advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

ট্রাম্পের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা

অনলাইন ডেস্ক
২৯ জুন ২০২০ ১৮:২৬ | আপডেট: ২৯ জুন ২০২০ ২২:২৩
যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। পুরোনো ছবি
advertisement

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেছে ইরান। বাগদাদে ইরানের সবচেয়ে প্রভাবশালী সামরিক কর্মকর্তা কাশেম সোলাইমানিকে হত্যায় জড়িত উল্লেখ করে ট্রাম্পসহ আরও কয়েকজনকে আটকের জন্য তেহরানের পক্ষ ইন্টারপোলের সহযোগিতা চাওয়া হয়েছে।

আজ সোমবার ইরানের রাষ্ট্র পরিচালিত মিডিয়া তেহরানের কৌঁসুলির বরাত দিয়ে জানায়, জেনারেল সোলাইমানি হত্যার সঙ্গে জড়িত ৩৬ জনকে চিহ্নিত করা হয়েছে। প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এই তালিকার শীর্ষে আছেন এবং তার বিরুদ্ধে মামলা চালানো হবে।

ইরানের কৌঁসুলি আলি আলকাসিমেহর ট্রাম্প ছাড়া অন্য কারও পরিচয় জানাননি। তবে বলেছেন, মার্কিন প্রেসিডেন্টের মেয়াদ শেষ হয়ে গেলে তাকে বিচারের কাঠগড়ায় দাঁড় করানোর জন্য ধারাবাহিক চেষ্টা চালিয়ে যাবে।

তেহরানের পক্ষ থেকে ট্রাম্পসহ অন্যদের বিরুদ্ধে ‘রেড নোটিশ’ জারির অনুরোধ করা হয়েছে। এই রেড নোটিশের দ্বারা সন্দেহভাজন যে দেশে অবস্থান করছে, সে দেশের সরকারকে গ্রেপ্তার বা প্রত্যর্পণে বাধ্য করতে পারে না অভিযোগকারীরা। তবে চাইলে সরকার সন্দেহভঅজনের ভ্রমণ সীমিত করতে পারে।

অনুরোধ পাওয়ার পর ইন্টারপোল কমিটি বৈঠকে বসে এবং আলোচনা করে তথ্যটি সদস্য রাষ্ট্রকে জানানো হবে কি না। রেড নোটিশ প্রকাশ করার বাধ্যবাধকতা নেই সংস্থাটির। তবে কিছু কিছু রেড নোটিশ তাদের ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা হয়।

এই বিষয়ে ফ্রান্সের লিওভিত্তিক ইন্টারপোলের কোনো তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়া জানা যায়নি।

কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরার প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ইরানের অনুরোধে ইন্টারপোলের রেড নোটিশ জারির করার সম্ভাবনা খুব কম। কারণ সংস্থাটির নির্দেশিকায় রাজনৈতিক প্রকৃতির কোনো হস্তক্ষেপ বা কর্মকাণ্ডে ইন্টারপোল জড়িত হতে পারবে না।

বাগদাদ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের কাছে জানুয়ারিতে মার্কিন হামলায় নিহত হন ইরানের বিপ্লবী গার্ডস বাহিনীর কুদস ফোর্সের প্রধান জেনারেল কাশেম সোলাইমানি।

ইরানের প্রসিকিউটর আলি আলকাসিমের সোমবার বলেছেন, ৩ জানুয়ারি জেনারেল কাসেম সোলাইমানি যে হামলায় নিহত হয়েছিলেন সেই হামলার জন্য ট্রাম্প ও অপর ৩০ জনকে দায়ী মনে করে ইরান।

আলকাসিমের ট্রাম্প ছাড়া অন্য কারও পরিচয় জানাননি। তবে বলেছেন, মার্কিন প্রেসিডেন্টের মেয়াদ শেষ হয়ে গেলে তাকে বিচারের কাঠগড়ায় দাঁড় করানোর জন্য ধারাবাহিক চেষ্টা চালিয়ে যাবে।

ইরানের আধা-সরকারি বার্তা সংস্থা আইএসএনএ আলকাসিমেরকে উদ্ধৃত করে আরও জানিয়েছে, তেহরানের পক্ষ থেকে ট্রাম্পসহ অন্যদের বিরুদ্ধে ‘রেড নোটিশ’ জারির অনুরোধ করা হয়েছে। এটিই ইন্টারপোলের গ্রেপ্তার করার জন্য সর্বোচ্চ অনুরোধ। এই রেড নোটিশের ফলে কোনো দেশকে সন্দেহভাজনকে গ্রেপ্তার বা প্রত্যর্পণে বাধ্য করতে পারে না। তবে চাইলে সরকার সন্দেহভাজনের ভ্রমণ সীমিত করতে পারে।

অনুরোধ পাওয়ার পর ইন্টারপোল কমিটি বৈঠকে বসে এবং আলোচনা করে তথ্যটি সদস্য রাষ্ট্রকে জানানো হবে কি না। রেড নোটিশ প্রকাশ করার বাধ্যবাধকতা নেই সংস্থাটির। তবে কিছু কিছু রেড নোটিশ তাদের ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা হয়।

এই বিষয়ে ফ্রান্সের লিওনভিত্তিক ইন্টারপোলের কোনো তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়া জানা যায়নি।

আল জাজিরার খবরে বলা হয়েছে, ইরানের অনুরোধে ইন্টারপোলের রেড নোটিশ জারির করার সম্ভাবনা খুব কম। কারণ সংস্থাটির নির্দেশিকায় রাজনৈতিক প্রকৃতির কোনো হস্তক্ষেপ বা কর্মকাণ্ডে ইন্টারপোল জড়িত হতে পারবে না।

বাগদাদ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের কাছে জানুয়ারিতে মার্কিন হামলায় নিহত হন ইরানের বিপ্লবী গার্ডস বাহিনীর কুদস ফোর্সের প্রধান জেনারেল কাশেম সোলাইমানি।

advertisement