advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

করোনার উপসর্গ নিয়ে আয়ার মৃত্যু, বকেয়া রইলো বেতন

২ জুন ২০২০ ০১:৫৬
আপডেট: ২ জুন ২০২০ ০১:৫৬
advertisement

করোনাভাইরাসের উপসর্গ নিয়ে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন চট্টগ্রাম জেনারেল হাসপাতালের অস্থায়ী পরিচ্ছন্নতাকর্মী হাসিনা বেগম (৬০)। চার মাসের বেতন বকেয়া থাকার পরও স্বাস্থ্যঝুঁকি নিয়ে তাকে সেবা দিতে হচ্ছিল।

করোনা চিকিৎসার জন্য নির্ধারিত চট্টগ্রাম জেনারেল হাসপাতালের ‘ফ্লু কর্নারে’ কাজ করতেন হাসিনা বেগম। গতকাল সোমবার তার মৃত্যুর পরও পাওনা বেতন বকেয়াই থাকলো।

হাসপাতালের সিনিয়র কনসালটেন্ট ডা. আবদুর রব হাসিনা বেগমের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করে বলেন, ‘রোববার অসুস্থ হওয়ার আগ পর্যন্ত হাসিনা বেগম হাসপাতালে সেবা দিয়ে গেছেন। হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে অবস্থার অবনতি হলে তাকে আইসিইউতে নেওয়া হয়।’

করোনাভাইরাসের উপসর্গ থাকায় পরীক্ষার জন্য তার নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে বলে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে।

এদিকে হাসিনা বেগমের বেতনের ব্যাপারে জানা গেছে, তিনিসহ আরও বেশ কয়েকজন হাসপাতালে অস্থায়ী ভিত্তিতে নিয়োগ পেয়ে আয়ার কাজ করছিলেন। ঈদের আগে কিছু টাকা তাদের তাদের দেওয়া হয়েছিল। তারপরও চার মাসের বেতন এবং ঈদ বোনাস পাওনা রয়েছে। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় অর্থ ছাড় না করায় হাসিনাসহ ওই ৩৬ জনের বেতন বকেয়া পড়েছে বলে জানা গেছে।

হাসপাতালের ভারপ্রাপ্ত তত্ত্বাবধায়ক হিসেবে দায়িত্বে থাকা ডা. শফিকুল ইসলাম বলেন, ‘আউটসোর্সিংয়ের কর্মীদের বেতন বকেয়া থাকার বিষয়টি শুনেছি। তবে আমি তো মাত্র দায়িত্ব নিয়েছি। বেতন বকেয়া থাকে, আবার মন্ত্রণালয় দিলে তারা টাকাটা পেয়েও যায়।’

advertisement