advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

পিপিই রপ্তানি : বাংলাদেশের প্রশংসা মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রীর

কূটনৈতিক প্রতিবেদক
১ জুন ২০২০ ১৯:০৫ | আপডেট: ১ জুন ২০২০ ১৯:০৫
মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও। ছবি : সংগৃহীত
advertisement

মার্কিন বাজারে বাংলাদেশের ব্যক্তিগত সুরা সামগ্রী (পিপিই) রপ্তানির কারণে বাংলাদেশের প্রশংসা করেছেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও। আজ সোমবার এক টুইট বার্তায় পম্পেও এই প্রশংসা করেন।

অন্যদিকে ঢাকায় নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত আর্ল মিলার বাংলাদেশকে বিশ্বমানের বৃহৎ আকারের পিপিই উৎপাদনকারী দেশগুলোর কাতারে স্বাগত জানাতে পেরে ‘আনন্দিত’ বলে উল্লেখ করেছেন। পৃথক পৃথক টুইট বার্তায় তারা এসব অভিব্যক্তি প্রকাশ করেন।

প্রথম বাংলাদেশি কোম্পানি হিসেবে বেক্সিমকো সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্রে ৬৫ লাখ পিপিই’র প্রথম চালান রপ্তানি করে। এই উপলক্ষে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে আয়োজিত একটি অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন মার্কিন রাষ্ট্রদূত আর্ল মিলার। পরে তিনি এ নিয়ে বেশ কয়েকটি টুইটে এ বাংলাদেশ ও বেক্সিমকোকে অভিনন্দন জানান।

এক টুইটে রাষ্ট্রদূত লিখেছেন, ‘বাংলাদেশকে বিশ্বমানের বৃহৎ আকারের পিপিই উৎপাদনকারী দেশগুলোর কাতারে স্বাগত জানাতে পেরে আনন্দিত। বেক্সিমকো ও হ্যানস’র মধ্যকার আংশীদারিত্ব হলো কোভিড-১৯ কে পরাজিত করতে যুক্তরাষ্ট্র ও বাংলাদেশের যৌথ প্রচেষ্টার সেরা প্রতিফলন।’

সেই টুইট নিজের প্রোফাইলে রি-টুইট করে পররাষ্ট্রমন্ত্রী পম্পেও লিখেছেন, ‘আমি এই তাৎপর্যপূর্ণ মাইলফলকের জন্য রাষ্ট্রদূত মিলারের সঙ্গে একমত হয়ে বাংলাদেশকে অভিনন্দন জানাতে চাই। বিশ্বজুড়ে করোনা মোকাবিলায় সম্মুখ সারিতে থাকা সাহায্যকর্মীদের এখন পিপিই প্রয়োজন। এসব পিপিই যোগানে কোম্পানিগুলো এখন নজর দিচ্ছে। ফলে এ ধরনের আন্তর্জাতিক আংশীদারিত্ব অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।’

পাশাপাশি দুই দেশের মধ্যকার সম্পর্কের ক্রমবর্ধমান উন্নতি দেশটির অত্যন্ত প্রভাবশালী সংস্থা জাতীয় নিরাপত্তা পরিষদ ও পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মধ্য ও দক্ষিণ এশিয়া বিষয়ক ব্যুরোও প্রশংসা করেছে।

মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের দক্ষিণ ও মধ্য এশিয়া বিষয়ক ব্যুরো পৃথক এক টুইট বার্তায় বলেছে, আংশীদারিত্ব ও সৃজনশীলতার মাধ্যমে আমরা কোভিড-১৯-কে পরাজিত করব। বেক্সিমকো ও হ্যানসকে ধন্যবাদ যুক্তরাষ্ট্রে পিপিই শিপমেন্টকে এত দ্রুত বাস্তবতায় পরিণত করার জন্য।

রাষ্ট্রদূত মিলারের টুইট রি-টুইট করেছে যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় নিরাপত্তা সংস্থাও। সংস্থাটি লিখেছে, কোভিড-১৯ এর বিরুদ্ধে লড়াই ও অর্থনৈতিক পুনরুদ্ধার চেষ্টায় আমরা একে অপরকে সাহায্য করছি। তাই যুক্তরাষ্ট্র ও বাংলাদেশের আংশীদারিত্ব আরও শক্তিশালী হয়ে উঠতে দেখাটা দারুণ!

advertisement