advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

শীর্ষে রিয়াল

ক্রীড়া ডেস্ক
৩০ জুন ২০২০ ০০:০০ | আপডেট: ২৯ জুন ২০২০ ২২:২৫
advertisement

পয়েন্ট টেবিলের তলানির দল এস্পানিওলের বিপক্ষে জিততে শেষ পর্যন্ত ভালোই খাটতে হলো রিয়াল মাদ্রিদকে। অবশ্য লা লিগার আর ৬ ম্যাচ বাকি থাকতে তিন পয়েন্টটাই তো মুখ্য। কাতালুনিয়ায় এসে জয় বাগিয়ে রিয়াল মাদ্রিদ এখন বার্সেলোনার চেয়ে এগিয়ে গেছে ২ পয়েন্টে। এস্পনিওলের মাঠে প্রথমার্ধে দারুণ এক দলগত গোল জয় পাইয়ে দিয়েছে জিনেদিন জিদানের দলকে। তাতে বড় অবদান করিম বেনজেমার, আর কাসেমিরো করেছেন শেষ কাজটা।

এক ম্যাচের নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে দলে ফিরেই জয়ের নায়ক হয়ে গেলেন কাসেমিরো। করোনা ভাইরাসে অনাকাক্সিক্ষত বিরতির পর ‘নতুন রূপে’ ফেরা লিগে এই নিয়ে পাঁচ ম্যাচ খেলে সবকটিতে জিতল রিয়াল। ৩২ ম্যাচে ২১ জয় ও আট ড্রয়ে তাদের পয়েন্ট ৭১। দুইয়ে নেমে যাওয়া বার্সেলোনার পয়েন্ট ৬৯।

প্রতি তিন দিনে একটি করে ম্যাচ-ঠাসা সূচির চাপ যেন পড়তে শুরু করেছে। সেটাই হয়তো ফুটে উঠল এডেন হ্যাজার্ড-ভিনিসিয়াস জুনিয়রদের শরীরি ভাষায়। বল দখলে একচেটিয়া আধিপত্য করলেও রিয়ালের খেলায় ছিল না চেনা ধার। এস্পানিওলের জমাট রক্ষণ ভাঙতে বেশ বেগ পেতে হয়েছে রিয়ালকে।

উল্টো রিয়ালের রক্ষণে অন্তত বার তিনেক ত্রাস ছড়িয়েছে এস্পানিওলের আক্রমণভাগ। প্রতিবার রিয়ালের ত্রাতা হয়ে দাঁড়িয়েছেন গোলরক্ষক থিবো কর্তোয়া। তার কল্যাণেই কোনো গোল হজম করেনি লিগের সর্বোচ্চ ৩৩ শিরোপাজয়ী দলটি। ম্যাচের একমাত্র ও জয়সূচক গোলটি আসে প্রথমার্ধের অতিরিক্ত যোগ করা সময়ে। সতীর্থের ক্রস ডি-বক্সের মধ্যে নিয়ন্ত্রণ নেন করিম বেনজেমা। ব্যাকহিলে পাস দেন ক্যাসেমিরোর উদ্দেশে। ছোট বক্সের সামনে থেকে জালের ঠিকানা খুঁজে নিতে কোনো সমস্যা হয়নি ব্রাজিলিয়ান মিডফিল্ডারের।

রিয়ালের বিপক্ষে ম্যাচের আগের দিন মৌসুমে তৃতীয়বারের মতো কোচ বরাখাস্ত করেছিল এস্পানিওল। স্পোর্টিং ডিরেক্টর থেকে হুট করেই কোচ হিসেবে দায়িত্ব পেয়ে গেছেন ফ্রাঞ্চিস্কো রুফেতে। নিজেও এস্পানিওলের খেলোয়াড় ছিলেন। মাদ্রিদের ক্লাবের বিপক্ষে ম্যাচে কাতালুনিয়ার ঝাঁঝটা তার জানা আছে ভালোই। রুফেতের দল ম্যাচের একেবারে শেষ পর্যন্ত রিয়ালের সঙ্গে লড়াই করে গিয়েছে। এস্পানিওলের চায়নিজ স্ট্রাইকার উ লি দুই অর্ধেই দারুণ দুইটি সুযোগ পেয়েছিলেন। থিবো কোর্তোয়া অবশ্য পুরো সময়ই সতর্ক ছিলেন। আর এক গোলে এগিয়ে থেকেও রিয়াল মাদ্রিদ ডিফেন্ডাররা দ্বিতীয়ার্ধে নিজেদের অভিজ্ঞতার ঝাঁপি খুলে এস্পানিওলকে ভয়ঙ্কর হতে দেননি। এ জয়ের পর ৩২ ম্যাচে ২১ জয় ও ৮ ড্রতে ৭১ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে রিয়াল মাদ্রিদ। সমান ম্যাচে ২১ জয় ও ৬ ড্রতে ৬৯ পয়েন্ট নিয়ে দুই নম্বরে অবস্থান করছে বার্সেলোনা।

advertisement
Evaly
advertisement