advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

বিমানের বিশেষ ফ্লাইটে স্পেনে ফিরেছেন ২৭৩ বাংলাদেশি

লোকমান হোসেন,স্পেন
২১ জুন ২০২০ ০৯:২৩ | আপডেট: ২১ জুন ২০২০ ০৯:২৩
ছবি : আমাদের সময়
advertisement

বৈশ্বিক মহামারি করোনাভাইরাসে বাংলাদেশে আটকেপড়া ২৭৩ জন প্রবাসী বাংলাদেশি স্পেনে ফিরেছেন। স্পেন বাংলা প্রেসক্লাবের উদ্যোগে বাংলাদেশ বিমানের বিজি-৪১০৯ নম্বরের বিশেষ ফ্লাইটে গত শুক্রবার স্থানীয় সময় বিকেল সাড়ে ৩টায় মাদ্রিদ বারাখাছ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছান তারা। এ সময় তাদের স্বাগত জানান মাদ্রিদস্থ বাংলাদেশ দূতাবাসের কর্মকর্তা, স্থানীয় বাংলাদেশি কমিউনিটির নেতৃবৃন্দ ও আগত যাত্রীদের পরিবারের সদস্যরা।

জানা যায়, করোনা মহামারি আকার ধারণ করার পূর্বে স্পেন থেকে অনেক প্রবাসী বাংলাদেশে গিয়েছিলেন। স্পেনে করোনা পরিস্থিতি অনেকটা স্বাভাবিক পরিস্থিতির দিকে এগুলেও ফ্লাইটের অভাবে তারা স্পেনে ফিরতে পারছিলেন না। পরে স্পেন বাংলা প্রেসক্লাবের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে স্পেনস্থ বাংলাদেশ দূতাবাস ও স্থানীয় বাংলাদেশি কমিউনিটির সহযোগিতায় বাংলাদেশে আটকেপড়া স্পেন প্রবাসীদের স্পেনে প্রত্যাবর্তনে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স এ বিশেষ ফ্লাইটের ব্যবস্থা করে।

ইমিগ্রেশনের আনুষ্ঠানিকতা সেরে আগত স্পেন প্রবাসীরা বিমানবন্দরের মূল দরজা দিয়ে যখন বের হচ্ছিলেন, তাদের স্বাগত জানাতে আসা পরিবারের সদস্যদের অনেককেই আবেগে আপ্লুত হতে দেখা গেছে। দীর্ঘদিন পর স্পেনে রেখে যাওয়া পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে দেখা হলো ইনসাফ সুমনের। তার অনুভূতি জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘অল্প কিছুদিনের জন্য জরুরি কাজে বাংলাদেশে গিয়েছিলাম। কিন্তু এভাবে আটকা পড়বো চিন্তাই করিনি। পরিবারের কাছে পৌঁছতে পেরে আমি খুবই খুশি।’

আরেক যাত্রী রুনু নজরুল বলেন, ‘বার্সেলোনায় স্ত্রী, সন্তান ও নিজের ব্যবসা রেখে বাংলাদেশে ছিলাম দুশ্চিন্তার মধ্যে। সৃষ্টিকর্তার কাছে কৃতজ্ঞতা জানাই এজন্য যে আমি স্পেনে ফিরতে পেরেছি।’

ওয়াজিজুর রহমান মুজিব স্ত্রী, সন্তান নিয়ে ছুটির সময় কাটাতে গিয়েছিলেন বাংলাদেশে। নিজস্ব কর্মক্ষেত্রে যোগ দিতে জরুরি ভিত্তিতে বিশেষ ফ্লাইটের সুযোগ পেয়ে এসেছেন কেবল তিনি। বিমান চলাচল স্বাভাবিক হলে স্ত্রী-সন্তানরাও ফিরবেন বলে জানান তিনি। আগতরা বিমান বাংলাদেশের যাত্রী সেবা নিয়েও সন্তুষ্টি প্রকাশ করেছেন ।

মাদ্রিদ বারাখাছ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে আগত প্রবাসীদের স্বাগত জানাতে উপস্থিত ছিলেন মাদ্রিদস্থ বাংলাদেশ দূতাবাসের প্রথম সচিব (শ্রম) মো. মোতাসিমুল ইসলাম। তিনি বলেন, ‘স্পেন প্রবাসী বাংলাদেশিরা দীর্ঘদিন বাংলাদেশে আটকা পড়েছিলেন। বিভিন্ন সময় আমাদের সঙ্গে তারা যোগাযোগ করেছেন যাতে স্পেনে ফিরে আসার ব্যাপারে উদ্যোগ নেওয়া হয়। বিমান বাংলাদেশে করে তারা ফিরলেন। এজন্য আমরা আনন্দিত।’

