ডের পর থেকেই আকতার বেপারীর লোকজন গ্রাম ছেড়ে পালিয়ে গেছে।

মাদারীপুর জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সাধারণ সম্পাদক মো. ইলিয়াস আহম্মেদ হাওলাদার বলেন, ‘আকতার বেপারীর লোকজন নুর আলম হাওলাদারকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে জখম করে। রাত দেড়টার দিকে মারা যান। এতে হামলার ঘটনা ঘটেছে। আমি লোকজনকে বলেছি কারো কোনো বাড়িঘরে হামলা চালানো যাবে না। কোনো মালামাল ক্ষতি করা যাবে না। আমরা এ হত্যার কঠোর শাস্তির দাবি জানাই।’

এ বিষয়ে জানতে আকতার বেপারীর মোবাইলে কল দেওয়া হলেও সেটি বন্ধ পাওয়া যায়। তার সঙ্গে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।

মাদারীপুর ফায়ার সার্ভিস স্টোশন অফিসার মো. আমজেদ হোসেন জানান, রাতে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে আনতেই অনেক ঘরবাড়ি পুড়ে গেছে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে পেট্রোল ঢেলে আগুন দেওয়া হয়েছে।

মাদারীপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মোহাম্মদ বদরুল আলম মোল্লা বলেন, ‘পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ বেশ কিছু ফাঁকা গুলি করেছে। রাত থেকে এখন পর্যন্ত অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।’

advertisement