advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

উপসর্গ নিয়ে বিএনপি নেতাসহ মৃত্যু ১৪ জনের

আমাদের সময় ডেস্ক
৪ জুলাই ২০২০ ০০:০০ | আপডেট: ৩ জুলাই ২০২০ ২৩:৩৬
advertisement

গত ২৪ ঘণ্টায় করোনার উপসর্গ নিয়ে বিএনপি নেতা, কলেজশিক্ষক ও ব্যাংক কর্মকর্তাসহ আরও ১৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে সিলেটে মারা গেছেন বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা এমএ হক। আর রাজশাহীতে মারা গেছেন ব্যাংক কর্মকর্তাসহ তিনজন। এ ছাড়া চাঁদপুরে ৩ ও চট্টগ্রামের রাউজানে ১ জনের মৃত্যু হয়। তাদের সবার নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য ল্যাবে পাঠানো হয়েছে। নিজস্ব প্রতিবেদক ও প্রতিনিধিদের পাঠানো খবরÑ

সিলেট : জ্বর ও শ্বাসকষ্ট নিয়ে বিএনপির চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা এমএ হক মারা গেছেন। শুক্রবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে সিলেটের নর্থ ইস্ট

হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়। এমএ হক সিলেটের রাজনৈতিক অঙ্গনে একজন পরিচিত মুখ ছিলেন। তিনি বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা হিসেবে দায়িত্ব পালন করছিলেন। এর আগে তিনি সিলেট মহানগর বিএনপির সভাপতি ও কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক (সিলেট বিভাগ) পদে দায়িত্ব পালন করেন।

কুমিল্লা : কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালেন করোনা ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় করোনা আক্রান্ত ২ জন ও উপসর্গ নিয়ে ৬ জনের মৃত্যু হয়। তাদের মধ্যে ৫ জন পুরুষ ও ৩ জন নারী। হাসপাতালের সহকারী সার্জন ডা. মুক্তা রানি ভূইয়া জানান, করোনায় আক্রান্ত হয়ে ২ জন এবং জ্বর, সর্দি ও শ্বাসকষ্টসহ করোনা উপসর্গ নিয়ে ৬ জন হাসপাতালের করোনা ইউনিটে ভর্তি ছিলেন।

রাজশাহী : রাজশাহীতে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে নিউ গভ. ডিগ্রি কলেজের শিক্ষকসহ দুজন এবং উপসর্গ নিয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন ব্যাংক কর্মকর্তাসহ আরও তিনজন। গত বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৮টা থেকে ভোর ৪টার মধ্যে তাদের মৃত্যু হয়। রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ (রামেক) হাসপাতাল সূত্রে এসব তথ্য পাওয়া গেছে। করোনায় মৃতরা হলেনÑ মহানগরীর শাহমখদুম থানার জিয়াপার্ক এলাকার সেলিম মৃধা ও রাজশাহী নিউ গভ. ডিগ্রি কলেজের ভূগোল বিভাগের প্রধান মাহাবুবে খোদা। উপসর্গ নিয়ে মৃতরা হলেনÑ রাজশাহী কৃষি উন্নয়ন ব্যাংকের প্রিন্সিপাল অফিসার মহানগরীর মহিষবাথান এলাকার এখলাসুর রহমান, নগরীর রামচন্দ্রপুর এলাকার আশরাফ আলীর স্ত্রী শামীমা বেগম ও তেরোখাদিয়া এলাকার মেরাজুল ইসলাম।

চাঁদপুর : হাইমচরে করোনা সংক্রমিত হয়ে ছেলে মারা যাওয়ার ১০ ঘণ্টা পর তার মা করোনার উপসর্গ জ্বর ও শ্বাসকষ্টে মারা যান। গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৬টায় নিজ বাড়িতে তার মৃত্যু হয়। এ ছাড়া চাঁদপুর সদর হাসপাতালের কোভিড-১৯ আইসোলেশনে গতকাল শুক্রবার সকালে দুজনের মৃত্যু হয়। দুজনই ফরিদগঞ্জ উপজেলার বাসিন্দা। একজনের বয়স ৭১ ও আরেকজনের ৬০ বছর। তারা জ্বর ও শ্বাসকষ্ট নিয়ে ভর্তি হয়েছিলেন।

রাউজান : করোনা উপসর্গ নিয়ে কাপ্তাই উপজেলায় অংসুইউ মারমা নামে চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (চুয়েট) এক টেকনিশিয়ানের মৃত্যু হয়। অংসুইউ মারমা ওই উপজেলার ৩ নম্বর চিৎমরম ইউনিয়নের বামনি বটতলীপাড়ার বাসিন্দা। করোনা উপসর্গ নিয়ে বৃহস্পতিবার রাতে তিনি মারা যান। বেশ কিছুদিন থেকে তিনি জ্বর, সর্দি-কাশিতে ভুগছিলেন।

advertisement
Evaly
advertisement