advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

ভার্চুয়াল আদালত অনির্দিষ্টকাল নয়

নিজস্ব প্রতিবেদক
১ জুলাই ২০২০ ০০:০০ | আপডেট: ৩০ জুন ২০২০ ২৩:৫৩
advertisement

স্বাস্থ্যবিধি মেনে আদালতের স্বাভাবিক কার্যক্রম শুরু করার জন্য প্রধান বিচারপতির প্রতি অনুরোধ জানিয়েছেন বাংলাদেশ বার কাউন্সিলের সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান ও সুপ্রিমকোর্ট আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি জ্যেষ্ঠ আইনজীবী খন্দকার মাহবুব হোসেন। গতকাল মঙ্গলবার রাজধানীর বসুন্ধরায় নিজ বাস ভবনে এক সংবাদ সম্মেলন করে তিনি

বলেন, ‘অনির্দিষ্টকালের জন্য ভার্চুয়াল আদালত চলতে পারে না। দেশের বিচারব্যবস্থা স্বাভাবিক গতিতে না চলায় বিচারপ্রার্থী ও আইনজীবীরা সংকটে পড়েছেন।’

খন্দকার মাহবুব হোসেন বলেন, ‘দেশে করোনা মহামারীর কারণে গত ২৬ মার্চ সুপ্রিমকোর্ট বন্ধ ঘোষণা করা হয়। এর ফলে দেশে বিচারব্যবস্থায় স্থবিরতা চলে আসে। এ পরিস্থিতিতে গত ১১ মে ভার্চুয়াল কোর্ট চালুর বিধান আসে, যার আওতায় আইনজীবীরা সংশ্লিষ্ট আদালতে অনলাইনের মাধ্যমে মামলা দাখিলের নির্দেশনা পান। আর হাইকোর্ট বিভাগে বিভিন্ন ধরনের মামলা পরিচালনার জন্য ১৩টি বেঞ্চ গঠন করা হয়। এসব বেঞ্চে শুধু জরুরি মামলা গ্রহণের সিদ্ধান্ত হয়। অথচ করোনা মহামারীর আগ থেকে হাইকোর্টের হাজার হাজার মামলা নিষ্পত্তির অপেক্ষায় ছিল এবং প্রতিদিন শত শত নতুন মামলা দায়ের হতো। ফলে আদালতের স্বাভাবিক বিচারকাজ বন্ধ হওয়ার ফলে আইনজীবী ও বিচারপ্রার্থীরা এক নিদারুণ অস্বাভাবিক পরিস্থিতির সম্মুখীন হয়, যা কিনা ইতোমধ্যে চরম আকার ধারণ করেছে।’

জ্যেষ্ঠ এ আইনজীবী বলেন, ‘ডিজিটাল পদ্ধতিতে ভার্চুয়াল কোর্টে স্বাভাবিক সীমাবদ্ধতার কারণে মামলার নিষ্পত্তির ক্ষেত্রে হতাশাব্যঞ্জক অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে। প্রতিদিন শত শত ফৌজদারি মামলাসহ বিভিন্ন মামলা অনলাইনে শুনানির জন্য দাখিল করা হয়। এর কোনো ক্রমিক নম্বর সংশ্লিষ্ট আদালত থেকে আইনজীবীদের দেওয়া হয় না। ফলে মামলা শুনানির ক্ষেত্রে তারা এক অজ্ঞাত পরিস্থিতির শিকার হন।’ তিনি আরও বলেন, ‘ভার্চুয়াল কোর্টের আগাম জামিনের কোনো সুযোগ নেই। ফলে দেশের সর্বত্র প্রতিদিন যে শত শত মামলা দায়ের হয়, যার বেশিরভাগই আক্রোশমূলক, সেসব মামলার আসামিরা গ্রেপ্তারের হাত থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য ঘর ছাড়া হচ্ছেন।’

advertisement