advertisement
advertisement

করোনা শনাক্তকরণ পরীক্ষাও সরকার নিয়ন্ত্রণ করছে : রিজভী

নিজস্ব প্রতিবেদক
৭ জুলাই ২০২০ ১৭:১৯ | আপডেট: ৭ জুলাই ২০২০ ১৭:৩১
বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। পুরোনো ছবি
advertisement

সরকার করোনাভাইরাস শনাক্তকরণে নমুনা পরীক্ষাও নিয়ন্ত্রণ করছে বলে অভিযোগ করেছে বিএনপি। আজ মঙ্গলবার এক ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে দলটির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী এই অভিযোগ করেন।

নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এই ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, ‘এখন করোনার নমুনা পরীক্ষাও নিয়ন্ত্রণ করা হচ্ছে। কয়েকদিন আগে ১৫/১৬ হাজার মানুষের নমুনা পরীক্ষা করা হচ্ছিল। এখন তা ১১/১২ হাজারে নেমে এসেছে অর্থাৎ নমুনা পরীক্ষা প্রায় ৪/৫ হাজারে কমে গেছে। এর অর্থ সরকার জবরদস্তিমূলকভাবে করোনা সংক্রমণ কম-এটি জনগণকে দেখানোর জন্য করোনা পরীক্ষার নিয়ন্ত্রণ করছে।’

করোনার এই উচ্চ সংক্রমণের সময়ে কেন করোনা পরীক্ষা কমে গেল তার কী কোনো উত্তর দিতে পারবেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, এমন প্রশ্ন করেন রিজভী।

করোনার ‘ভুল রিপোর্ট’ এর প্রসঙ্গ টেনে তিনি বলেন, ‘করোনাকালে সরকার গণমাধ্যমের গলায় ফাঁস পরিয়ে রাখলেও তারপরেও যতটুকু সংবাদ প্রকাশিত হচ্ছে তাতে সরকারি দলের লোকদের দুর্নীতির কাহিনী শুনলে গা শিউরে ওঠে। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সাথে চুক্তিবদ্ধ আওয়ামী লীগ নেতার রিজেন্ট হাসপাতালে করোনার সঠিক পরীক্ষা না করে হাজার হাজার মানুষকে দেওয়া হয়েছে করোনা পরীক্ষার ভুল রিপোর্ট। যার পজিটিভ তাকে দেওয়া হয়েছে নেগেটিভ আর যার নেগেটিভ তাকে দেওয়া হয়েছে পজিটিভ রিপোর্ট। এভাবে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছে রিজেন্ট হাসপাতালটি।’

মানুষের মহাদুযোর্গেও মহাদুর্নীতি থেকে বের হতে পারেনি আওয়ামী লীগের নেতারা মন্তব্য করেন রিজভী। তিনি বলেন, ‘করোনা টেস্টের নামে ক্ষমতাসীনরা মানুষের জীবন নিয়ে ছিনিমিনি খেলবেন অথচ এ বিষয়ে সমালোচনা করা যাবে না- এটা ভয়ংকর কর্তৃত্ববাদী শাসনের চূড়ান্ত বহিঃপ্রকাশ।’

‘বিএনপি আজগুবি তথ্য দিচ্ছে, পূর্ণিমার রাতেও তারা অমাবস্যার অন্ধকার দেখতে পায়’, আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকের বক্তব্যে জবাবে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব বলেন, ‘বিএনপি জাতিকে বিভ্রান্ত করছে না বরং জাতির সামনে প্রতিনিয়ত সঠিক তথ্য তুলে ধরছে। আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকের উদ্দেশে বলতে চাই, যতই একক কর্তৃত্ববাদী শাসনের প্রকোপ বৃদ্ধি, গণতন্ত্রহরণ আর বিরোধী মত নিধন করেন না কেন—জনগণের অধিকারের পক্ষে আমাদের উচ্চারণ থামবে না।’

advertisement