advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

হাইকোর্টের ৫ দফা নির্দেশ
রোগী ফেরতের অভিযোগ তদন্ত করতে হবে

নিজস্ব প্রতিবেদক
৭ জুলাই ২০২০ ০০:০০ | আপডেট: ৭ জুলাই ২০২০ ০০:৪৬
advertisement

চিকিৎসাসেবা না দিয়ে সাধারণ রোগী ফেরত পাঠানোর অভিযোগ তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। অভিযোগ তদন্ত করে ২১ জুলাইয়ের মধ্যে আদালতে প্রতিবেদন দাখিল করতে স্বাস্থ্য সচিব ও স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালকের প্রতি এ নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। করোনাকালে হাসপাতালে ভর্তি ও চিকিৎসায় অবহেলায় রোগীর মৃত্যুর ঘটনায় ব্যবস্থা গ্রহণ, আইসিইউ বণ্টন, বেসরকারি হাসপাতাল অধিগ্রহণ, চিকিৎসা ও অক্সিজেন সরবরাহ

নিয়ে দাখিল করা পৃথক ৬টি রিটের ওপর শুনানি করে গতকাল সোমবার বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিমের ভার্চুয়াল হাইকোর্ট বেঞ্চ মোট পাঁচ দফা নির্দেশনা দিয়েছেন।

নির্দেশনাগুলো হচ্ছেÑ বিনাচিকিৎসায় রোগী ফেরতের ঘটনায় দায়ের করা রিটের অভিযোগগুলো তদন্ত প্রতিবেদন ২১ জুলাইয়ের মধ্যে হাইকোর্টে দাখিল করতে হবে; ক্যানসারসহ জটিল রোগে আক্রান্ত রোগীদের করোনার লক্ষণ থাকলে ৩৬/৪৮ ঘণ্টার মধ্যে টেস্ট করে চিকিৎসা অব্যাহত রাখা; ১০ কার্যদিবসের মধ্যে অক্সিজেনের মূল্য নির্ধারণ; বিনাচিকিৎসার জন্য অভিযোগ করতে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর অনলাইনে অভিযোগ গ্রহণের পদ্ধতি চালু; বেসরকারি হাসপাতালের আইসিইউতে অস্বাভাবিক বিল এলে দুর্নীতি দমন কমিশনে অভিযোগ দায়ের করার নির্দেশ।

আদালতে রিটের পক্ষে শুনানি করেন ব্যারিস্টার অনিক আর হক, অ্যাডভোকেট ইয়াদিয়া জামান, ব্যারিস্টার মাহফুজুর রহমান মিলন, অ্যাডভোকেট জামিউল হক ফয়সাল ও ব্যারিস্টার এহসানুর রহমান। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম। পরে আইনজীবী অ্যাডভোকেট জামিউল হক ফয়সাল বলেন, ‘আমরা হাসপাতালে আসা সাধারণ রোগীদের চিকিৎসা না দিয়ে ফেরত পাঠানো সংক্রান্ত বিভিন্ন অভিযোগ ও তথ্যসংবলিত পত্রিকার প্রতিবেদন আজ আদালতের কাছে দাখিল করেছিলাম। আদালত এসব অভিযোগ তদন্তসহ পাঁচ দফা নির্দেশ দিয়েছেন।’

এর আগে পৃথক ৫টি রিটের প্রাথমিক শুনানি করে গত ১৫ জুন হাইকোর্টের দেওয়া নির্দেশনা ও অভিমতের মধ্যে গত ১৬ জুন ৭টি নির্দেশনা স্থগিত করেন আপিল বিভাগের চেম্বার বিচারপতির আদালত। এ ছাড়া ৩টি নির্দেশনা বহাল রাখা হয়। এর মধ্যে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের জারি করা নির্দেশনা যথাযথভাবে পালন হচ্ছে কিনা, তা জানাতে দেওয়া নির্দেশনার আলোকে ৩০ জুনের মধ্যে একটি প্রতিবেদন দাখিল করে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর।

ওই প্রতিবেদনে বলা হয়, চিকিৎসা না দিয়ে সাধারণ রোগীদের ফেরত পাঠানোর কোনো অভিযোগ পাওয়া যায়নি। পাওয়া গেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। বেসরকারি হাসপাতাল ও ক্লিনিক আইসিইউয়ে চিকিৎসাধীন কোভিড-১৯ রোগীর কাছ থেকে মাত্রাতিরিক্ত বা অযৌক্তিক ফি আদায় না করতে পারে, সে বিষয়ে মনিটরিংয়ের ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। অক্সিজেন সিলিন্ডারের খুচরা মূল্য এবং রি-ফিলিংয়ের মূল্য নির্ধারণ করার ব্যবস্থা নিতে কেন্দ্রীয় ঔষধাগারের পরিচালককে (ভা-ার ও সরবরাহ) নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

এ অবস্থায় রোগী ভর্তি না করায় এবং অতিরিক্ত বিল নেওয়ার অভিযোগে ঢাকা ও চট্টগ্রামের চারটি বেসরকারি হাসপাতালের পরিচালকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে হাইকোর্টের উপরোক্ত বেঞ্চে গত রবিবার একটি সম্পূরক রিট করা হয়। চট্টগ্রামের কর্ণফুলী থানার মৃত হাজী মোহাম্মদ হোসাইনের ছেলে হেলাল উদ্দিনের পক্ষে অ্যাডভোকেট ইয়াদিয়া জামান এ আবেদন করেন। রিটকারীরর বাবা হাজী মোহাম্মদ হোসেন চিকিৎসা না পেয়ে মারা যান বলে অভিযোগ করা হয় রিটে। এই আবেদনে হাসপাতালে ভর্তি না করার কারণে যেসব রোগী মারা যাচ্ছেন তাদের পরিবারকে ক্ষতিপূরণ দেওয়া, করোনাসংক্রান্ত রোগী ভর্তি না করার বিষয়ে অভিযোগ জানানোর জন্য পুলিশের একটি পৃথক হটলাইন চালুর বিষয়ে নির্দেশনা চাওয়া হয়।

advertisement
Evaly
advertisement