advertisement
advertisement

করোনা চিকিৎসা
হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইন না রাখার সুপারিশ

নিজস্ব প্রতিবেদক
৩০ মে ২০২০ ০০:০০ | আপডেট: ৩০ মে ২০২০ ০৭:২২
advertisement

বাংলাদেশে করোনাভাইরাস মোকাবিলায় গঠিত সরকারের জাতীয় টেকনিক্যাল পরামর্শক কমিটি কোভিড-১৯ রোগের চিকিৎসার গাইডলাইনে হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইন ওষুধ না রাখার পরামর্শ দিয়েছে। এ ছাড়া আইভারমেকটিন, কনাভালোসেন্ট প্লাজমা ও অন্যান্য অননুমোদিত ওষুধ শুধু সুনির্দিষ্টভাবে অনুমোদিত ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের বাইরে ব্যবহার না করার সুপারিশ করেছে। গতকাল কমিটির পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়েছে।

কমিটির সভাপতি অধ্যাপক মোহাম্মদ শহীদুল্লাহ স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, জাতীয় কারিগরি পরামর্শক কমিটির ৬ষ্ঠ সভায় কিছু সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। এর একটি সুপারিশ হলোÑ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা সুনির্দিষ্টভাবে কোভিড-১৯ রোগে হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইন নামে ওষুধ ব্যবহারের ঝুঁকি সম্পর্কে নির্দেশনা দিয়েছে। ইতোমধ্যেই ইউরোপীয় ইউনিয়নে এ ওষুধের ব্যবহার নিষিদ্ধ হয়েছে। তাই কমিটি এ ওষুধ না রাখার পরামর্শ দিচ্ছে। এ ছাড়া আইভারমেকটিন, কনাভালোসেন্ট প্লাজমা ও অন্যান্য অননুমোদিত ওষুধও ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের বাইরে ব্যবহার না করার সুপারিশ করছে।

অপর সুপারিশে বলা হয়, কোভিড-১৯ একটি সংক্রামক রোগ। জনসমাগম এ রোগ বিস্তারের জন্য সহায়ক। সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণের জন্য প্রযোজ্য বিধিবিধান সঠিক পদ্ধতিতে প্রয়োগ না করে লকডাউন শিথিল করা হলে রোগীর সংখ্যা ব্যাপকভাবে বেড়ে গিয়ে স্বাস্থ্য ব্যবস্থার ওপর প্রচ- চাপ সৃষ্টি করতে পারে।

সর্বশেষ সুপারিশে বলা হয়েছে, ইতোমধ্যে স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা মন্ত্রণালয় কোভিড-১৯ ও অন্যান্য রোগীর চিকিৎসা একই হাসপাতালে পৃথক পৃথক ব্যবস্থায় করার নির্দেশনা দিয়েছে। কমিটি এ সিদ্ধান্ত সঠিক মনে করে। তবে এ ব্যাপারে প্রশাসনিক, সাংগঠনিক, জনবল ও সরঞ্জামের বিশেষ প্রস্তুতির প্রয়োজন আছে মনে করে।

advertisement