advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

এন্ড্রু কিশোরের শেষকৃত্য ১৫ জুলাই

বিনোদন প্রতিবেদক
৭ জুলাই ২০২০ ১৩:৩৪ | আপডেট: ৭ জুলাই ২০২০ ১৭:৪৭
সংগীতশিল্পী এন্ড্রু কিশোর। পুরোনো ছবি
advertisement

বরেণ্য সংগীতশিল্পী এন্ড্রু কিশোরের মৃত্যুতে তার নিজ শহর রাজশাহীসহ থমকে গেছে গোটা দেশ। নেমেছে শোকের ছায়া। গতকাল রাত সাড়ে ৯টায় এন্ড্রু কিশোরের মরদেহ মহিষবাথান থেকে নগরীর লক্ষ্মীপুরে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালের হিমঘরে নেওয়া হয়েছে।

পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, তার ছেলে জে এন্ড্রু সপ্তক ও মেয়ে মিনিম এন্ড্রু সংজ্ঞা অস্ট্রেলিয়ায় থাকায় তাদের আসতে কয়েকদিন সময় লাগবে। ফলে তার শেষকৃত্য অনুষ্ঠিত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে আগামী ১৫ জুলাই। এমনটাই জানিয়েছেন তার ভগ্নিপতি প্যাট্রিক বিপুল বিশ্বাস।

মৃত্যুর আগেই প্লেব্যাক সম্রাট’খ্যাত এই শিল্পী নির্ধারণ করে গেছেন তার সমাধিস্থলের জায়গা। ফলে সেখানেই তাকে সমাহিত করা হবে বলেও জানান তার ভগ্নিপতি।

দৈনিক আমাদের সময় অনলাইনকে ভগ্নিপতি প্যাট্রিক বিপুল বিশ্বাস বলেন, ‘ধর্মীয়নীতি অনুযায়ী আমাদের চার্চে যেতে হবে। সকলের শ্রদ্ধা জানানোর জন্য তার মরদেহ সেখানে রাখা হবে। এরপর তার মরদেহ তার বিশ্ববিদ্যালয়ে (রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে) নেওয়া হবে। বেলা ১১টা থেকে নামাজের আগ পর্যন্ত সেখানে রাখা হবে। শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে আমরা দুপুর ২টার দিকে সরকারি কলেজে তাকে নিয়ে আসবো এবং এখান থেকে বেলা সাড়ে ৩টায় বাংলাদেশ চার্চে বেরিয়াল গ্রাউন্ডে নিয়ে যাবো। তারপর তার যে নির্দিষ্ট জায়গা, যেটা আমাদের বলা হয়েছে (মায়ের পাশে), সেখানে তার মরদেহ সমাহিত করা হবে।’

টানা ১০ মাস ক্যানসারের সঙ্গে যুদ্ধ করে গতকাল সোমবার সন্ধ্যায় রাজশাহীতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন দেশ বরেণ্য সংগীতশিল্পী এন্ড্রু কিশোর। তিনি রাজশাহী মহানগরীর মহিষবাথান এলাকায় বোন ডা. শিখা বিশ্বাসের বাসায় ছিলেন।

১৯৫৫ সালের ৪ নভেম্বর রাজশাহীতে জন্মগ্রহণ করেন এন্ড্রু কিশোর। রাজশাহীতেই কেটেছে এন্ড্রু কিশোরের শৈশব ও কৈশোর। ১৯৭৭ সালে আলম খানের সুরে ‘মেইল ট্রেন’ ছবির ‘অচিনপুরের রাজকুমারী নেই যে তার কেউ’ গানের মধ্যদিয়ে এন্ড্রু কিশোরের চলচ্চিত্রে প্লেব্যাক যাত্রা শুরু হয়। সেই থেকে তাকে আর পেছন ফিরে তাকাতে হয়নি। সংগীতে অসামান্য অবদানের আটবার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারসহ অসংখ্য সম্মানে ভূষিত হয়েছেন খ্যাতনামা এই শিল্পী।

এন্ড্রু কিশোরের জনপ্রিয় গানগুলোর তালিকায় আছে- ‘হায়রে মানুষ রঙিন ফানুস’, ‘জীবনের গল্প আছে বাকি অল্প’, ‘ডাক দিয়াছেন দয়াল আমারে’, ‘আমার সারা দেহ খেয়ো গো মাটি’, ‘আমার বুকের মধ্যে খানে’, ‘আমার বাবার মুখে প্রথম যেদিন শুনেছিলাম গান’, ‘ভেঙেছে পিঞ্জর মেলেছে ডানা’, ‘সবাই তো ভালোবাসা চায়’, ‘পড়ে না চোখের পলক’, ‘পদ্মপাতার পানি’, ‘ওগো বিদেশিনী’, ‘তুমি মোর জীবনের ভাবনা’, ‘আমি চিরকাল প্রেমের কাঙাল’ ইত্যাদি।

advertisement