advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

বিতর্কিত নির্বাচন পুতিন ক্ষমতায় থাকছেন ২০৩৬ পর্যন্ত

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
৩ জুলাই ২০২০ ০০:০০ | আপডেট: ৩ জুলাই ২০২০ ০০:১৮
advertisement

রাশিয়ার সংবিধান অনুযায়ী একজন ব্যক্তি টানা দুই মেয়াদের বেশি প্রেসিডেন্ট পদে থাকতে পারেন না। এ বিষয়ে সংবিধান সংশোধন করতে এই করোনার মহামারীর মধ্যেই নির্বাচন দেন ভøাদিমির পুতিন। নির্বাচনে রাশিয়ার জনগণ সংবিধান সংশোধনের পক্ষে মত দিয়েছেন। এর অর্থ হলো পুতিনের আগামী ২০৩৬ সাল পর্যন্ত ক্ষমতায় থাকার পথ প্রশস্ত হলো। খবর বিবিসি।

রুশ প্রেসিডেন্ট সম্প্রতি দেশের সংবিধান সংশোধনের খসড়ায় স্বাক্ষর করেন। সম্প্রতি পার্লামেন্টে পাস হওয়া সেই প্রস্তাবের ওপর সাত দিনব্যাপী ভোট গ্রহণ গত বুধবার শেষ হয়। নির্বাচনের ফলে দেখা যায়, ৯৯ শতাংশ ভোট গণনার পর দেখা গেছে সংবিধান সংশোধনের পক্ষে ভোট দিয়েছে ৭৭.৯৩ শতাংশ মানুষ। আর বিপক্ষে পড়েছে ২১.২৬ শতাংশ ভোট। নির্বাচন কমিশনের হিসাব অনুযায়ী, ভোট প্রদানের হার ৬৪.৯৯।

এই খসড়া অনুমোদন পাওয়ায় পুতিন ২০২৪ সালে অনুষ্ঠেয় পরবর্তী প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে পারবেন। সেই সঙ্গে ২০৩০ সালের নির্বাচনেও তার অংশগ্রহণের পথ সুগম হবে। সে ক্ষেত্রে তার ২০৩৬ সাল পর্যন্ত ক্ষমতায় থাকার পথ খুলে যাবে।

পুতিন এখন পর্যন্ত প্রকাশ্যে ২০২৪ সালের পরবর্তী নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতার ঘোষণা দেননি। তার মতে, এই সুযোগ থাকা জরুরি। চলতি সপ্তাহে এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেছেন, অন্যথায় আমি জানি দুই বছরের মধ্যে রাষ্ট্রের সব পর্যায়ে স্বাভাবিক কার্যক্রম বন্ধ হয়ে গিয়ে সবার চোখ সম্ভাব্য উত্তরসূরি খোঁজা শুরু করবে। সংবিধান সংশোধনের নতুন প্রস্তাবে ২০৩৬ সাল পর্যন্ত পুতিনের ক্ষমতায় থাকার পথ সুগম হওয়ার পাশাপাশি এতে দেশের শীর্ষ বিচারক ও প্রসিকিউটর মনোনীত করার সুযোগ পাবেন প্রেসিডেন্ট। তবে এই মনোনয়ন পার্লামেন্টের উচ্চকক্ষে অনুমোদিত হতে হবে।

উল্লেখ্য, রাশিয়ার সরকারবিরোধী মত কঠোরভাবে দমন করা হয় এবং বিরোধী দলের নেতাদের নানা দমনপীড়নের মুখোমুখি হতে হয়।

advertisement