advertisement
advertisement

উপসর্গ নিয়ে মৃত্যু আরও ১০ জনের

আমাদের সময় ডেস্ক
৫ জুলাই ২০২০ ০০:০০ | আপডেট: ৫ জুলাই ২০২০ ০০:০২
advertisement

করোনার উপসর্গ নিয়ে আরও ১০ জনের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে কুমিল্লা মেডিক্যালেই মারা গেছেন ৬ জন। এ ছাড়া রাজশাহীতে ২, চট্টগ্রামে ১ ও পটুয়াখালীতে ১ জনের মৃত্যু হয়। নিজস্ব প্রতিবেদক ও প্রতিনিধিদের পাঠানো খবরÑ

কুমিল্লা : কুমিল্লায় করোনায় ও করোনার উপসর্গ নিয়ে মৃত্যুর সংখ্যা বাড়ছেই। গত ২৪ ঘণ্টায় কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ (কুমেক) হাসপাতালে করোনা ভাইরাস আক্রান্ত ও উপসর্গ নিয়ে সাতজন মারা যান। এর মধ্যে করোনা পজিটিভ নিয়ে একজন পুরুষ এবং করোনা উপসর্গ নিয়ে ছয়জনের মৃত্যু হয়। উপসর্গ নিয়ে আইসোলেশন ওয়ার্ডে তিনজন এবং করোনা ইউনিটের আইসিইউতে চারজন মারা যান। তাদের মধ্যে করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা যান বরুড়া উপজেলার শাহ আলম। উপসর্গ নিয়ে মারা যাওয়া ব্যক্তিরা হলেন চাঁদপুরের শাহরাস্তি উপজেলার আরিফুর রহমানের স্ত্রী নাজমা রহমান, কুমিল্লার ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলার গোপালনগর এলাকার আবদুল করিম, মনোহরগঞ্জ উপজেলার হাতিমারা এলাকার জামাল উদ্দিন, গোপালগঞ্জ জেলার মুকসুদপুর উপজেলার বাশবাড়িয়া এলাকার মো. তারা মিয়ার স্ত্রী লুৎফর নেছা,

কুমিল্লা সদর উপজেলার মনতাজ আলীর ছেলে আবদুল কাদের ও চাঁদপুরের হাজীগঞ্জ উপজেলার নবদী সরকারের ছেলে বাসু দেব।

রাজশাহী : করোনা উপসর্গ নিয়ে রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে দুই জনের মৃত্যু হয়। গত শুক্রবার রাতে তারা মারা যান। দুজনই রাজশাহী নগরীর বাসিন্দা। তারা রামেক হাসপাতালের ২৯ নম্বর করোনা ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন ছিলেন। তারা হলেন রাজশাহী নগরীর সিপাইপাড়া এলাকার গিয়াস উদ্দিন ও বোয়ালিয়া থানা এলাকার আহেদ।

বাউফল : আশা ব্যাংকের পটুয়াখালীর বাউফল উপজেলার কনকদিয়া শাখার ম্যানেজার মো. শফিকুল ইসলাম করোনা উপসর্গ নিয়ে মারা যান। গতকাল সন্ধ্যায় বরিশাল শেরে বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়।

চট্টগ্রাম : করোনা ভাইরাসের উপসর্গ নিয়ে গত শুক্রবার রাতে চট্টগ্রাম জেনারেল হাসপাতালে মারা যান চট্টগ্রামের আদালতের জ্যেষ্ঠ আইনজীবী আবুল কালাম আজাদ। ১০ দিন আগে করোনার নমুনা দিলেও তার ফল আসেনি এখনো। মৃত্যুর আগে জানা হল না তিনি করোনায় আক্রান্ত ছিলেন কিনা। তিনি আগে থেকেই মস্তিষ্কের সমস্যায় ভুগছিলেন। আবুল কালাম আজাদের বাড়ি চন্দনাইশ উপজেলার জোয়ারা গ্রামে।

advertisement