advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

একদিনেই রাজশাহী নগরীতে আক্রান্ত ৮৫

আমাদের সময় ডেস্ক
৩ জুলাই ২০২০ ০০:০০ | আপডেট: ৩ জুলাই ২০২০ ০০:০২
advertisement

বিভাগীয় শহর, জেলা ও উপজেলায় করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ দ্রুত ঘটছে। প্রতিদিনই আক্রান্ত হচ্ছেন সরকারি ও বেসরকারি কর্মকর্তা, পুলিশ, চিকিৎসক, স্বাস্থ্যকর্মীসহ সাধারণ মানুষ। বাড়ছে করোনায় মৃতের সংখ্যাও। গত ২৪ ঘণ্টায় রাজশাহী জেলায় একদিনে রেকর্ড ১০৬ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। তাদের মধ্যে রাজশাহী সিটিতেই আক্রান্ত হয়েছেন ৮৫ জন। বরিশাল বিভাগে করোনা রোগীর সংখ্যা ৩ হাজার ছাড়িয়ে গেছে। এ ছাড়া গত ২৪ ঘণ্টায় বগুড়ায় ৭৩, যশোরে ৬০, চাঁদপুরে ৫২, নারায়ণগঞ্জে ৪৯ ও টাঙ্গাইলে ৩২, গোপালগঞ্জে ২৭, ঝিনাইদহে ২৭, মানিকগঞ্জে ২৭, দিনাজপুরে পুলিশ কর্মকর্তাসহ ২৫, নড়াইলে ২৩, গাইবান্ধায় ৮ ও নাটোরে নার্সসহ ৭ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। নিজস্ব প্রতিবেদক ও প্রতিনিধিদের পাঠানো খবরÑ

রাজশাহী : জেলায় কোভিড-১৯ শনাক্তের সংখ্যা প্রতিদিনই রেকর্ড গড়ছে। গত বুধবার সর্বাধিক রোগী শনাক্ত হয়েছিল ৬৯ জন। আর গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় এক লাফে সর্বাধিক ১০৬ জনের করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ শনাক্ত হয়। ‘হটস্পট’ হয়ে ওঠা রাজশাহী সিটি করপোরেশনে এক দিনে আক্রান্ত হয়েছেন সর্বাধিক ৮৫ জন। এর মধ্যে পুলিশ, কারাগারের কর্মকর্তা, স্বাস্থ্যকর্মীসহ নানা পেশার মানুষ রয়েছেন। গতকাল বেলা সাড়ে ১১টায় রাজশাহী জেলা সিভিল সার্জন মোহা. এনামুল হক এ তথ্য জানান।

বরিশাল : জেলায় করোনা আক্রান্ত মানুষের সংখ্যা ৩ হাজার ছাড়াল। গত বুধবার রাত পর্যন্ত বিভাগের ৬ জেলায় নতুন করে ৯৫ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে বিভাগে মোট রোগী দাঁড়াল ৩ হাজার ৮ জন। তাদের মধ্যে মারা গেছেন ৬৫ জন।

বগুড়া : জেলায় করোনা শনাক্তের ৯২তম দিনে সংক্রমিত মানুষের সংখ্যা ৩ হাজার ছাড়িয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় জেলার সরকারি-বেসরকারি দুটি মেডিক্যাল কলেজের দুটি ও ঢাকার একটি আরটি-পিসিআর ল্যাবরেটরিতে পরীক্ষায় নতুন করে ৭৩ জনের সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে গতকাল বেলা ১১টা পর্যন্ত জেলায় করোনা শনাক্তের সংখ্যা ৩ হাজার ৫২। জেলায় ২৪ ঘণ্টায় এক কোভিড রোগীর মৃত্যু হয়। সরকারি হিসাবে, এ নিয়ে মৃত্যুর সংখ্যা ৫৩।

