advertisement
advertisement

কবে ফিরবে দেশের ক্রিকেট

ক্রীড়া প্রতিবেদক
৩০ মে ২০২০ ০০:০০ | আপডেট: ৩০ মে ২০২০ ১৬:২৭
advertisement

করোনা ভাইরাসের কারণে খেলাধুলা বন্ধ রয়েছে। খেলোয়াড়রা পরিবারের সঙ্গে সময় কাটাচ্ছেন। ফিটনেস ঠিক রাখতে বিসিবির দেওয়া গাইডলাইন তারা অনুসরণ করছেন। কবে নাগাদ দেশের ক্রিকেট মাঠে গড়াবে তা এখনই নিশ্চিত করা বলা যাচ্ছে না। আগামীকাল থেকে শর্তসাপেক্ষে সীমিত আকারে সব সরকারি, আধা সরকারি, স্বায়ত্তশাসিত এবং বেসরকারি অফিস নিজ ব্যবস্থাপনায় খোলার নির্দেশনা দিয়েছে সরকার। তবে কি শিগগিরই দেশের ক্রিকেটও মাঠে গড়াবে? বিসিবি কিন্তু তা মনে করছে না। সংস্থাটির প্রধান নির্বাহী জানিয়েছেন, তারা তাড়াহুড়ো করতে রাজি নন। নিজাম উদ্দিন চৌধুরী এটিও জানিয়েছেন যে, খেলাধুলা শুরু হলে অগ্রাধিকার পাবে ঢাকা প্রিমিয়ার ক্রিকেট লিগ। যদি আগামী দুই সপ্তাহের মধ্যে দেশের ক্রিকেট শুরু হয় তবে প্রিমিয়ার লিগ দিয়েই তা শুরু হবে। বিসিবির সিইও এটিও বলেছেন যে, খেলোয়াড়দের মতামত নেওয়াটা গুরুত্বপূর্ণ। অর্থাৎ তামিম-মুশফিকদের সিদ্ধান্ত নিয়ে তবেই মাঠে কবে নাগাদ ক্রিকেট ফেরানো যায় সে সিদ্ধান্ত নেবে বিসিবি। আপাতত পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে। বলে রাখা ভালো, সবশেষ প্রিমিয়ার লিগে খেলেছেন টাইগাররা। করোনা ভাইরাসের প্রকোপ বেড়ে যাওয়ায় প্রথম রাউন্ড শেষে লিগ অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা করেছে বিসিবি।

করোনা ভাইরাস-উত্তর পৃথিবীতে ফিরেছে ফুটবল। ক্রিকেটও ফেরার অপেক্ষায়। অস্ট্রেলিয়া ৬ জুন টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্ট শুরু করতে যাচ্ছে। ইংল্যান্ড, ওয়েস্ট ইন্ডিজের ক্রিকেটাররাও প্রস্তুতি শুরু করেছেন। ব্যতিক্রম এশিয়া আর আফ্রিকা মহাদেশের ক্রিকেট। ভারত, পাকিস্তান, শ্রীলংকার মতো বাংলাদেশে এখনো ক্রিকেট-চর্চা শুরু হয়নি। বিসিবি অবশ্য ‘ধীরে চলো নীতি’ অবলম্বন করেছে। প্রতিবেশী দেশ ভারত, পাকিস্তান, শ্রীলংকা করোনা পরিস্থিতি সামলে কীভাবে ক্রিকেট মাঠে ফেরায় সে অভিজ্ঞতা বুঝে টাইগারদের মাঠে ফেরানোর সিদ্ধান্ত নিতে চাইছে। বিসিবির সিইও জানিয়েছেন, পরিস্থিতির উন্নতি হলে ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ দিয়েই দেশের ক্রিকেট শুরুর পরিকল্পনা রয়েছে তাদের। জানা গেছে, জুনের শেষ সপ্তাহে ক্রিকেটারদের প্রস্তুতি শুরু হতে পারে। অবশ্য সব কিছু নির্ভর করছে পরিস্থিতির ওপর। সপ্তাহখানেক আগে ১৬ পৃষ্ঠার একটি দিকনির্দেশনা দিয়েছে আইসিসি। স্বাস্থ্যবিধি মেনে কীভাবে ক্রিকেট শুরু করা যায় তা লেখা আছে সেখানে। সে দিকটাও বিবেচনায় রাখতে হচ্ছে বিসিবিকে।

করোনা ভাইরাস নিয়ে কাজ করা বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ভ্যাকসিন আবিষ্কার হতে অন্তত আরও ১৮ মাস সময় লাগবে। সম্প্রতি টাইমসের কাছে এমোরি বিশ্ববিদ্যালয়ের রোগতত্ত্ববিদ জ্যাক বিনি বলেছেন, ‘শতভাগ নিশ্চিত এর যতটা কাছাকাছি থাকা সম্ভব, ততটা থেকে বলছি ভ্যাকসিন আবিষ্কার না হওয়া পর্যন্ত আমরা গ্যালারিভর্তি স্টেডিয়ামের দিনে ফিরতে পারব না, এটিই চূড়ান্ত সত্য। এখন পর্যন্ত যা ধারণা তাতে সেটি হতে আরও ১৮ মাস সময় লাগবে। একটু কম বা বেশি হয়তো লাগতে পারে।’

ভ্যাকসিনের জন্য দীর্ঘ সময় খেলাধুলা বন্ধ থাকার সুযোগ নেই। ইতোমধ্যে তাই ফুটবল মাঠে ফিরেছে। ক্রিকেটও ফেরার অপেক্ষায়। বাংলাদেশের ক্রিকেটও ফিরবে, তবে কবে নাগাদ তা এখনই বলার উপায় নেই।

advertisement