advertisement
advertisement

বিয়ের ১৪ বছর পর যৌতুক দাবি, না পেয়ে স্ত্রীর শরীরে আগুন!

কাহালু (বগুড়া) প্রতিনিধি
৪ জুলাই ২০২০ ২৩:১২ | আপডেট: ৪ জুলাই ২০২০ ২৩:১২
আবুল কালাম আজাদ
advertisement

বগুড়ার কাহালু উপজেলায় যৌতুকের টাকা না পেয়ে স্ত্রীর শরীর আগুনে ঝলসে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে আবুল কালাম আজাদ (৩৫) নামে এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে। উপজেলার বাথই কাজীপাড়া থেকে তাকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

আজাদ উপজেলার জয়তুল গ্রামের বাসিন্দা। তার বাবার নাম তোজাম্মেল হোসন। আজ শনিবার দুপুরে কাহালু থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. জিয়া লতিফুল ইসলাম এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

জানা গেছে, কাহালু উপজেলার সদর ইউনিয়নের আবুল কালাম আজাদের সঙ্গে একই জেলার পাইকড় ইউনিয়নের খিয়ার ভুগইল গ্রামের রুজিনা বেগমের ১৪ বছর আগে বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে আবুল কালাম আজাদ রুজিনার কাছে যৌতুক হিসেবে টাকা দাবি করেন। রুজিনার বাবা আব্দুর রহমান মেয়ের সুখের কথা চিন্তা করে আজাদকে ২ লাখ টাকা দেন।

পরবর্তীতে আজাদ বিভিন্ন সময় তার স্ত্রীকে যৌতুকের টাকা আনতে বলেন। রুজিনা যৌতুক বাবদ আর টাকা দিতে পারবে না বলে জানালে আজাদ তাকে শরীরিক ও মানসিকভাবে নির্যাতন করছিলেন। গত ৩০ জুন সকালে আজাদ ফের টাকা দাবি করলে রুজিনা পারবেন না বলে জানান। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে স্ত্রীকে পিটিয়ে তার কাপড়ে আগুন লাগিয়ে দেন আজাদ। এতে রুজিনার পিঠ ঝলসে যায়।

পরে স্থানীয় কয়েকজন ও বাবার বাড়ির লোকজন এসে রুজিনাকে গুরুতর অবস্থায় উদ্ধার করে বগুড়া জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করায়। এ ঘটনায় গত ৩ জুলাই রুজিনার বাবা আব্দুর রহমান বাদী হয়ে কাহালু থানায় জামাইসহ ২ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন। পরে ওই রাতেই আজাদকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

ওসি মো. জিয়া লতিফুল ইসলাম বলেন, ‘স্ত্রী শরীরে আগুন দেওয়ার ঘটনায় স্বামী আবুল কালাম আজাদকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।’

advertisement