advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

পরকীয়ায় ধরা পড়ে ছাত্রলীগ নেতার বিয়ে!

গুরুদাসপুর (নাটোর) প্রতিনিধি
৩ জুন ২০২০ ১৮:৩০ | আপডেট: ৩ জুন ২০২০ ২২:২৮
গুরুদাসপুর উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সুবাশীষ কবির সুবাস ও নূপুর আকতার
advertisement

নাটোরের গুরুদাসপুর উপজেলায় এক ব্যবসায়ীর স্ত্রীর সঙ্গে পরকীয়া সম্পর্কে ধরা পড়ে বিয়ে করতে বাধ্য হয়েছেন উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সুবাশীষ কবির সুবাস।

গতকাল মঙ্গলবার দিবাগত রাত ১টার দিকে পৌর শহরের চাঁচকৈড় বাজারপাড়া মহল্লায় প্রেমিকার ঘরে গিয়ে স্থানীয়দের কাছে ধরা পড়েন ওই ছাত্রলীগ নেতা। পরে ১০ লাখ টাকা কাবিনমূলে বিয়ে করতে বাধ্য করেন স্থানীয়রা। 

এ ঘটনায় এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, চাঁচকৈড় বাজারের ফিড ব্যবসায়ী জনি রহমানের স্ত্রী নূপুর আকতারের সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরে পরকীয়া প্রেম করে আসছিলেন ছাত্রলীগ নেতা সুবাস।

এরই ধারাবাহিকতায় গতকাল মঙ্গলবার দিবাগত রাতে ব্যবসায়ীকে অন্য ঘরে ঘুমে রেখে নূপুর ও সুবাস পাশের একটি কক্ষে আপত্তিকর অবস্থায় স্থানীয়দের হাতে ধরা পড়েন। পরে রাতেই তাদের বিয়ে করতে বাধ্য করা হয়। বিয়ের পর নববধূকে নিয়ে ছাত্রলীগ নেতা সুবাস নিজ বাড়ি উপজেলার খুবজীপুরে চলে যান।

এ বিষয়ে সুবাশীষ কবির সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম ফেসবুক স্ট্যাটাসে লিখেন, ‘নূপুর তার বন্ধু জনির স্ত্রী। পরিস্থিতি সামাল দিতে তিনি নূপুরকে বিয়ে করেছেন।’

এ বিষয়ে জানতে জনির মুঠোফোনে একাধিকবার কল করলেও ফোন বন্ধ থাকায় তার বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।

advertisement