advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

সরিয়ে দেওয়া হলো স্বাস্থ্য সচিব আসাদুলকে

নিজস্ব প্রতিবেদক
৫ জুন ২০২০ ০০:০০ | আপডেট: ৫ জুন ২০২০ ০০:১১
advertisement

নানা আলোচনা-সমালোচনার মধ্যে অবশেষে সরিয়ে দেওয়া হলো স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সচিব মো. আসাদুল ইসলামকে। গতকাল তাকে বদলি করে পরিকল্পনা কমিশনের সচিব করা হয়েছে। স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের নতুন সচিব হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন ভূমি সংস্কার বোর্ডের চেয়ারম্যান (সচিব) মো. আব্দুল মান্নান। গতকাল বদলির এই আদেশ জারি করে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়।

আসাদুল ইসলামকে স্বাস্থ্যসেবা বিভাগে গত কয়েক মাস অনেকটা নিষ্ক্রিয় হিসেবেই দেখা যায় বলে গণমাধ্যমে খবর আসে। করোনা মহামারী মোকাবিলায় বেশকিছু বিষয়ে সিদ্ধান্ত গ্রহণে যথাযথ ভূমিকা নিতে না পারার অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে। স্বাস্থ্য বিভাগের নতুন সচিবকে করোনা মহামারীর এই সময়ে সঠিক নেতৃত্ব গ্রহণে সরকারের উচ্চ পর্যায় থেকে বেশকিছু চ্যালেঞ্জ ও পরামর্শ দেওয়া হবে বলে জানা গেছে।

একটি সূত্র বলেছে, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্যসেবা বিভাগ, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরসহ সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন দপ্তরে শিগগিরই আরও পরিবর্তন হতে পারে। এমনকি স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের গুরুত্বপূর্ণ পদেও পরিবর্তনের কথা শোনা যাচ্ছে। এ ব্যাপারে ইতোমধ্যে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় কাজ শুরু করেছে। জানা গেছে, করোনাকালে স্বাস্থ্যসেবা

বিভাগের কেনাকাটা, বদলি, পদায়ন কারা নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করছেন তারও একটি চিত্র সম্পর্কে অবগত হয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পিপিই নীতিমালা অনুযায়ী রোগীর নমুনা পরীক্ষা ও চিকিৎসার জন্য এন-৯৫ মাস্ক পরা জরুরি। কিন্তু মার্চের শেষ ভাগে কেন্দ্রীয় ঔষধাগার থেকে বিভিন্ন হাসপাতালে যেসব মাস্ক পাঠানো হয়, তার প্যাকেটে ‘এন-৯৫’ লেখা থাকলেও ভেতরে ছিল সাধারণ সার্জিক্যাল মাস্ক। বিষয়টি সে সময় গণমাধ্যমেও এলে সমালোচনা শুরু হয় দেশজুড়ে।

বিষয়টি খতিয়ে দেখার পর পরবর্তী সময় কেন্দ্রীয় ঔষধাগারের তখনকার পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. শহিদ উল্লাহ স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের ব্রিফিংয়ে ভুল স্বীকার করেন। এ ঘটনায় স্বাস্থ্যসেবা বিভাগ যে তদন্ত করেছে, গতকাল পর্যন্ত সেই প্রতিবেদন আলোর মুখ দেখেনি। এই প্রতিবেদন একপেশে হয়েছে বলেও গণমাধ্যমে খবর প্রকাশ হয়েছে।

advertisement