advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

করোনা প্রতিরোধ
টিকা ব্যবহার করবে চীনের সেনাবাহিনীও

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
৩০ জুন ২০২০ ০০:০০ | আপডেট: ২৯ জুন ২০২০ ২২:৫২
advertisement

চীনের কোম্পানি ক্যানসিনোর তৈরি করোনা টিকা সেনাসদস্যদের ব্যবহারের অনুমতি দিয়েছে দেশটির সামরিক বাহিনী। হংকংভিত্তিক কোম্পানিটি গতকাল এই তথ্য দিয়েছে। এদিকে কোভিড-১৯ রোগের সম্ভাব্য টিকা আবিষ্কারের পরও যুক্তরাষ্ট্রে করোনার বিরুদ্ধে শক্তিশালী প্রতিরোধক্ষমতা গড়ে তোলা সম্ভব হবে না বলে মন্তব্য করেছেন শীর্ষ মার্কিন মহামারী রোগবিশারদ অ্যান্থনি ফাউচি। খবর জাপান টাইমস ও সিএনএন।

নতুন করোনা ভাইরাসে কোটির ওপর মানুষ আক্রান্ত হয়েছেন। মারা গেছেন পাঁচ লাখের বেশি। কিন্তু গত ছয় মাসে করোনা ভাইরাসটির কোনো টিকা তৈরি করা সম্ভব হয়নি। তবে সারাবিশ্বে অন্তত ১২০টি দল পৃথকভাবে টিকা ও ওষুধ তৈরির চেষ্টা করছে। এদের মধ্যে চীনেই বেশি দল এ কাজে যুক্ত আছে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার স্বীকৃত সম্ভাব্য ১৭ টিকার মধ্যে অর্ধেকের বেশিই চীনা কোম্পানি বা ইনস্টিটিউটের।

ক্যানসিনো জানিয়েছে, চীনের সেন্ট্রাল মিলিটারি কমিশন ২৫ জুন এক বছরের জন্য টিকাটি ব্যবহারের অনুমতি দিয়েছে। পরবর্তী অনুমোদন ছাড়া তা এক বছর পর ব্যবহার করা যাবে না। এই টিকা যৌথভাবে উদ্ভাবন করেছে ক্যানসিনো এবং একাডেমি অব মিলিটারি মেডিক্যাল সায়েন্সের বেইজিং ইনস্টিটিউট অব বায়োটেকনোলজি।

চীনের বিশাল সামরিক বাহিনীতে কীভাবে এই টিকার প্রয়োগ হবে, তা স্পষ্টভাবে জানা যায়নি। দেশটির প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ও এ বিষয়ে কিছু জানায়নি। চীনে ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের প্রথম ও

দ্বিতীয় ধাপ সম্পন্ন করা এই টিকাটি বাজারজাত করার বিষয়ে নিশ্চয়তা দিতে পারেনি।

এদিকে যুক্তরাষ্ট্রের সংক্রামক রোগ বিশেষজ্ঞ অ্যান্থনি ফাউচি বলেছেন, তার ধারণা, করোনার টিকা ৭০ শতাংশ থেকে ৭৫ শতাংশের বেশি কার্যকরী হবে না। জনমত জরিপেও অনেক মার্কিন নাগরিক আভাস দিয়েছেন, তারা করোনা ভাইরাসের টিকা গ্রহণ করবেন না। সব মিলে করোনার বিরুদ্ধে পরিপূর্ণ সুরক্ষা নিশ্চিত করা কঠিন হয়ে পড়বে।

সরকারের সমর্থন নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রে করোনা ভাইরাসের তিনটি টিকা নিয়ে গবেষণা চলছে। আগামী তিন মাসে এগুলো নিয়ে বড় আকারে ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের আশা করা হচ্ছে।

গত মাসে সিএনএনের এক জরিপে দেখা যায়, এক-তৃতীয়াংশ মার্কিনি বলেছেন, তারা কোভিড-১৯ প্রতিরোধের জন্য সহজে ও কম দামে টিকা পাওয়া গেলেও তা তারা নেওয়ার চেষ্টা করবেন না।

advertisement