যশোর : গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ৬০ জন করোনা ভাইরাসের রোগী শনাক্ত হওয়ার মধ্য দিয়ে জেলায় আক্রান্তের সংখ্যা সাতশ ছাড়িয়েছে। বৃহস্পতিবার সকালে জেলার সিভিল সার্জন শেখ আবু শাহীন এ কথা জানান। যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষাগারের মুখপাত্র ড. শিরিন নিগার বলেন, গত ২৪ ঘণ্টায় তাদের ল্যাবরেটরিতে ২৪১ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ৬২ জনের শনাক্ত হয়। যশোরের এ নিয়ে জেলায় মোট করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ৭০২।

চাঁদপুর : চাঁদপুরে একদিনে ঢাকা থেকে আগত ৮৮ রিপোর্টের মধ্যে ৫২ জনের করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে জেলায় আক্রান্তের সংখ্যা এখন ৯৭১। অপরদিকে বুধবার পর্যন্ত মৃতের সংখ্যা ছিল ৬০। নতুন আক্রান্তদের মধ্যে চাঁদপুর সদরে ৩২ জন, হাইমচরে ২, মতলব দক্ষিণে ৪, ফরিদগঞ্জে ৯ ও হাজীগঞ্জে ৫ জন রয়েছেন।

নারায়ণগঞ্জ : জেলায় গত ২৪ ঘণ্টায় ৪৯ জন করোনা ভাইরাসের রোগী শনাক্ত করা হয়েছে। এ নিয়ে জেলায় মোট আক্রান্ত এখন ৫২১৮ জন। তাদের মধ্যে মোট মৃত্যু ১১৪ জনের, আর সুস্থ হয়েছেন ৩ হাজার ৫৭৪ জন।

টাঙ্গাইল : টাঙ্গাইলে প্রতিদিন বাড়ছে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা। নতুন করে আরো ৩২ জন আক্রান্ত হয়েছেন। এ নিয়ে জেলায় মোট আক্রান্ত ৬৬৯ জনে। নতুন আক্রান্তদের মধ্যে সদর উপজেলায় ৮ জন, মির্জাপুরে ১৮, ঘাটাইলে ১, সখীপুরে ১, ধনবাড়িতে ১,  কালিহাতীতে ২ ও গোপালপুর উপজেলায় ১ জন রয়েছে। বৃহস্পতিবার দুপুরে সিভিল সার্জন ডা. মোহাম্মদ ওয়াহিদুজ্জামান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। নতুন আক্রান্তদের মধ্যে জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সিনিয়র সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রয়েছেন। এ ছাড়া মির্জাপুর উপজেলার জনতা ব্যাংকের এক অফিসার আক্রান্ত হয়েছেন। 

বান্দরবান : রোয়াংছড়ি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাসহ (ওসি) জেলায় নতুন করে আরো ১৭ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। বুধবার কক্সবাজার ল্যাবে করোনা পরীক্ষার রিপোর্ট প্রকাশের পর তাদের করোনা পজিটিভ হয়। বান্দরবান সিভিল সার্জন ডাক্তার অং সুই প্রু মার্মা এ তথ্য জানান। এ নিয়ে জেলায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা ২৮৫।

ধামইরহাট (নওগাঁ) : উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের দুই স্বাস্থ্যকর্মীসহ নতুন ১২ জনের দেহে করোনা শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে ধামইরহাট উপজেলায় করোনা রোগী সংখ্যা এখন ২২। সুস্থ হয়েছেন ৮ জন।

মহেশপুর (ঝিনাইদহ) : মহেশপুরে আরও একজন করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছেন। এ নিয়ে এ উপজেলায় আক্রান্তের সংখ্যা ১৭। নতুন করে আক্রান্ত ব্যক্তি মহেশপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ভারপ্রাপ্ত স্টোর কিপার ফারুক হেসেন।

বাঞ্ছারামপুর (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) : করোনা আক্রান্ত স্থানীয় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সিনিয়র স্টাফ নার্স মো. জহিরুল ইসলাম গতকাল সকালে মৃত্যুবরণ করেন। তিনি এগারো দিন আগে ঢাকার মুগদা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি হন এবং সেখানেই তার মৃত্যু হয়। জহিরুল ইসলামের বাড়ি কুমিল্লার তিতাস উপজেলার নাগেরচর-দুর্গাপুর গ্রামে।

advertisement
Evaly
advertisement