advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

শ্রীদেবি-মাধুরিদের গুরু সারোজ খান আর নেই

বিনোদন ডেস্ক
৩ জুলাই ২০২০ ১১:৪৫ | আপডেট: ৩ জুলাই ২০২০ ১৪:৩৭
মাধুরি ও সারোজ খান
advertisement

ভারতীয় নৃত্যে প্রথিতযশা শিল্পীদের মধ্য অন্যতম সারোজ খান মারা গেছেন। গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন মাধুরী-শ্রীদেবিদের এই গুরু।

বলিউডের অসংখ্য সুপারহিট সিনেমার আলোড়ন তোলা গানে- নৃত্য নির্দেশক বা কোরিওগ্রাফার ছিলেন সারোজ খান। বিশেষ করে ‘এক দো তিন’, ‘মেরে পিয়া ঘার আয়া’, ‘ডোলারে ডোলা’, ‘মার ডালা’ গানে তার নির্দেশনা ছিল অনবদ্য।

বলিউডের তাবড় তাবড় অভিনেত্রীরা তাকে গুরু হিসেবে মানতেন। বর্তমান সময়কার জনপ্রিয় নারী কোরিয়োগ্রাফার ফারাহ খান, গীতা কাপুরও ছিলেন সারোজ খানের সান্যিধ্যে।

গত ১৭ জুন হাসপাতালে ভর্তি হন সারোজ খান। মাঝে কিছুটা সুস্থও হয়েছিলেন। হাসপাতালে ভর্তির পর তার করোনাভাইরাসের নমুনা পরীক্ষা করা হয়। রিপোর্ট নেগেটিভ আসে। তবে তার শ্বাসকষ্ট ছিল। চিকিৎসাধীন অবন্থায় গতকাল রাত ১টা ৫২ মিনিটে তিনি মারা যান।

সামাজিকমাধ্যম টুইটারে এ খবর প্রকাশ করেন অক্ষয় কুমারসহ বেশ কয়েকজন তারকা। এ ছাড়া ভারতীয় সংবাদমাধ্যমগুলো পরিবর্তীতে সারোজের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করে।

১৯৪৮ সালের ২২ নভেম্বর মুম্বাই শহরে জন্ম সারোজ খানের। তিনি স্বামী, ছেলে এবং দুই মেয়ে রেখে গেছেন।

সারোজ খানের ক্যারিয়ার

১৯৫০’র দশকে মাত্র তিন বছর বয়সে শিশু নৃত্যশিল্পী হিসেবে বলিউডে যাত্রা শুরু করেন নির্মলা নাগপাল তথা সারোজ খান। তৎকালীন প্রখ্যাত কোরিওগ্রাফার বি সোহনলালের সঙ্গে তিনি কাজ করেছেন দীর্ঘদিন। ১৯৭৪ সালে ‘গীতা মেরা নাম’ ছবি দিয়ে বলিউডের সিনেমায় কোরিওগ্রাফার হিসেবে যাত্রা শুরু করেন সারোজ।

১৯৮৭ সালে ‘মিস্টার ইন্ডিয়া’, ১৯৮৬ সালের ‘নাগিন’, ১৯৮৯ সালে ‘চাঁদনি’, ১৯৮৮ সালে ‘তেজাব’ এবং ১৯৯০ সালে ‘থানেদার’ সিনেমায় কোরিয়াগ্রাফি তাকে উচ্চতায় পৌঁছে দেয়।

বলিউডি সিনেমার আধুনিক যুগের নিজের জায়গায় পোক্ত ছিলেন সারোজ খান। ‘দিলওয়ালে দুলহানিয়া লে জায়েঙ্গে’, ‘হাম দিল দে চুকে সানম’, ‘দেবদাস’, ‘জাব উই মেট’ সিনেমায়ও নৃত্য পরিচালনা করেন তিনি।

শ্রীদেবী, মাধুরী দীক্ষিত, ঐশ্বরিয়া, কারিনা কাপুর খানের মতো তারকাদের সঙ্গে কাজ করেছেন কিংবদন্তি এই নৃত্য নির্দেশক। সর্বশেষ কাজ করেন মাধুরীর ‘কলঙ্ক’ সিনেমায়। ‌‘তাবাহ হো গায়ি’ গানটির নাচের জন্য মাধুরির বিশেষ অনুরোধে কাজ করেন সারোজ খান।

বেশ কয়েকটি ডান্স রিয়েলিটি শো’য়ে কাজ করেছেন সারোজ। তিনি ‘ভারতনাট্যম’ থেকে শুরু করে নাচের সব কটি মুদ্রা জানতেন।

বলিউড নাউ’র খবরে জানা গেছে, এমন একটা সময় ছিল ভারতীয় শিল্পীরা সরোজ খান ছাড়া অন্য কাউকে কোরিয়োগ্রাফার হিসেবে চাইতেন না।

সারোজ খানের সবচেয়ে বড় বিতর্ক ছিল সালমান খানের প্রসঙ্গে। ‘আন্দাজ আপনা আপনা’ সিনেমায় তাকে বলিউড থেকে বের করে দেওয়ারও হুমকি দিয়েছিলেন সালমান। এ নিয়ে তার প্রতি বেশ বিরক্ত ছিলেন সারোজ।

advertisement