advertisement
advertisement

খুলেছে নিউমার্কেট এলাকার দোকান
বসুন্ধরা সিটি খুলতে পারে আগামী সপ্তাহে

নিজস্ব প্রতিবেদক
৪ জুন ২০২০ ০০:০০ | আপডেট: ৪ জুন ২০২০ ০৮:১২
বসুন্ধরা সিটি। পুরোনো ছবি
advertisement

সাধারণ ছুটি শেষে ৩১ মে থেকে সারা দেশের মার্কেট-শপিংমল একে একে খুলতে শুরু করে। রাজধানীর বেশিরভাগ মার্কেটও ওইদিন দ্বার খোলে। সেদিন ঢাকা নিউমার্কেট খোলা হলেও বন্ধ ছিল ওই এলাকার বাকি মার্কেটগুলো। ওই এলাকার মঙ্গলবারের সাপ্তাহিক ছুটি শেষে গতকাল বুধবার খুলেছে সেগুলোও।

গতকাল চন্দ্রিমা, চাঁদনিচক, গাউসিয়া, নিউ সুপার মার্কেটসহ নিউমার্কেট এলাকার অধিকাংশ মার্কেট খুলেছে বলে জানিয়েছে মার্কেট কর্তৃপক্ষগুলো। এ ছাড়া আগামী সপ্তাহে খুলতে পারে বসুন্ধরা সিটি শপিংমল।

সাধারণ ছুটি শেষে অফিস খোলার দিনই ৩১ মে খোলে নিউমার্কেট। স্বাস্থ্য নিরাপত্তার কথা বিবেচনা করে মার্কেটের চারটি গেটের মধ্যে তিনটি খোলা রাখা হয়েছে। পাশাপাশি সব ধরনের সাবধানতাও অবলম্বন করা হচ্ছে।

চন্দ্রিমা সুপার মার্কেট দোকান মালিক সমিতির সভাপতি মঞ্জুরুল ইসলাম মঞ্জু বলেন, করোনা সংক্রমণের ঝুঁকি এড়াতে ঈদ বাজারেও চন্দ্রিমা মার্কেট বন্ধ রাখা হয়। আজ (বুধবার) মার্কেট খুলে দেওয়া হয়েছে। দীর্ঘদিন বন্ধ থাকায় খুলতে বাড়তি সময় লেগেছে। সরকারি সব নির্দেশনা মেনেই দোকান খোলা হয়েছে।

তিনি বলেন, মার্কেটের ৯টি গেটের মধ্যে চারটি খোলা রাখা হয়েছে ক্রেতাসাধারণদের জন্য। দুটি গেট প্রবেশ ও দুটি বের হওয়ার জন্য। বিতর্ক থাকায় টানেল বা স্প্রে গেট রাখা হয়নি। তবে হ্যান্ড স্যানিটাইজারের ব্যবস্থা ও নিয়মিত জীবাণুনাশক ছিটানোসহ সব ধরনের স্বাস্থ্য নিরাপত্তা ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। পাশাপাশি মাস্ক ব্যবহার ও সামাজিক দূরত্ব বাধ্যতামূলক করা হয়েছে।

নিউ সুপার মার্কেটের দক্ষিণ বণিক সমিতির সভাপতি শহীদুল্লাহ শহীদ বলেন, আমরা ঈদ বাজারেও স্বাস্থ্যবিধি মেনে মার্কেট খোলা রেখেছিলাম। এবার ৩১ মে মার্কেট খুলিনি। সবার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী এ এলাকার সাপ্তাহিক ছুটি শেষে আজ (বুধবার) অধিকাংশ মার্কেট খুলেছে। আমরাও খুলেছি। এদিকে ঈদ বাজারের মতো এখনো বন্ধ রয়েছে

রাজধানীর বৃহত্তম দুই শপিংমল বসুন্ধরা সিটি শপিং কমপ্লেক্স ও যমুনা ফিউচার পার্ক। শিগগিরই যমুনা ফিউচার পার্ক খোলা হচ্ছে না বলে জানিয়েছেন যমুনা গ্রুপের ডিরেক্টর আলমগীর আলম। পরিস্থিতি বিবেচনা করে পরে সিদ্ধান্ত জানানো হবে বলে জানান তিনি।

তবে আগামী সপ্তাহে দোকানপাট খোলা হতে পারে বলে জানিয়েছেন বসুন্ধরা সিটি শপিং কমপ্লেক্স দোকান মালিক সমিতির সভাপতি এমএ হান্নান আজাদ। তিনি বলেন, ব্যবসায়ীরা মালিকপক্ষের সঙ্গে আলোচনা করছেন। আগামী সপ্তাহে শপিংমল খোলা হতে পারে। স্বাস্থ্যবিধি ও পরিচালনা ব্যবস্থা কেমন হবে সে বিষয়ে নীতিমালা হচ্ছে। শিগগিরই সিদ্ধান্ত জানানো হবে।

বাংলাদেশ দোকান মালিক সমিতির সভাপতি হেলাল উদ্দিন বলেন, ৩১ মে থেকে রাজধানীর অধিকাংশ মার্কেট খোলা হয়েছে। গতকাল থেকে সায়েন্সল্যাব, নিউমার্কেট, এলিফেন্ট রোডের প্রায় সব মার্কেট খুলেছে। তবে ক্রেতা কম। এখনো ব্যবসা শুরু করতে পারেননি ব্যবসায়ীরা।

 

 

 

advertisement