advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

করোনা আক্রান্ত ছিলেন ফ্লয়েড

অনলাইন ডেস্ক
৪ জুন ২০২০ ১২:১১ | আপডেট: ৪ জুন ২০২০ ১৩:০৭
ছবি : সংগৃহীত
advertisement

কৃষ্ণাঙ্গ যুবক জর্জ ফ্লয়েড খুন হওয়ার সময় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ছিলেন বলে ময়নাতদন্তের রিপোর্টে জানা গেছে। তবে করোনাভাইরাসের কারণে তার মৃত্যু হয়নি। ফ্লয়েডের ময়নাতদন্তের পূর্ণ প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে হেনেপিন কাউন্টি হাসপাতাল।

জর্জ ফ্লয়েডের পরিবারের অনুমতি নিয়েই তার ময়নাতদন্ত করে পূর্ণ প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়েছে বলে সংবাদ প্রকাশ করেছে অ্যাসোসিয়েটেড প্রেস।

ওই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, জর্জ ফ্লয়েড করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ছিলেন। তার শরীরে ফেন্টানাইল, মেথামফেটামিন মাদকের উপস্থিতিও পাওয়া গেছে। তবে এসব কারণে তার মৃত্যু হয়নি। তার মৃত্যুকে হোমিসাইড বা হত্যাকাণ্ড বলে উল্লেখ করা হয়েছে।

এর আগে গত সোমবার তার পরিবারের পক্ষ থেকে করা ময়নাতদন্তে জানা যায়, শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়েছে জর্জ ফ্লয়েডকে। এমনকি ঘাড়ের উপর হাঁটু চেপে রাখার কারণে তার মস্তিষ্কে রক্ত চলাচল বন্ধ হয়ে গিয়েছিল।

গতকাল বুধবার ২০ পাতার ময়নাতদন্ত প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, জর্জ ফ্লয়েডকে হত্যা করা হয়েছে।

এক ভিডিওতে দেখা যায়, মিনেসোটা পুলিশের শ্বেতাঙ্গ কর্মকর্তা ডেরেক চাউভিন জর্জ ফ্লয়েডকে হাতকড়া পরিয়ে মাটিতে ফেলে রেখে তার ঘাড়ের উপর হাঁটু দিয়ে চেপে রেখেছেন।

ওই সময় চাপা কণ্ঠে ফ্লয়েড আকুতি করে বলছিলেন, আমি শ্বাস নিতে পারছি না। তার পরেও জর্জ ফ্লয়েড একেবারে নিথর না হয়ে যাওয়ার পর্যন্ত চেপে ধরেছিলেন ডেরেক চাউভিন।

ময়নাতদন্তকারী অ্যান্ড্রু বাকের বলেছেন, জর্জ ফ্লয়েডকে হত্যা করা হয়েছে। তিনি ৩ এপ্রিল করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত হয়েছেন। তবে তার শরীরে কোনো লক্ষণ ছিল না। করোনা আক্রান্ত হলেও ফ্লয়েডের ফুসফুস ভালো ছিল। যদিও তার হার্টে কিছুটা সমস্যা ছিল।

advertisement