advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

শোকগাথা
গান করতে গিয়ে বন্ধুত্বও গাঢ় হয়েছে

সাবিনা ইয়াসমিন
৭ জুলাই ২০২০ ০০:০০ | আপডেট: ৭ জুলাই ২০২০ ০০:৪৬
advertisement

এন্ড্রু কিশোর নেই। এটা কোনো শিরোনাম হতে পারে না। আমি মেনে নিতে পারছি না। তিনি আছেন, থাকবেন। হয়তো তার দেহ নেই, কিন্তু তার কণ্ঠ? আমরা কি না শুনে থাকতে পারব তার গাওয়া কালজয়ী গানগুলো। কিশোর আমার দীর্ঘদিনের সহশিল্পী। আমরা একসঙ্গে অসংখ্য গানে কণ্ঠ দিয়েছি। আমাদের অনেক গানই শ্রোতারা গ্রহণ করেছেন। গান করতে গিয়ে দুজনের বন্ধুত্বও গাঢ় হয়েছে। সে বন্ধু, সে মানুষটি ক্যানসারে আক্রান্ত হওয়ার খবরে আমি ভীষণভাবে ভেঙে পড়ি। আমি নিজেও একই রোগে আক্রান্ত হয়েছিলাম, সবার দোয়ায় ফিরে এসেছি। কিন্তু সে ফিরল না। আমাদের গাওয়া ‘কি জাদু করিলা’, ‘তুমি আমার কত চেনা’, ‘চোর আমি, ডাকু আমি বল না’, ‘সবাই তো ভালোবাসা চায়’, ‘সব সখিরে পার করিতে নেব আনা আনা’সহ অসংখ্য গান শ্রোত শুনেছেন, শুনবেন। এন্ড্রু কিশোরের চিকিৎসার প্রাথমিক ধাপেই প্রয়োজন পড়ে দুই কোটি টাকার বেশি, যা নিয়ে বেশ হিমশিম খেতে হয় কিশোরের পরিবারকে। বিভিন্নজন বিভিন্নভাবে সহায়তার হাত বাড়িয়ে দেন। তার রাজশাহীর বাড়িটিও বিক্রি করে দেওয়া হয়। তবে সবার আগে সিঙ্গাপুর যাওয়ার প্রাক্কালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এন্ড্রু কিশোরকে ১০ লাখ টাকার একটি চেক দিয়েছিলেন। কিন্তু মোটা অঙ্কের অর্থ হওয়ায় আমরা

এ নিয়ে খুব চিন্তার মধ্যে ছিলাম। ঠিক এমন সময় কিশোরের চিকিৎসার সব দায়িত্ব নিজের কাঁধে তুলে নেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

advertisement
Evaly
advertisement