বাংলাদেশ বিমানসহ স্পেন বাংলা প্রেসক্লাব ও স্থানীয় বাঙালি কমিউনিটিকে ধন্যবাদ জানিয়ে তিনি বলেন, সকলের সহযোগিতায় বাংলাদেশ বিমান মাদ্রিদে অবতরণ করতে পেরেছে।

বাংলাদেশ বিমানের বিশেষ ফ্লাইটটির ব্যাপারে স্পেন বাংলা প্রেসক্লাবকে সহযোগিতা করেছেন স্পেনের প্রবীণ কমিউনিটি নেতা খোরশেদ আলম মজুমদার ও মানবাধিকার সংগঠন ভালিয়েন্তে বাংলা এর সভাপতি মো. ফজলে এলাহী।

খোরশেদ আলম মজুমদার বলেন, ‘সবার মধ্যে যে উৎকণ্ঠা ছিল, বাংলাদেশ বিমান মাদ্রিদে অবতরণ করায় তার অবসান হয়েছে। এজন্য বাংলাদেশ দূতাবাস, বিমান বাংলাদেশ কর্তৃপক্ষ, স্পেন বাংলা প্রেসক্লাব ও স্পেনের বাংলাদেশি কমিউনিটির সবাইকে ধন্যবাদ জানাই।’

ভালিয়েন্তে বাংলার সভাপতি মো. ফজলে এলাহি বলেন, ‘ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করলে যে সুফল পাওয়া যায়, বাংলাদেশ বিমানের এ অবতরণ প্রমাণ করে। বিপাকে পড়া বাংলাদেশিরা স্পেনে ফিরেছেন, এটাই আমাদের আনন্দ।’

স্পেন বাংলা প্রেসক্লাবের সদস্য কবির আল মাহমুদ বলেন, ‘স্পেন বাংলা প্রেসক্লাবের উদ্যোগ হলেও এখানে সকলের সহযোগিতা না হলে এমন কাজ সফল করা দুরূহ। বাংলাদেশ দূতাবাস, বাংলাদেশ বিমান কর্তৃপক্ষসহ সবাইকে আমাদের সংগঠনের পক্ষ থেকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি।’

মাদ্রিদ বারাখাছ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে আগত স্পেন প্রবাসীদের স্বাগত জানাতে কমিউনিটি নেতৃবৃন্দের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েন ইন স্পেনের সাধারণ সম্পাদক কামরুজ্জামান সুন্দর, স্পেন বাংলা প্রেসক্লাবের সভাপতি সাহাদুল সুহেদ, সদস্য কবির আল মাহমুদ, ঢাকা জেলা অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক এসএম মাসুদুর রহমান, ভালিয়েন্তে বাংলার সাধারণ সম্পাদক রমিজ উদ্দিন, আবু জাফর রাসেল, কুলাউড়া ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশন ইন স্পেন এর সভাপতি খায়রুজ্জামান জামান প্রমূখ।

করোনা মহামারির কারণে বাংলাদেশে আটকেপড়া স্পেন প্রবাসীদের প্রত্যাবর্তনে বিশেষ ফ্লাইটের জন্য স্পেন বাংলা প্রেসক্লাবের সিনিয়র সহ সভাপতি বনি হায়দার মান্না সমন্বয়ক হিসেবে কাজ করেন। সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক আফাজ জনি, বাংলাদেশে থাকাকালীন স্পেন প্রবাসী মাসুমের রহমান, আমিনুর রাজ্জাক, ওয়াসিম মিয়াসহ স্পেন বাংলা প্রেসক্লাবের সদস্যরাও কাজ করেছেন।

এদিকে ,আয়োজকদের সহযোগিতায় মাদ্রিদ থেকে বার্সেলোনা প্রবাসীদের জন্য দুটি বাসের ব্যবস্থা করা হয়। দীর্ঘ ৮ ঘণ্টা অতিক্রম করে শনিবার ভোর ৪টা ২০ মিনিটে বাংলাদেশি অধ্যুসিত এলাকা রনদা সান পাওতে পৌঁছৈ তারা। এ সময় যাত্রীদের পরিবারের সদস্য, আত্মীয় স্বজন ও স্পেন বাংলা প্রেসক্লাবের সদস্যসহ কমিউনিটির সদস্যরা উপস্থিত হয়ে যাত্রীদের সঙ্গে কুশলাদি বিনিময় করেন। যাত্রীরাও আনন্দিত হয়ে সবাইকে ধন্যবাদ জানান।

advertisement