advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

রোনাল্ডোর সেরা মেসি

ক্রীড়া ডেস্ক
২ জুন ২০২০ ০০:০০ | আপডেট: ১ জুন ২০২০ ২৩:৫৩
advertisement

ফুটবলবিশ্বের চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী দুই দেশ ব্রাজিল ও আর্জেন্টিনা। মাঠের খেলায় কেউ কাউকে ছেড়ে কথা বলেন না কখনো। তবে মাঠের বাইরে সব সময়ই দুই দেশের খেলোয়াড়দের মধ্যে বন্ধুবৎসল ও ভ্রাতৃত্বপূর্ণ সম্পর্কের দেখা মেলে।

যার প্রমাণ আরও একবার দিলেন ব্রাজিলিয়ান কিংবদন্তি রোনাল্ডো নাজারিও দ্য ফেনোমেনন। টিভিতে বা মাঠে বসে কার খেলা দেখতে বেশি ভালো লাগেÑ এমন প্রশ্নের উত্তরে তিনি একবাক্যে বলে দিয়েছেন আর্জেন্টাইন সুপারস্টার লিওনেল মেসির নাম। দ্বিতীয় ও তৃতীয় বাছাই যথাক্রমে লিভারপুলের মিসরীয় ফরোয়ার্ড মোহামেদ সালাহ ও রিয়াল মাদ্রিদের বেলজিয়ান মিডফিল্ডার এডেন হ্যাজার্ড। এর পর চতুর্থ ও পঞ্চম স্থানে রয়েছেন পিএসজির ব্রাজিলিয়ান গোলমেশিন নেইমার এবং একই দলের ফরাসি তারকা কিলিয়ান এমবাপ্পে।

দুটি বিশ্বকাপজয়ী রোনাল্ডো বলেন, মেসি অবশ্যই নাম্বার ওয়ান। সে প্রকৃতিপ্রদত্ত প্রতিভা। আমি সালাহ, হ্যাজার্ড, নেইমারকেও পছন্দ করি। স্বদেশির খেলা দেখতে ভালোবাসি। আর হ্যাঁ এমবাপ্পে, অসাধারণ ও।

ব্রাজিলের বিশ্বকাপজয়ী সাবেক স্ট্রাইকার রোনাল্ডোর এক অনন্য কীর্তি আছে। ক্যারিয়ারে স্পেন ও ইতালির দুই প্রতিদ্বন্দ্বী রিয়াল মাদ্রিদ-বার্সেলোনা ও এসি মিলান-ইন্টার মিলান চারটি ক্লাবেরই হয়ে খেলা তারকাদের মধ্যে তর্কাতীতভাবে তিনিই সবচেয়ে বেশি জনপ্রিয়। বার্সা-রিয়ালের মধ্যে সবচেয়ে স্মরণীয় সময় কাটিয়েছেন রিয়ালেই। সে হিসেবে রিয়ালের কিংবদন্তি ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর প্রতি আলাদা টান থাকা উচিত ছিল হয়তো। কিন্তু কীসের কী! নিজের পছন্দের খেলোয়াড়ের তালিকায় প্রথম পাঁচজনের মধ্যেও রোনাল্ডো রাখেননি ক্রিশ্চিয়ানোকে। পাঁচজনের মধ্যে রোনাল্ডো আবার সবচেয়ে বেশি মুগ্ধ হন বার্সা তারকা লিওনেল মেসির খেলা দেখে। ইতালিয়ান ক্লাবগুলোর মধ্যে ইন্টার মিলানের হয়ে খেলে রোনাল্ডো সবচেয়ে বেশি সাফল্য পেয়েছেন। আর ওই ইন্টারের চিরশত্রু ‘জুভেন্টাস’ যাদের হয়ে ক্রিশ্চিয়ানো এখন মাঠ মাতান। রোনাল্ডোর মন্তব্য জুভেন্টাস শিবিরে একটু হলেও বিরক্তির উদ্রেক করবে, এটা বলাই যায়।

এদিকে নিজের সঙ্গে এমবাপ্পের ক্রমাগত তুলনা নিয়েও মুখ খুলেছেন রোনালদো। ভিন্ন ভিন্ন যুগের খেলোয়াড়ের মধ্যে তুলনা করা উচিত না বলেই মনে করেন তিনি, ‘অনেকেই বলে ও (এমবাপ্পে) আমার মতো দেখতে। অনেক গতিশীল ও, গোলও করতে পারে বেশ। দুই পায়ে সমান কার্যকরী, মুভমেন্ট অসাধারণ। তবে আমার মনে হয় আমারদের মধ্যে তুলনা না করাই উচিত। কেননা আমরা দুজন দুই যুগের খেলোয়াড়। আমাদের পরিস্থিতিও আলাদা।’

advertisement