advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

সাংবাদিকদের চাকরিচ্যুতি অমানবিক

চট্টগ্রাম ব্যুরো
৪ জুলাই ২০২০ ০০:০০ | আপডেট: ৩ জুলাই ২০২০ ২৩:২৪
advertisement

ঢাকার পর চট্টগ্রামেও প্রধানমন্ত্রী প্রতিশ্রুত করোনাকালীন সহায়তার চেক পেলেন সাংবাদিকরা। শুক্রবার বিকালে চট্টগ্রাম প্রেসক্লাব মিলনায়তনে ১৩৬ সাংবাদিকের হাতে চেক তুলে দেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ। এর বাইরেও এ সময় চট্টগ্রামের ২৫ সাংবাদিককে বাংলাদেশ সাংবাদিক কল্যাণ ট্রাস্টের নিয়মিত সহায়তার চেক তুলে দেওয়া হয়েছে।

চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়ন আয়োজিত এ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তথ্যমন্ত্রী বলেন, করোনায় সারা বিশ্ব যখন পর্যুদস্ত, তখন শুরু থেকেই বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী জনগণের শারীরিক সুরক্ষার পাশাপাশি খেটে খাওয়া ২০ শতাংশ দরিদ্র মানুষের জন্য ত্রাণ তৎপরতা শুরু করেছেন। অনেক বিশেষজ্ঞ এ সময় করোনা নিয়ে নানা মতামত দিয়েছেন; কিন্তু সকলের মতামত ভুল প্রমাণ হয়েছে। বাংলাদেশে গেল সাড়ে তিনমাসে একজন মানুষও না খেয়ে মৃত্যুবরণ করেনি। অনেকে আশা করেনি এরকম সরকারি সাহায্য দেওয়া হবে। বাংলাদেশে ৭ কোটি মানুষ সরাসরি ত্রাণ সহায়তা পেয়েছে।

করোনাকালীন কঠিন সময়ে সাংবাদিকদের চাকরিচ্যুতিকে অমানবিক উল্লেখ করেন তথ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন, অনেক চ্যালেঞ্জের মধ্যে আমরা নবম ওয়েজ বোর্ড ঘোষণা করেছি; কিন্তু সম্পাদকরা তা বাস্তবায়নে এগিয়ে আসেননি, যা দুঃখজনক। করোনা আসার পর আমরা অনুরোধ করে আসছিলামÑ পাওনা পরিশোধ করা আর চাকরিচ্যুতি না করার ব্যাপারে। মালিকরা বলছেন নিজেদের অসুবিধার কথা; কিন্তু মালিকদের শুধু অসুবিধা না, করোনা পরিস্থিতিতে সুবিধাও আছে। কারণ আগের চেয়ে অনেক কম পত্রিকা ছাপাতে হচ্ছে। যার কারণে ছাপা না হওয়া পত্রিকার প্রতি কপিতে ১৫ থেকে ২০ টাকা বাড়তি ভর্তুকি দিতে হচ্ছে না। এতকিছুর পরও মানবিকতা না দেখানো দুঃখজনক। মানবিকভাবে বিবেচনা করলেই সব সমস্যা সমাধান হয়ে যেতো।

চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি মোহাম্মদ আলীর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক ম. শামসুল ইসলামের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের (বিএফইউজ) সহসভাপতি রিয়াজ হায়দার চৌধুরী, চট্টগ্রাম প্রেসক্লাব সভাপতি আলহাজ আলী আব্বাস, ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি কুদ্দুস আফ্রাদ, চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক চৌধুরী ফরিদ, বিএফইউজের যুগ্ম মহাসচিব মহসীন কাজী প্রমুখ।

করোনাকালীন সহায়তার চেকে প্রতিজনকে ১০ হাজার টাকা করে অর্থ সহায়তা দেওয়া হয়েছে। আর বাংলাদেশ সাংবাদিক কল্যাণ ট্রাস্ট্রের চেকে চট্টগ্রামের ২৫ সাংবাদিক ৫০ হাজার টাকা থেকে সর্বোচ্চ দুই লাখ টাকা পর্যন্ত পেয়েছেন।

advertisement
Evaly
advertisement