advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

বঙ্গবন্ধুর নামেই সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ

ক্রীড়া প্রতিবেদক
৩ জুলাই ২০২০ ০০:০০ | আপডেট: ২ জুলাই ২০২০ ২৩:৩৮
advertisement

কয়েক দিন আগে সাউথ এশিয়ান ফুটবল ফেডারেশনের (সাফ) এক ভার্চুয়াল সভা শেষে জানানো হয়Ñ এ বছর হচ্ছে না সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের আসর। আগামী বছর হবে সাউথ এশিয়ান ফুটবলের সেরা টুর্নামেন্ট। আগামী সেপ্টেম্বরে টুর্নামেন্টের সূচির ব্যাপারে সভায় চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। এবার সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ হবে বাংলাদেশে মাটিতে। এর আগে ২০১৮ সালে এ টুর্নামেন্টও হয়েছিল বাংলাদেশেই। তবে আগামী বছরের কখন মাঠে গড়াতে পারে সাফ চ্যাম্পিয়নশিপÑ এ ব্যাপারে আগাম কিছুই বলতে পারছেন না সাউথ এশিয়ান ফুটবল ফেডারেশনের সভাপতি কাজী সালাউদ্দিন। তিনি আমাদের সময়কে বলেছেন, পরিস্থিতি কোন দিকে যায় তা কেউই বলতে পারবে না। করোনা ভাইরাসের কারণেই টুর্নামেন্ট পিছিয়ে দেওয়া হয়েছে। যদি পরিস্থিতি অনুকূলে চলে আসে তা হলে দিনক্ষণ নির্ধারণ করা যাবে। সব কিছুই নির্ভর করছে পরিস্থিতির ওপর।

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে চলতি বছরের সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ বঙ্গবন্ধুর নামেই আয়োজন করার কথা ছিল। এ জন্য নানা আয়োজনের উদ্যোগ নেওয়ার কথা জানায় বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন (বাফুফে)। কিন্তু সব কিছুই ভেস্তে গেছে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণের কারণে। দেশে দিন দিন বাড়ছে এ ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা। এর প্রভাব পড়ছে সর্বত্র। গত মার্চ থেকে দেশে খেলাধূলা বন্ধ রয়েছে। সব ধরনের আয়োজন স্থগিত। পরিত্যক্ত হয়েছে দেশের ফুটবলের সবচেয়ে প্রতিযোগিতা পেশাদার লিগ। সামনে কবে আবার মাঠে ফিরবে খেলাÑ সেটি এখনো নিশ্চিত করে বলা যাচ্ছে না। কাজী সালাউদ্দিনও তাই বলতে পারছেন না সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের খেলা কবে মাঠে গড়াবে। তবে তিনি জানান, বঙ্গবন্ধুর নামেই হবে সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ আসর। তিনি বলেন, ‘আমরা সর্বোচ্চ চেষ্টা করব বঙ্গবন্ধুর নামে টুর্নামেন্টটি আয়োজন করার। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকীর জন্য আমরা এ আসরটির আয়োজক হয়েছি। আমরা বঙ্গবন্ধুর নামেই সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ করতে চাই।’ আগামী সেপ্টেম্বরের ১৯ থেকে ৩০ তারিখ পর্যন্ত টুর্নামেন্টটির সূচি ছিল। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে টুর্নামেন্টটিকে ঘিরে অনেক আয়োজন ছিল। কিন্তু করোনায় পিছিয়ে দিয়েছে সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ। এরই মধ্যে দ্বিতীয় মেয়াদে বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবল দলের প্রধান কোচের দায়িত্ব নিয়েছেন জেমি ডে। ইংলিশ এই কোচের আপাতত লক্ষ্যÑ জাতীয় দলের সামনে বিশ্বকাপ ও এএফসি বাছাই পর্বের ৪টি ম্যাচ রয়েছে। নতুন করে সূচি হয়েছে ম্যাচগুলোর। এ দিকেই তাকিয়ে আছেন জেমি। তবে তার সদূরপ্রসারী পরিকল্পনাÑ বাংলাদেশকে একটি শিরোপা এনে দেওয়ার। বাংলাদেশের ফুটবলকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন তিনি। সাফল্যও আসছে। তবে শিরোপা আসেনি জেমির অধীনে। তাই একটি শিরোপার জন্য অধীর আগ্রহে আছেন ইংলিশ কোচ। সাফের ট্রফির দিকেই বিশেষ নজর তার। বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপের শিরোপার দিকেও দৃষ্টি রয়েছে। যে করেই হোক বাংলাদেশকে শিরোপা জেতাতে চাইবেন জেমি। তার অধীনে এগিয়ে যাবে দেশের ফুটবলÑ এমন প্রত্যাশায় ফুটবলপ্রেমীরা। এদিকে সাফের বয়সভিত্তিক পুরুষ ও নারী ফুটবলের কয়েকটি টুর্নামেন্টও চলতি বছর অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা। কিন্তু সেগুলো হবে কিনাÑ এ নিয়ে শঙ্কা রয়েছে। পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হলে এ টুর্নামেন্টগুলোও পিছিয়ে যাবে। আগামী সেপ্টেম্বরে সাফের সভায় এ টুর্নামেন্টগুলোর ভাগ্য নির্ধারণ হবে। সব কিছু নির্ভর করছে পরিস্থিতির ওপরই। যদি টুর্নামেন্ট আয়োজন করার সম্ভব হয়Ñ এ বছরের শেষের দিকে আয়োজন করা হতে পারে। চলতি বছরের মাঠে না গড়ালে টুর্নামেন্টের খেলা পিছিয়ে যাবে আগামী বছর।

advertisement